এনটিআরসিএর নিবন্ধনে পাস করা চাকরিপ্রত্যাশীরা বয়সে শিথিলতা চান

বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষের (এনটিআরসিএ) ১৬তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ কিন্তু বয়স ৩৫ পেরিয়েছে, নিয়োগের ক্ষেত্রে বয়সের শিথিলতা দাবি করেন এমন চাকরিপ্রার্থীরা।

আজ রোববার রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ‘চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তি–প্রত্যাশী শিক্ষক নিবন্ধন ফোরামের’ ব্যানারে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন সারা দেশের শতাধিক চাকরিপ্রার্থী। বয়স শিথিলসহ তিন দফা দাবি জানিয়েছেন তাঁরা। অন্য দুটি দাবি হচ্ছে—১৬তম নিবন্ধনধারীদের আবেদনের সুযোগ দেওয়া এবং শূন্য পদের বিপরীতে শিক্ষক নিয়োগ দিতে মুজিব বর্ষেই চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা।

অবস্থান কর্মসূচি পালনের সময় বক্তারা বলেন, চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করতে দেরি করায় ইতিমধ্যে অনেকের বয়স ৩৫ পেরিয়ে গেছে। চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে নিবন্ধিত প্রার্থীদের বয়সে শিথিলতা দিয়ে চাকরি নিশ্চিতের দাবি জানান তাঁরা।

ফোরামের অর্থ সম্পাদক মো. জাকিরুল ইসলাম বলেন, সম্প্রতি চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তির দাবিতে এনটিআরসিএর চেয়ারম্যানকে স্মারকলিপি দেন ১৬তম শিক্ষক নিবন্ধনকারীরা। এতে বলা হয়েছে, ২০১৯ সালের ২ মে ১৬তম শিক্ষক নিবন্ধনের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়। লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষা শেষে গত বছরের ১৭ অক্টোবর চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশ করা হয়। করোনা মহামারির কারণে লিখিত ও মৌখিকের ফলাফল প্রকাশে অনেক দেরি হয়েছে। বর্তমানে অনেকের বয়স ৩৫ পার হয়েছে বা কাছাকাছি রয়েছে।

১৮ হাজার ৫০০ জন নিবন্ধনকারীর পরিবারের অসহায়ত্ব ও বয়সের কথা বিবেচনা করে বর্তমানে সারা দেশের শূন্য পদের তথ্য নিয়ে যত দ্রুত সম্ভব চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করার আহ্বান জানান জাকিরুল ইসলাম।