The Rising Campus
News Media
বৃহস্পতিবার, ২রা ফেব্রুয়ারি, ২০২৩

এক দশকে ক্যাম্পাস সাংবাদিকতার আতুড়ঘর ‘কুবিসাস’

কুবি প্রতিনিধি: বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতা ও স্বত:স্ফূর্ত পেশাদারিত্ব বজায় রেখে প্রতিষ্ঠার ৯ বছর পেরিয়ে ১০ম বর্ষে পদার্পণ করল কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (কুবিসাস)।

‘সত্য ও ন্যায়ের পথে অবিচল ‘ এ প্রতিপাদ্যকে ধারণ করে ২০১৩ সালের ৬ ডিসেম্বর একদল তরুণ ও উদ্যমী সংবাদকর্মীদের নিয়ে যাত্রা শুরু করে সংগঠনটি।

নয় বছরের অগ্রযাত্রায় সাংবাদিকতায় পেশাদারিত্বের স্বাক্ষর রেখে পাঠকের দৃষ্টি কেড়েছে বিশ্ববিদ্যালয় ভিত্তিক সংগঠন কুবিসাস। সবার নিকট দ্রুত জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে আস্থা ও বিশ্বাসের সংগঠন কুবিসাস। ভবিষ্যতেও এই ধারা অব্যাহত রাখতে চায় সংগঠনটি।

কুবিসাসে সঙ্গে ক্যাম্পাস সাংবাদিকতায় জড়িয়েছে তাঁরা একেক জন কলম যোদ্ধা। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রকৃত চিত্র, অজানা তথ্য, অসাধারণ সব জীবনের গল্প, ক্যাম্পাসের বিভিন্ন অসংগতি সহ সবকিছুই ক্যাম্পাস সাংবাদিকরা শিক্ষার্থীদের সামনে তুলে ধরেন। ক্যাম্পাস ভিত্তিক তথ্য প্রবাহ ধরে রাখতে দেশের সব বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিকতা চর্চা, সাংবাদিক ও শিক্ষার্থীদের অধিকার সুরক্ষা করতে সাংবাদিক সমিতি রয়েছে। কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিক সমিতি তারই ধারাবাহিকতায় সূচনা লগ্ন থেকে অবাধ তথ্য প্রবাহ, সত্য তথ্য, বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ রচনায় সাংবাদিকতায় উৎসাহিত করতে কাজ করে যাচ্ছে। ক্যাম্পাসের নানা ঘটনা, সংগ্রামী জীবনের গল্প, দ্বন্দ্ব-সংঘাত, রাজনৈতিক ঘটনা প্রবাহ ও নিত্যদিনের ঘটনা তুলে ধরছেন কুবিসাসের সদস্যরা ।

কুবিসাস ক্যাম্পাস সাংবাদিকতার আতুড়ঘর হিসেবে বহুল পরিচিত। কুবিসাসের মাধ্যমে অনেক নব্য সাংবাদিকের হাতেখড়ি। এই পর্যন্ত এই সংগঠনটিতে কাজ করে অনেকে সাংবাদিকতাকে পেশা হিসেবে গ্রহণ করেছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের যাবতীয় অর্জন, সফলতা ও ব্যর্থতাগুলো সততা ও নিষ্ঠার সাথে তুলে ধরার পাশাপাশি সৎ, দক্ষ ও নিষ্ঠাবান দেশবরেণ্য সাংবাদিক তৈরিতে ভূমিকা রাখছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (কুবিসাস)।

ধারাবাহিকভাবে চলতে থাকা কুবিসাসের কার্যক্রম হঠাৎ থমকে দাঁড়ায়। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে অকালে হারিয়ে যায় কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির একটি নক্ষত্র। তিনি ছিলেন কুবিসাসের সাবেক দপ্তর সম্পাদক ও খোলা কাগজের কুমিল্লা প্রতিনিধি নাজমুল সবুজ। কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি যদি একটি পরিবার হয়। নাজমুল সবুজ ওই পরিবারের অন্যতম একজন সারথি।

