The Rising Campus
News Media
শুক্রবার, ২৭শে জানুয়ারি, ২০২৩

সাপ আতঙ্কে আছেন বশেমুরবিপ্রবির শিক্ষার্থীরা!

গোপালগঞ্জে অবস্থিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (বশেমুরবিপ্রবি) ক্যাম্পাসে বিষধর সাপের উপদ্রব বেড়ে গিয়েছে। এ নিয়ে শিক্ষার্থীদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

জানা গেছে, গত কয়েক দিন ধরে ক্যাম্পাসের রাস্তাঘাট, খেলার মাঠ, লেকপাড় এবং হল সংলগ্ন বিভিন্ন জায়গায় কয়েকটি বিষধর সাপের দেখা মিলেছে। যার প্রত্যক্ষদর্শী একাধিক ছাত্র-ছাত্রী। শীতকালে এমন বিষধর সাপের উপদ্রব দেখে আতঙ্কে রয়েছেন আবাসিক হলের শিক্ষার্থীরাও।

সর্বশেষ বুধবার (৭ ডিসেম্বর) দুপুরে ক্যাম্পাসের বাধন চত্বর এলাকায় রাস্তার ওপর একটি বিষধর খৈয়া গোখরা সাপের দেখা মেলে। পরে উপস্থিত শিক্ষার্থীরা সাপটিকে লাঠি দিয়ে পিটিয়ে মেরে ফেলে।

শিক্ষার্থী মেজবাউর রহমান বলেন, ক্যাম্পাসের বিভিন্ন স্থানে বিষধর সাপ দেখা যাচ্ছে। আজ একটি সাপ মারা হয়েছে। এ নিয়ে আমাদের শিক্ষার্থীদের মধ্যে চরম আতঙ্ক বিরাজ করছে। আমরা এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করবো।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিসম্পদ বিজ্ঞান ও ভেটেরিনারি মেডিসিন বিভাগের শিক্ষক মো. শরিফুজ্জামান বলেন, গত বছরের মতো এ বছরও ক্যাম্পাসে বিভিন্ন ধরনের সাপ দেখা যাচ্ছে। আজ যে সাপটি মারা হয়েছে সেটি খৈয়া গোখরা প্রজাতির সাপ।

তিনি আরো বলেন গোখরা প্রজাতির সাপের বিষ মূলত একটি শক্তিশালী সিনাপটিক নিউরোটক্সিন এবং কার্ডিওটক্সিন সমৃদ্ধ বিষ, যা দংশনের ৪০-৫৫ মিনিট বা সর্বোচ্চ এক ঘণ্টার মধ্যে সাপে কাটা ব্যক্তির মৃত্যু হয়ে থাকে। আর প্রতি বছর ক্যাম্পাসে সাপের উপদ্রব বাড়ার কারণ হচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয়টিতে স্বল্পসংখ্যক মালি কাজ করার কারণে সব জায়গার ঝোপঝাড় পরিষ্কার করা হয় না। তাই এত সাপের উপদ্রব দেখা যায়।

বিশ্ববিদ্যালয়টির রেজিস্ট্রার মো. দলিলুর রহমান বলেন, সাপ উপদ্রবের বিষয়টি দুপুরে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে জেনেছি। এ বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

0
You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. হোম
  2. ক্যাম্পাস
  3. সাপ আতঙ্কে আছেন বশেমুরবিপ্রবির শিক্ষার্থীরা!

সাপ আতঙ্কে আছেন বশেমুরবিপ্রবির শিক্ষার্থীরা!

গোপালগঞ্জে অবস্থিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (বশেমুরবিপ্রবি) ক্যাম্পাসে বিষধর সাপের উপদ্রব বেড়ে গিয়েছে। এ নিয়ে শিক্ষার্থীদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

জানা গেছে, গত কয়েক দিন ধরে ক্যাম্পাসের রাস্তাঘাট, খেলার মাঠ, লেকপাড় এবং হল সংলগ্ন বিভিন্ন জায়গায় কয়েকটি বিষধর সাপের দেখা মিলেছে। যার প্রত্যক্ষদর্শী একাধিক ছাত্র-ছাত্রী। শীতকালে এমন বিষধর সাপের উপদ্রব দেখে আতঙ্কে রয়েছেন আবাসিক হলের শিক্ষার্থীরাও।

সর্বশেষ বুধবার (৭ ডিসেম্বর) দুপুরে ক্যাম্পাসের বাধন চত্বর এলাকায় রাস্তার ওপর একটি বিষধর খৈয়া গোখরা সাপের দেখা মেলে। পরে উপস্থিত শিক্ষার্থীরা সাপটিকে লাঠি দিয়ে পিটিয়ে মেরে ফেলে।

শিক্ষার্থী মেজবাউর রহমান বলেন, ক্যাম্পাসের বিভিন্ন স্থানে বিষধর সাপ দেখা যাচ্ছে। আজ একটি সাপ মারা হয়েছে। এ নিয়ে আমাদের শিক্ষার্থীদের মধ্যে চরম আতঙ্ক বিরাজ করছে। আমরা এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করবো।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিসম্পদ বিজ্ঞান ও ভেটেরিনারি মেডিসিন বিভাগের শিক্ষক মো. শরিফুজ্জামান বলেন, গত বছরের মতো এ বছরও ক্যাম্পাসে বিভিন্ন ধরনের সাপ দেখা যাচ্ছে। আজ যে সাপটি মারা হয়েছে সেটি খৈয়া গোখরা প্রজাতির সাপ।

তিনি আরো বলেন গোখরা প্রজাতির সাপের বিষ মূলত একটি শক্তিশালী সিনাপটিক নিউরোটক্সিন এবং কার্ডিওটক্সিন সমৃদ্ধ বিষ, যা দংশনের ৪০-৫৫ মিনিট বা সর্বোচ্চ এক ঘণ্টার মধ্যে সাপে কাটা ব্যক্তির মৃত্যু হয়ে থাকে। আর প্রতি বছর ক্যাম্পাসে সাপের উপদ্রব বাড়ার কারণ হচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয়টিতে স্বল্পসংখ্যক মালি কাজ করার কারণে সব জায়গার ঝোপঝাড় পরিষ্কার করা হয় না। তাই এত সাপের উপদ্রব দেখা যায়।

বিশ্ববিদ্যালয়টির রেজিস্ট্রার মো. দলিলুর রহমান বলেন, সাপ উপদ্রবের বিষয়টি দুপুরে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে জেনেছি। এ বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন