The Rising Campus
News Media
শুক্রবার, ২৭শে জানুয়ারি, ২০২৩

সেকেন্ড টাইমারদের ওপর পুলিশের লাঠিচার্জের অভিযোগ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সহ সকল বিশ্ববিদ্যালয়ে দ্বিতীয়বার ভর্তির সুযোগ প্রদানের দাবি জানিয়ে আসছিলেন উচ্চ শিক্ষায় ভর্তি প্রত্যাশী শিক্ষর্থীরা। সেকেন্ড টাইম ভর্তি পরীক্ষার সুযোগের দাবিতে আজ শিক্ষার্থীরা প্রেসক্লাবের সামনে জড়ো হয়। প্রেসক্লাবের সামনে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর পুলিশের লাঠিচার্জ করার অভিযোগ উঠেছে। আহত শিক্ষার্থীরা বর্তমানে ঢাকা মেডিকেল কলেজে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এমনটিই জানিয়ে এই আন্দোলনের আহ্বায়ক আলভী মাহমুদ বলেন, আমরা শান্তিপূর্ণভাবে প্রেসক্লাবের সামনে থেকে শিক্ষা মন্ত্রণালয় অভিমুখে যাত্রা করেছিলাম। এসময় পুলিশ এসে আমাদের বাঁধা দেয়। তারা আমাদের প্রায় ২-৩ ঘন্টা আটকে রাখে।

তিনি আরও বলেন, পুলিশ শুধু আন্দোলনকারীদেরই নয় সামনে যাদেরকে পেয়েছে তাদেরকেই মরধর করেছে। এমনকি আমিও মারাত্মক আহত হয়েছি।

আন্দোরন অব্যহত থাকবে জানিয়ে এই শিক্ষার্থী বলেন, পুলিশের হামলা বা যা কিছুই ঘটুক আমরা আমাদের দাবিতে অনড় থাকবো এবং আমরা আরও জোরালোভাবে আমাদের আন্দোলন চালিয়ে যাবো।

লাঠিচার্জের বিষয়ে শাহবাগ থানা পুলিশের ইন্সপেক্টর শেখ আবুল বাসার বলেন, তাদের যখন সরিয়ে দেওয়া হবে, তখন কিছুটা ফোর্স তো দিতে হয়। সেক্ষেত্রে কিছু ধাক্কাধাক্কি হয়েছে। তবে এটা তাদের প্রতি চরম নিষ্ঠুরতার কোনো পর্যায় নয়।

0
You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. হোম
  2. ক্যাম্পাস
  3. সেকেন্ড টাইমারদের ওপর পুলিশের লাঠিচার্জের অভিযোগ

সেকেন্ড টাইমারদের ওপর পুলিশের লাঠিচার্জের অভিযোগ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সহ সকল বিশ্ববিদ্যালয়ে দ্বিতীয়বার ভর্তির সুযোগ প্রদানের দাবি জানিয়ে আসছিলেন উচ্চ শিক্ষায় ভর্তি প্রত্যাশী শিক্ষর্থীরা। সেকেন্ড টাইম ভর্তি পরীক্ষার সুযোগের দাবিতে আজ শিক্ষার্থীরা প্রেসক্লাবের সামনে জড়ো হয়। প্রেসক্লাবের সামনে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর পুলিশের লাঠিচার্জ করার অভিযোগ উঠেছে। আহত শিক্ষার্থীরা বর্তমানে ঢাকা মেডিকেল কলেজে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এমনটিই জানিয়ে এই আন্দোলনের আহ্বায়ক আলভী মাহমুদ বলেন, আমরা শান্তিপূর্ণভাবে প্রেসক্লাবের সামনে থেকে শিক্ষা মন্ত্রণালয় অভিমুখে যাত্রা করেছিলাম। এসময় পুলিশ এসে আমাদের বাঁধা দেয়। তারা আমাদের প্রায় ২-৩ ঘন্টা আটকে রাখে।

তিনি আরও বলেন, পুলিশ শুধু আন্দোলনকারীদেরই নয় সামনে যাদেরকে পেয়েছে তাদেরকেই মরধর করেছে। এমনকি আমিও মারাত্মক আহত হয়েছি।

আন্দোরন অব্যহত থাকবে জানিয়ে এই শিক্ষার্থী বলেন, পুলিশের হামলা বা যা কিছুই ঘটুক আমরা আমাদের দাবিতে অনড় থাকবো এবং আমরা আরও জোরালোভাবে আমাদের আন্দোলন চালিয়ে যাবো।

লাঠিচার্জের বিষয়ে শাহবাগ থানা পুলিশের ইন্সপেক্টর শেখ আবুল বাসার বলেন, তাদের যখন সরিয়ে দেওয়া হবে, তখন কিছুটা ফোর্স তো দিতে হয়। সেক্ষেত্রে কিছু ধাক্কাধাক্কি হয়েছে। তবে এটা তাদের প্রতি চরম নিষ্ঠুরতার কোনো পর্যায় নয়।

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন