The Rising Campus
News Media
বৃহস্পতিবার, ২রা ফেব্রুয়ারি, ২০২৩

ইবিতে ‘কুহেলিকা আগমণ’ উৎসব

ইবি প্রতিনিধি: শীতের আমেজকে নতুন করে পেতে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) দুই দিনব্যাপী ‘কুহেলিকা আগমণ’ উৎসব শুরু হয়েছে। মঙ্গলবার (২৪ জানুয়ারি) বিশ্ববিদ্যালয়ের বটতলায় এ উৎসবের আয়োজন করেছে সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পরিবেশবাদী সংগঠন ‘অভয়ারণ্য’।

‘কুহেলিকা আগমণ’ উপলক্ষে ক্যাম্পাসের ডায়না চত্বরের বটতলায় বিভিন্ন সংগঠনের উদ্যোগে ১৮টি স্টল স্থাপন করা হয়। যেখানে প্রবেশ করতেই দেখা মেলে রেলওয়ে পদ্ধতিতে একটি গেট। তার চারদিকে সাজানো পিঠাপুলি, নকশীকাঁথা, ফটোগ্রাফি প্রদর্শন, পুতুলের নাচ, চিঠিবক্স, আতিথিয়েতার সমাহার, বই তরণী, মুখরোচক খাবার, আইন আবৃত্তি, মধুসখা, দ্যা ফ্লাওয়ার বিসহ বিভিন্ন ধরণের স্টল। যেখানে প্রাচীন বাঙালী সংস্কৃতির বিভিন্নরুপ ফুটে উঠে। এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে সন্ধ্যার পর গান, নাচ, কবিতাসহ বিভিন্ন আয়োজনের মাধ্যমে পালিত হবে এই উৎসব।

‘অভয়ারণ্যে’র সাধারণ সম্পাদক হাচিন ইনতেসাফ অর্প বলেন, কুয়াশাকে বরণ করতে প্রাচীন সংস্কৃতিকে তুলে ধরতে আমাদের এই আয়োজন। যেখানে পিঠাপুলি, পুতুলনাচসহ নানা রকমের আয়োজন। সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পরিবেশবাদী ‘অভয়ারণ্য’ সংগঠনের উদ্যোগে ভিন্নধর্মী আয়োজন সব সময় করার চেষ্টা করবো।

উল্লেখ্য, ‘শান্তি ও সংস্কৃতিতে অভয়ারণ্য’ এই স্লোগানকে সামনে রেখে ক্যাম্পাসে পাখি চত্বর উদ্ভোদন, পাখিদের স্থায়ী বাসস্থান এবং খাদ্য নিশ্চিতকরণসহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক ও সেবামূলক কার্যক্রম করে চলেছে নবীন শিক্ষার্থীদের হাতে গড়া সংগঠন ‘অভয়ারণ্য’।

0
You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. হোম
  2. ক্যাম্পাস
  3. ইবিতে ‘কুহেলিকা আগমণ’ উৎসব

ইবিতে 'কুহেলিকা আগমণ' উৎসব

ইবি প্রতিনিধি: শীতের আমেজকে নতুন করে পেতে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) দুই দিনব্যাপী 'কুহেলিকা আগমণ' উৎসব শুরু হয়েছে। মঙ্গলবার (২৪ জানুয়ারি) বিশ্ববিদ্যালয়ের বটতলায় এ উৎসবের আয়োজন করেছে সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পরিবেশবাদী সংগঠন 'অভয়ারণ্য'।

'কুহেলিকা আগমণ' উপলক্ষে ক্যাম্পাসের ডায়না চত্বরের বটতলায় বিভিন্ন সংগঠনের উদ্যোগে ১৮টি স্টল স্থাপন করা হয়। যেখানে প্রবেশ করতেই দেখা মেলে রেলওয়ে পদ্ধতিতে একটি গেট। তার চারদিকে সাজানো পিঠাপুলি, নকশীকাঁথা, ফটোগ্রাফি প্রদর্শন, পুতুলের নাচ, চিঠিবক্স, আতিথিয়েতার সমাহার, বই তরণী, মুখরোচক খাবার, আইন আবৃত্তি, মধুসখা, দ্যা ফ্লাওয়ার বিসহ বিভিন্ন ধরণের স্টল। যেখানে প্রাচীন বাঙালী সংস্কৃতির বিভিন্নরুপ ফুটে উঠে। এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে সন্ধ্যার পর গান, নাচ, কবিতাসহ বিভিন্ন আয়োজনের মাধ্যমে পালিত হবে এই উৎসব।

'অভয়ারণ্যে'র সাধারণ সম্পাদক হাচিন ইনতেসাফ অর্প বলেন, কুয়াশাকে বরণ করতে প্রাচীন সংস্কৃতিকে তুলে ধরতে আমাদের এই আয়োজন। যেখানে পিঠাপুলি, পুতুলনাচসহ নানা রকমের আয়োজন। সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পরিবেশবাদী 'অভয়ারণ্য' সংগঠনের উদ্যোগে ভিন্নধর্মী আয়োজন সব সময় করার চেষ্টা করবো।

উল্লেখ্য, 'শান্তি ও সংস্কৃতিতে অভয়ারণ্য' এই স্লোগানকে সামনে রেখে ক্যাম্পাসে পাখি চত্বর উদ্ভোদন, পাখিদের স্থায়ী বাসস্থান এবং খাদ্য নিশ্চিতকরণসহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক ও সেবামূলক কার্যক্রম করে চলেছে নবীন শিক্ষার্থীদের হাতে গড়া সংগঠন 'অভয়ারণ্য'।

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন