সেমিস্টার ফি মওকুফে শিক্ষার্থীদের যে পরামর্শ দিলেন জবি ভিসি

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে (জবি) চলমান সেমিস্টার ফি মওকুফের দাবি জানিয়ে স্মারকলিপি দিয়েছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা। আজ সোমবার (২ নভেম্বর) দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমানের বরাবর এ স্মারকলিপি দেয়া হয়েছে।

এদিকে, উপাচার্য বলেছেন, এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন কিছুই করতে পারবে না। এসময় তিনি শিক্ষার্থীদের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে আবেদন করার পরামর্শ দেন তিনি।

শিক্ষার্থীদের ওই স্মারকলিপিতে বলা হয়েছে, করোনা সংকট মোকাবিলায় জবির অধিকাংশ শিক্ষার্থী অর্থনৈতিকভাবে বিপর্যস্ত অবস্থায় আছে। গত আট মাস ধরে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকলেও শিক্ষার্থীদের মেসভাড়াসহ আনুষাঙ্গিক ব্যয় থেমে নেই। এর মধ্যে শিক্ষার্থীরা তাদের সংকট মোকাবিলায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রসাশন নিকট একাধিক সাহায্য চেয়েও কোন প্রকার সাড়া পায়নি। আমরা নিজেরা এসব সমস্যার ভুক্তভোগী।

স্মারকলিপিতে আরও বলা হয়, আমরা লক্ষ্য করেছি, সামসময়িক সময়ে বিভিন্ন বিভাগ থেকে নতুন সেমিস্টারে ভর্তির নোটিশ দেওয়া হয়েছে। আমাদের অনেক শিক্ষার্থী এই সময়ে নিজেদের ভরণ-পোষণ মিটিয়ে ভর্তি ফি দিতে অপরাগ। এই সংকট মুহূর্তে শিক্ষার্থীদের পক্ষে এই বাড়তি ব্যয় বহন করাও প্রায় অসম্ভব।

‘সম্প্রতি একটি গবেষণায় উঠে এসেছে, সেখানে দেখা যায় ২৮% শিক্ষার্থী আর্থিক সংকটে লেখাপড়া ছেড়ে দিয়েছে। এতএব সাধারণ শিক্ষার্থীদের কথা বিবেচনা রেখে বিশ্ববিদ্যালয় প্রসাশন কাছে শিক্ষার্থীদের থেকে চলমান সেমিস্টারের ভর্তি ফি মওকুফের দাবি জানাচ্ছি’- বলা হয় স্মারকলিপিতে।

এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের ১২তম ব্যাচের শিক্ষার্থী মনিরুল ইসলাম মনির বলেন, চলমাম করোনা পরিস্থিতিতে আট মাস ধরে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকলেও শিক্ষার্থীদের মেস ভাড়াসহ আনুসাঙ্গিক ব্যয় থেমে নেই। অন্যদিকে শিক্ষার্থীরা হারিয়েছে টিউশনসহ অন্যান্য উপার্জনের পথ। এমতাবস্থায় নিজেদের ভরণপোষণ মিটিয়ে সেমিস্টার ফি প্রদান করা অধিকাংশ শিক্ষার্থীদের জন্য সম্ভব হবে না।

এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সেমিস্টার ফি মওকুফ করতে পারবে না। যদি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয় মওকুফ করে তাহলে আমরাও করব। এসময় তিনি সেমিস্টার ফি মওকুফ করতে চাইলে শিক্ষার্থীদের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে আবেদন করা পরামর্শ দেন তিনি।