The Rising Campus
Education, Scholarship, Job, Campus and Youth
শনিবার, ১৩ই জুলাই, ২০২৪

অনুমোদন ছাড়াই ইউসিএসআইয়ে শিক্ষার্থী ভর্তির বিজ্ঞাপন, ইউজিসির শোকজ

গত বছরের ১২ ডিসেম্বর প্রথম শাখা ক্যাম্পাস হিসেবে বাংলাদেশ সরকারের অনুমোদন লাভ করে মালয়েশিয়ার ইউসিএসআই ইউনিভার্সিটি। ঢাকার বনানীতে এর ক্যাম্পাস অবস্থিত।

আইন অনুযায়ী, বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমোদন পাওয়ার পর ইউজিসির অনুমোদন সাপেক্ষে অ্যাকাডেমিক কার্যক্রম চালু করতে হয়। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) অনুমোদন ছাড়াই শিক্ষার্থী ভর্তি করতে বিজ্ঞাপন দিয়েছে মালয়েশিয়ার ইউসিএসআই ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ। বিষয়টি দৃষ্টিগোচর হওয়ায় প্রতিষ্ঠানটিতে ভর্তি বন্ধ করার উদ্যোগ নিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর নিয়ন্ত্রক সংস্থা ইউজিসি।

জানা যায়, চলতি বছর ১ মার্চ রাজধানীর হোটেল লা মেরিডিয়ানে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি এ ক্যাম্পাসের উদ্বোধন করেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়টির প্রো-চ্যান্সেলর টুংকু জাইন আল-আবিদিন ও বাংলাদেশে মালয়েশিয়া দূতাবাসের রাষ্ট্রদূত হাজনা মো. হাশিম।  এক মাস আগে বাংলাদেশে শাখা ক্যাম্পাস চালু করে মালয়েশিয়ার ইউসিএসআই ইউনিভার্সিটি। এক মাসের মধ্যেই নীতিমালা ভঙ্গের অভিযোগ উঠেছে তাদের বিরুদ্ধে।

বুধবার (৩ মে) এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়টিকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে। নোটিশের জবাব দিয়ে আগামী তিন কর্মদিবসের মধ্যে ইউজিসির কাছে পাঠাতে বলা হয়েছে। জবাব সন্তোষজনক না হলে তাদের বিরুদ্ধে অন্যান্য ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ইউজিসি সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

শোকজে বলা হয়, ‘বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয় বা প্রতিষ্ঠানের শাখা ক্যাম্পাস বা স্টাডি সেন্টার পরিচালনা বিধিমালা, ২০১৪ ‘-এর বিধি এবং বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় আইন-২০১০ ইউসিএসআই ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ ক্যাম্পাস কর্তৃক ব্যত্যয় ঘটেছে বলে কমিশনের দৃষ্টিগোচর হয়েছে। এ অবস্থায় যথোপযুক্ত জবাব আগামী তিন কর্মদিবসের মধ্যে কমিশনের কাছে পাঠানোর নির্দেশ প্রদান করা হলো।’

বুধবার ইউজিসি সচিব ড. ফেরদৌস জামানের সই করা অফিস আদেশ থেকে এ তথ্য জানা যায়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ইউজিসি সচিব ড. ফেরদৌস জামান বলেন, সম্প্রতি এ স্টাডি সেন্টার স্থাপনের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। কিন্তু অ্যাকাডেমিক কার্যক্রম চালুর অনুমতি দেওয়া হয়নি। তারা অ্যাকাডেমিক শিক্ষাক্রম চালানোর জন্য কোনো আবেদনও করেনি। কিন্তু বুধবার দেশের কয়েকটি পত্রিকায় শিক্ষার্থী ভর্তির বিজ্ঞাপন দেওয়া হয়েছে। বিষয়টি নজরে আসার পর তাদের শোকজ করা হয়েছে। জবাব দেওয়ার পর পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.