অফিস-আদালত নিয়ে নতুন সিদ্ধান্ত, শিগগিরই প্রজ্ঞাপন

দেশে করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় সরকারি-বেসরকারি সকল অফিস ও আদালতের কার্যক্রম নিয়ে নতুন সিদ্ধান্ত জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক।

তিনি বলেন, সংক্রমণ রোধে অর্ধেক লোক দিয়ে অফিস–আদালতে কাজ করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। নোটিশ শিগগিরই দেওয়া হবে। নতুন এ সিদ্ধান্তও দ্রুত কার্যকর হবে।

শুক্রবার মহাখালী স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে আয়োজিত চলমান করোনা পরিস্থিতি নিয়ে জরুরি সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা জানান মন্ত্রী জাহিদ মালেক।

মন্ত্রী বলেন, স্কুলে সংক্রমণের হার বেড়ে যাচ্ছে। শিক্ষক-শিক্ষার্থী অনেকে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতাল ও চিকিৎসকের কাছে যাচ্ছে। এটা আশঙ্কাজনক। তাই আগামী দুই সপ্তাহের জন্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। তাই প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করে সম্মতি নিয়ে এ সিদ্ধান্ত হয়েছে।

তিনি বলেন, গণপরিবহনে যাতে ভোগান্তি না হয়, সেজন্য অর্ধেক লোক দিয়ে অফিসের কার্যক্রম চালানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এ বিষয়ে শিগগিরই প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে।

করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে আগামী ৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত দেশের সব স্কুল-কলেজ ও সমপর্যায়ের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করেছে সরকার। শুক্রবার সকালে মন্ত্রীপরিষদ বিভাগ থেকে এক বিজ্ঞপ্তিতে পাঁচটি নির্দেশনা জারি করা হয়।

নির্দেশনাগুলো হলো, ২১ জানুয়ারি থেকে আগামী ৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সব স্কুল, কলেজ ও সমপর্যায়ের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে; বিশ্ববিদ‌্যালয়গুলো নিজ নিজ ক্ষেত্রে অনুরূপ ব‌্যবস্থা গ্রহণ করবে।

সামাজিক/রাজনৈতিক/ধর্মীয়/রাষ্ট্রীয় অনুষ্ঠানে ১০০-এর বেশি জনসমাবেশ করা যাবে না। এসব ক্ষেত্রে যারা যোগদান করবেন তাদের অবশ্যই টিকা সনদ বা ২৪ ঘণ্টার মধ্যে পিসিআর সার্টিফিকেট আনতে হবে।

সরকারি/বেসরকারি অফিস, শিল্প-কারখানাগুলোতে কর্মকর্তা বা কর্মচারীদের টিকা সনদ গ্রহণ করতে হবে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে দায়িত্ব বহন করবেন।

বাজার, শপিং মল, মসজিদ, বাসস্ট্যান্ড, লঞ্চঘাট, রেল স্টেশনসহ সব ধরনের জনসমাবেশে মাস্ক ব্যবহারসহ যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করতে হবে।