গনিত বিভাগের শিক্ষার্থী শামসের তাবরিজ চৌধুরী বলেন, আমার দেখা মতে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (কুবিসাস) আপোষহীনভাবে সত্য তথ্য প্রকাশ করে আসছে। তথ্য প্রকাশ করতে সংগঠনটিকে পক্ষপাত করতে আমি দেখেনি। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন থেকে শুরু করে ছাত্রলীগ বা যে কোনো দল অন্যায় কিছু করলে তা প্রকাশ করতে দ্বিধাবোধ করেনা। আবার কেউ ভালো কিছু করলে তাও তুলে ধরে কুবিসাস।

তিনি উচ্ছাসিত হয়ে আরও বলেন, কুবিসাস নিয়মিত ভাবে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার মান, বিভিন্ন বিভাগ ভিত্তিক সমস্যা ও তাঁর সমাধানে সংবাদ প্রকাশের মাধ্যমে তুলে ধরেছে । এছাড়াও কুবিসাস প্রযুক্তিগত ও আধুনিক সাংবাদিকতা চর্চায় গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে যাচ্ছে। কুবিসাসের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আমি কিছু লিখতে পেরে অত্যন্ত আনন্দিত ও উচ্ছাসিত। এই দিনে আমি কুবিসাসের সম্মানিত সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে অভিনন্দন জানাই।

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির প্রতিষ্ঠাকালীন আহ্বায়ক সদস্য আহসান হাবিব বলেন, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (কুবিসাস) আমার সন্তানেরই মতন। সন্তানের উত্তরোত্তর সমৃদ্ধিতে পিতা যেমন খুশি হন, সামগ্রিকভাবে কুবিসাস-এর সমৃদ্ধি তো বটেই, এমনকী, এই পরিবারের প্রতিটি সদস্যের ব্যক্তিগত যেকোন অর্জনেও আমি তেমনই অসামান্য আবেগে উদ্বেলিত হই। কুবিসাস ও এর সদস্যরা সত্য ও ন্যায়ের পথে পাহাড়সম দৃঢ়তায় অবিচল থাকবে, এটাই আমার হার্দিক প্রত্যাশা।

তিনি আবেগাপ্লুত হয়ে আরও বলেন, সম্প্রতি আমরা আমাদের কুবিসাস পরিবারের অন্যতম সারথি সাবেক দপ্তর সম্পাদক নাজমুল সবুজকে হারিয়েছি। এর শোক আমরা এখনো কাটিয়ে উঠতে পারছি না কোনভাবেই। এবারের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর সব আয়োজন নাজমুল সবুজের শ্রদ্ধায় নিবেদিত হোক।

সাংবাদিক সমিতির বর্তমান সভাপতি শাহাদাত বিপ্লব বলেন, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি সুপ্রসিদ্ধ সংগঠন। বিশ্ববিদ্যালয়ে গত ৯ বছর ধরে আমরা সত্য ও ন্যয়ের পথে কাজ করে যাচ্ছি। অন্যায় অসঙ্গতির পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্বিক দিক তুলে ধরতে আমরা সদা সোচ্চার। একটি মেলবন্ধন যে একটা শক্তির নাম এই সংগঠন তার জ্বলন্ত উদাহরণ। সর্বোপরি বিশ্ববিদ্যালয় ও সাংবাদিকতার উন্নয়নের জন্য আমরা অতীতেও নিরলস কাজ করেছি, বর্তমানেও করছি, আশা করি তা ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. এ এফ এম আব্দুল মঈন বলেন, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে সবাইকে আমার শুভেচ্ছা জানাই। আশা করবো যে বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়নে তথ্যবহুল সংবাদ রচনা এবং ইথিক্যাল জার্নালিজম যেন সবাই চর্চা করে।

নানা প্রতিকূলতা ও সংবাদ সংগ্রহের জটিলতাকে উতরে সামনে এগিয়ে চলার প্রত্যয়ে কাজ করে যাচ্ছে কুবিসাস। সত্য ও ন্যায়ের পথে অবিচল থেকে প্রতিনিয়ত বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ রচনার মাধ্যমে সাংবাদিকতায় এক নতুন মাত্রা যুক্ত করেছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (কুবিসাস)।

0
You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. হোম
  2. ক্যাম্পাস
  3. এক দশকে ক্যাম্পাস সাংবাদিকতার আতুড়ঘর ‘কুবিসাস’

এক দশকে ক্যাম্পাস সাংবাদিকতার আতুড়ঘর 'কুবিসাস'

কুবি প্রতিনিধি: বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতা ও স্বত:স্ফূর্ত পেশাদারিত্ব বজায় রেখে প্রতিষ্ঠার ৯ বছর পেরিয়ে ১০ম বর্ষে পদার্পণ করল কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (কুবিসাস)।

'সত্য ও ন্যায়ের পথে অবিচল ' এ প্রতিপাদ্যকে ধারণ করে ২০১৩ সালের ৬ ডিসেম্বর একদল তরুণ ও উদ্যমী সংবাদকর্মীদের নিয়ে যাত্রা শুরু করে সংগঠনটি।

নয় বছরের অগ্রযাত্রায় সাংবাদিকতায় পেশাদারিত্বের স্বাক্ষর রেখে পাঠকের দৃষ্টি কেড়েছে বিশ্ববিদ্যালয় ভিত্তিক সংগঠন কুবিসাস। সবার নিকট দ্রুত জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে আস্থা ও বিশ্বাসের সংগঠন কুবিসাস। ভবিষ্যতেও এই ধারা অব্যাহত রাখতে চায় সংগঠনটি।

কুবিসাসে সঙ্গে ক্যাম্পাস সাংবাদিকতায় জড়িয়েছে তাঁরা একেক জন কলম যোদ্ধা। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রকৃত চিত্র, অজানা তথ্য, অসাধারণ সব জীবনের গল্প, ক্যাম্পাসের বিভিন্ন অসংগতি সহ সবকিছুই ক্যাম্পাস সাংবাদিকরা শিক্ষার্থীদের সামনে তুলে ধরেন। ক্যাম্পাস ভিত্তিক তথ্য প্রবাহ ধরে রাখতে দেশের সব বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিকতা চর্চা, সাংবাদিক ও শিক্ষার্থীদের অধিকার সুরক্ষা করতে সাংবাদিক সমিতি রয়েছে। কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিক সমিতি তারই ধারাবাহিকতায় সূচনা লগ্ন থেকে অবাধ তথ্য প্রবাহ, সত্য তথ্য, বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ রচনায় সাংবাদিকতায় উৎসাহিত করতে কাজ করে যাচ্ছে। ক্যাম্পাসের নানা ঘটনা, সংগ্রামী জীবনের গল্প, দ্বন্দ্ব-সংঘাত, রাজনৈতিক ঘটনা প্রবাহ ও নিত্যদিনের ঘটনা তুলে ধরছেন কুবিসাসের সদস্যরা ।

কুবিসাস ক্যাম্পাস সাংবাদিকতার আতুড়ঘর হিসেবে বহুল পরিচিত। কুবিসাসের মাধ্যমে অনেক নব্য সাংবাদিকের হাতেখড়ি। এই পর্যন্ত এই সংগঠনটিতে কাজ করে অনেকে সাংবাদিকতাকে পেশা হিসেবে গ্রহণ করেছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের যাবতীয় অর্জন, সফলতা ও ব্যর্থতাগুলো সততা ও নিষ্ঠার সাথে তুলে ধরার পাশাপাশি সৎ, দক্ষ ও নিষ্ঠাবান দেশবরেণ্য সাংবাদিক তৈরিতে ভূমিকা রাখছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (কুবিসাস)।

ধারাবাহিকভাবে চলতে থাকা কুবিসাসের কার্যক্রম হঠাৎ থমকে দাঁড়ায়। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে অকালে হারিয়ে যায় কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির একটি নক্ষত্র। তিনি ছিলেন কুবিসাসের সাবেক দপ্তর সম্পাদক ও খোলা কাগজের কুমিল্লা প্রতিনিধি নাজমুল সবুজ। কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি যদি একটি পরিবার হয়। নাজমুল সবুজ ওই পরিবারের অন্যতম একজন সারথি।

