স্থগিত হলো দ.আফ্রিকার তিন দলের ‘অদ্ভুত’ ম্যাচ

করোনার কারণে স্থগিত থাকা ক্রিকেট আবারও ফিরতে শুরু করেছে। আর ক্রিকেট ফেরানো দেশের তালিকায় শুরুর দিকেই আছে দক্ষিণ আফ্রিকা, এমনই আভাস এসেছিল। আগামী ২৭ জুন স্বল্প পরিসরে ক্রিকেট ফিরতে চলেছে দেশটিতে। আর এই ফেরার মধ্যে চমক ছিল। এই চমক হচ্ছে, তিন দলীয় ফরম্যাট। অর্থাৎ একই ম্যাচে তিন দল প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে। কিন্ত দক্ষিণ আফ্রিকা সরকারের আপত্তিতে আপাতত এমন পরিকল্পনা আপতত স্থগিত রাখার ঘোষণা দিয়েছে সিএসএ।

সেঞ্চুরিয়নের সুপারস্পোর্ট পার্কে ‘সলিডারিটি কাপ’ নামের থ্রিটিস ম্যাচের এই পরীক্ষামূলক তিন দলীয় ফরম্যাটটি হওয়ার পরিকল্পনা ছিল, যেটি আদতে চ্যারিটি ম্যাচ। এই ম্যাচ থেকে প্রাপ্ত অর্থ করোনায় ক্ষতিগ্রস্তদের সাহায্যার্থে ব্যয় করা হবে। দর্শকশূন্য মাঠে খেলা হবে এই ম্যাচ। এধরনের ম্যাচ আয়োজনের জন্য যে নিরাপত্তা ব্যবস্থার প্রয়োজন তার একটা পরীক্ষাও হয়ে যাবে বলে আশা করছে সিএসএ।

তবে করোনা বেশ বিপাকে পড়েছে দক্ষিণ আফ্রিকাকে। তবে এমন পরিস্থিতিতে ক্রিকেট ম্যাচ আয়োজনের প্রস্তাব অনুমোদন করেনি দেশটির সরকার। কিন্তু সিএসএ জানিয়েছে তারা ম্যাচ আয়োজনের নতুন তারিখ ঠিক করতে কাজ করছেন। কবে হতে পারে অদ্ভুত এই ম্যাচ তা পরে জানাবেন তারা।

অদ্ভুত এই ফরম্যাট কেমন হবে সে ধারণাও দিয়েছিল ক্রিকেট দক্ষিণ আফ্রিকা (সিএসএ)। ৩৬ ওভারের ম্যাচকে দুই ভাগে ভাগ করে খেলা হবে, যেখানে তিন দলে খেলোয়াড় থাকবে ৮ জন করে। প্রতি দল একে অন্যের বিপক্ষে ১২ ওভার করে ব্যাট করবে। একজন বোলার সর্বোচ্চ ৩ ওভার করে বল করতে পারবে।

ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে, আগের ইনিংসে যে দলের রান বেশি ছিল তারা আগে ব্যাট করবে। দলের শেষ ব্যাটসম্যান রয়ে যাবেন। অর্থাৎ, যদি প্রথম ইনিংসে কোনো দলের ৭ উইকেট পড়ে, তাহলে শেষ ব্যাটসম্যান দ্বিতীয় ইনিংসে সেখান থেকেই শুরু করতে পারবে।

রানের সংখ্যার ভিত্তিতে দলগুলোকে স্বর্ণ, রৌপ্য এবং ব্রোঞ্জ পদক প্রদান করা হবে। ম্যাচটির তিন অধিনায়কের নাম কাগিসো রাবাদা, কুইন্টন ডি কক এবং এবি ডি ভিলিয়ার্স।