সাত কলেজের বাণিজ্যের পরীক্ষা আজ, আসনপ্রতি ভর্তিচ্ছু ৫ জন

২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত সাত সরকারি কলেজের বাণিজ্য ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা আজ ২৬ আগস্ট (শুক্রবার) বেলা ১১টায় অনুষ্ঠিত হবে। পরীক্ষা আয়োজনে ইতিমধ্যে সব ধরনের প্রস্তুতি শেষ হয়েছে বলে জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ভর্তি কমিটি। এই ইউনিটে পাঁচ হাজার ৩১০টি আসনের বিপরীতে আবেদন করেছেন ২৬ হাজার ৪৪০ জন ভর্তিচ্ছু।

বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ভর্তি কমিটি সূত্র জানিয়েছে, আগামীকাল শুক্রাবার সাত কলেজের বাণিজ্য ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। ভর্তি পরীক্ষার ৪৮ ঘণ্টা পূর্ব থেকে বিস্তারিত আসনবিন্যাস ভর্তি পরীক্ষা সংক্রান্ত ওয়েবসাইটে দেখা যাচ্ছে। ভর্তিচ্ছুরা আইডি লগইন করে আসনবিন্যাস দেখতে পারছেন। এ ছাড়া আবেদনকারীর প্রবেশপত্রের নির্দেশনা অনুযায়ী এসএমএসের মাধ্যমেও নিজ নিজ আসনবিন্যাস জানিয়ে দেয়া হবে।

ভর্তি বিজ্ঞপ্তির তথ্যানুযায়ী, এই ইউনিটে মোট ১০০ নম্বরের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এতে মোট ১০০টি প্রশ্ন দেয়া থাকবে। সময় নির্ধারিত থাকবে ১ ঘণ্টা।

ভর্তি পরীক্ষার ১০০ নম্বরবন্টন হলো- বাংলা ২০, ইংরেজি ২০, হিসাববিজ্ঞান ২০, ব্যবসায় নীতি ও প্রয়োগ ২০ এবং মার্কেটিং/ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং থেকে যেকোনো একটির উত্তর করতে হবে। এটাতেও নম্বর থাকবে ২০। উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ে বাংলা ও ইংরেজিসহ অনুসৃত পাঠ্যক্রমের ভিত্তিতে ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র প্রণয়ন করা হয়েছে।

ভর্তি পরীক্ষা প্রাপ্ত নম্বর এবং মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার প্রাপ্ত নম্বর/গ্রেডের ভিত্তিতে মেধাতালিকা নির্ধারণ করা হবে। মোট ১২০ নম্বরের ভিত্তিতে শিক্ষার্থীদের মেধাতালিকা তৈরি করা হবে।

এজন্য শিক্ষার্থীদের মাধ্যমিক পরীক্ষায় ৪র্থ বিষয়সহ প্রাপ্ত নম্বরের জিপিএর ১০ নম্বর এবং উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় ৪র্থ বিষয়সহ প্রাপ্ত জিপিএর ১০ নম্বরে রূপান্তর করে এই দুইয়ের যোগফল ১০০ নম্বরের ভর্তি পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বরের সঙ্গে যোগ করে মোট ১২০ নম্বরের উপর শিক্ষার্থীদের মেধাতালিকা তৈরি করা হবে।

আসন সংখ্যা

ঢাকা কলেজে ৬০০, কবি নজরুল সরকারি কলেজে ৭০০, ইডেন মহিলা কলেজে ১,০৫৫, বেগম বদরুন্নেসা সরকারি মহিলা কলেজে ১৩০, সরকারি শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজে ৪০০, সরকারি বাঙলা কলেজে ৯৬০ এবং সরকারি তিতুমীর কলেজে ১,৪৬৫টি আসন রয়েছে। সবগুলো কলেজে মিলিয়ে অনুষদটিতে আসন সংখ্যা ৫ হাজার ৩১০টি। এবারের ইউনিটে মোট আবেদন করেছেন ২৬ হাজার ৪৪০ জন ভর্তিচ্ছু। সে হিসেবে আসন প্রতি প্রায় ৪.৯৭ জন ভর্তিচ্ছু লড়বেন।