গনিত বিভাগের শিক্ষার্থী শামসের তাবরিজ চৌধুরী বলেন, আমার দেখা মতে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (কুবিসাস) আপোষহীনভাবে সত্য তথ্য প্রকাশ করে আসছে। তথ্য প্রকাশ করতে সংগঠনটিকে পক্ষপাত করতে আমি দেখেনি। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন থেকে শুরু করে ছাত্রলীগ বা যে কোনো দল অন্যায় কিছু করলে তা প্রকাশ করতে দ্বিধাবোধ করেনা। আবার কেউ ভালো কিছু করলে তাও তুলে ধরে কুবিসাস।

তিনি উচ্ছাসিত হয়ে আরও বলেন, কুবিসাস নিয়মিত ভাবে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার মান, বিভিন্ন বিভাগ ভিত্তিক সমস্যা ও তাঁর সমাধানে সংবাদ প্রকাশের মাধ্যমে তুলে ধরেছে । এছাড়াও কুবিসাস প্রযুক্তিগত ও আধুনিক সাংবাদিকতা চর্চায় গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে যাচ্ছে। কুবিসাসের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আমি কিছু লিখতে পেরে অত্যন্ত আনন্দিত ও উচ্ছাসিত। এই দিনে আমি কুবিসাসের সম্মানিত সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে অভিনন্দন জানাই।

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির প্রতিষ্ঠাকালীন আহ্বায়ক সদস্য আহসান হাবিব বলেন, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (কুবিসাস) আমার সন্তানেরই মতন। সন্তানের উত্তরোত্তর সমৃদ্ধিতে পিতা যেমন খুশি হন, সামগ্রিকভাবে কুবিসাস-এর সমৃদ্ধি তো বটেই, এমনকী, এই পরিবারের প্রতিটি সদস্যের ব্যক্তিগত যেকোন অর্জনেও আমি তেমনই অসামান্য আবেগে উদ্বেলিত হই। কুবিসাস ও এর সদস্যরা সত্য ও ন্যায়ের পথে পাহাড়সম দৃঢ়তায় অবিচল থাকবে, এটাই আমার হার্দিক প্রত্যাশা।

তিনি আবেগাপ্লুত হয়ে আরও বলেন, সম্প্রতি আমরা আমাদের কুবিসাস পরিবারের অন্যতম সারথি সাবেক দপ্তর সম্পাদক নাজমুল সবুজকে হারিয়েছি। এর শোক আমরা এখনো কাটিয়ে উঠতে পারছি না কোনভাবেই। এবারের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর সব আয়োজন নাজমুল সবুজের শ্রদ্ধায় নিবেদিত হোক।

সাংবাদিক সমিতির বর্তমান সভাপতি শাহাদাত বিপ্লব বলেন, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি সুপ্রসিদ্ধ সংগঠন। বিশ্ববিদ্যালয়ে গত ৯ বছর ধরে আমরা সত্য ও ন্যয়ের পথে কাজ করে যাচ্ছি। অন্যায় অসঙ্গতির পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্বিক দিক তুলে ধরতে আমরা সদা সোচ্চার। একটি মেলবন্ধন যে একটা শক্তির নাম এই সংগঠন তার জ্বলন্ত উদাহরণ। সর্বোপরি বিশ্ববিদ্যালয় ও সাংবাদিকতার উন্নয়নের জন্য আমরা অতীতেও নিরলস কাজ করেছি, বর্তমানেও করছি, আশা করি তা ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. এ এফ এম আব্দুল মঈন বলেন, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে সবাইকে আমার শুভেচ্ছা জানাই। আশা করবো যে বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়নে তথ্যবহুল সংবাদ রচনা এবং ইথিক্যাল জার্নালিজম যেন সবাই চর্চা করে।

নানা প্রতিকূলতা ও সংবাদ সংগ্রহের জটিলতাকে উতরে সামনে এগিয়ে চলার প্রত্যয়ে কাজ করে যাচ্ছে কুবিসাস। সত্য ও ন্যায়ের পথে অবিচল থেকে প্রতিনিয়ত বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ রচনার মাধ্যমে সাংবাদিকতায় এক নতুন মাত্রা যুক্ত করেছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (কুবিসাস)।

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন