৫ হাজার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ডিজিটাল ল্যাব হবে

প্রযুক্তিতে শিক্ষার্থীদের দক্ষতা অর্জনের সুযোগ করে দিতে সরকার সারাদেশে আরও ৫ হাজার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব স্থাপন করবে। মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) ডিজিটাল ল্যাব স্থাপনের (দ্বিতীয় পরযায়ে) জন্য একটি প্রকল্প জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) ভার্চুয়াল সভায় অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

সভায় পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান জানান, শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব স্থাপনের কাজ চলতি বছর থেকেই শুরু করা হবে। ২০২৩ সালের ফেব্রুয়ারি মাসের মধ্যে প্রকল্প বাস্তবায়নের কাজ শেষ হবে। প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদফতর। এই প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে ৯৩৮ কোটি ৭৩ লাখ ৪৪ হাজার টাকা।

জানা গেছে, প্রকল্পের ব্যয়ের মোট অর্থের মধ্যে প্রাতিষ্ঠাকি পরামর্শকের পেছনে ব্যয় ধরা হয়েছে ১৪ কোটি ৪৭ লাখ ৮০ হাজার টাকা। কম্পিউটার ও যন্ত্রাংশ কেনাকাটা বাবদ ৬৪৭ কোটি ৭৭ লাখ টাকা, ল্যাব ও পিআইইউ স্থাপন বাবদ ১৩৫ কোটি ১৪ লাখ টাকা, কম্পিউটার সফটওয়্যার কেনা বাবদ ২৪ কোটি ৩৫ লাখ টাকা এবং শিক্ষা ও শিক্ষণ উপকরণ বাবদ ১৬ কোটি ৪১ লাখ টাকা বরাদ্দ রাখার প্রস্তাব করা হয়েছে।

শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব স্থাপন (২য় পর্যায়) প্রকল্পের প্রধান কার্যক্রম হলো- ৫ হাজার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব স্থাপন (ইন্টারনেট সংযোগসহ), ৩৬ হাজার ২০ জন শিক্ষককে স্থানীয় প্রশিক্ষণ প্রদান, প্রকল্প কার্যালয়ের জন্য ৩১টি ও ৫ হাজার ল্যাবের জন্য ১ লাখ ১৫ হাজার (প্রতি ল্যাবে ২৩টি করে) কম্পিউটার যন্ত্রাংশ সংগ্রহ, প্রকল্প কার্যালয়ের জন্য ৩১টি ও ৫ হাজার ল্যাবের জন্য ২ লাখ ৫৫ হাজার (প্রতি ল্যাবে ৫১টি করে) আসবাবপত্র সংগ্রহ, ৩০০টি ‘স্কুল অব ফিউচার’ প্রস্তুত করা, পরামর্শক ফার্ম নিয়োগ (২৯ জনমাস), আইসিটি বিষয়ে ৬০টি, কমিউনিকেটিভ ইংলিশ বিষয়ে ৮০টি ডিজিটাল কনটেন্ট তৈরি করা, ভাষাগুরু সফটওয়্যার ভার্সন-২ তৈরি, সেমিনার/কর্মশালা আয়োজন করা ৬৪টি এবং বিভিন্ন পর্যায়ের জনবল নিয়োগ করা।