সহিংসতা দমনে প্রয়োজনে বেশি ক্ষমতাসম্পন্ন অস্ত্র চালাতে হবে: আইজিপি

দেশে চলমান সহিংসতার ঘটনা কঠোরভাবে দমন করতে জ্যেষ্ঠ পুলিশ কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিয়েছেন পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) বেনজীর আহমেদ। বুধবার (৭ এপ্রিল) এক ভার্চ্যুয়াল বৈঠকে অংশ নিয়ে পুলিশের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাদের এ নির্দেশ দেন আইজিপি। বেলা সাড়ে ১১টা থেকে শুরু হয়ে সভা চলে দেড়টা পর্যন্ত।

সভায় দেশের সব মহানগর পুলিশ কমিশনার, রেঞ্জ উপমহাপরিদর্শক (ডিআইজি), মহানগর পুলিশের উপকমিশনার, জেলার পুলিশ সুপার ও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা (ওসি) ছাড়াও পুলিশ সদর দপ্তরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও অংশ নেন। দেশের শীর্ষস্থানীয় একটি গণমাধ্যমের খবরে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

ভার্চ্যুয়াল বৈঠকে পুলিশ মহাপরিদর্শক বলেন, রাবার বুলেটে সহিংসতা দমানো না গেলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে আরও বেশি ক্ষমতাসম্পন্ন অস্ত্র চালাতে হবে। একই সঙ্গে পুলিশকে মনোবল শক্ত রাখারও তাগিদ দেন তিনি।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সফরের বিরোধিতাকে কেন্দ্র করে দেশে হেফাজতে ইসলামের বিক্ষোভ ও সহিংসতায় গত ২৬ থেকে ২৮ মার্চ পর্যন্ত তিন দিনে ১৭ জন নিহত হয়েছেন। এদিকে গত সোমবারও ফরিদপুরের সালথায় উপজেলা কমপ্লেক্স ও থানায় হামলার ঘটনা ঘটে। এর পরিপ্রেক্ষিতে বুধবার জ্যেষ্ঠ পুলিশ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে অংশ নিয়ে পুলিশকে এই নির্দেশ দিলেন আইজিপি।

বৈঠকে আইজিপি সহিংসতা দমনে কঠোর অবস্থান নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন বৈঠকে অংশ নেওয়া কয়েকজন পুলিশ কর্মকর্তা। এসময় আগামী দিনগুলোতে কোনো পরিস্থিতি তৈরি হলে তা আরও কঠোরভাবে মোকাবিলার ব্যবস্থা নেবেন বলেও আইজিপিকে আশ্বস্ত করেছেন পুলিশের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তারা।

এ বিষয়ে পুলিশ সদর দপ্তরের উপমহাপরিদর্শক (ডিআইজি গণমাধ্যম ও পরিকল্পনা) হায়দার আলী খান বলেন, আইজিপি আইনশৃঙ্খলা রক্ষা নিয়ে সারা দেশের দায়িত্বশীল পুলিশ কর্মকর্তাদের নির্দেশনা দিয়েছেন।

সহিংসতায় কারা উসকানি দিয়েছে, কারা অংশ নিয়েছে, তাদের খুঁজে বের করতে বৈঠকে আইজিপি নির্দেশ দিয়েছেন বলেও জানিয়েছেন বৈঠকে অংশ নেওয়া একাধিক পুলিশ কর্মকর্তা। জানা গেছে, চট্টগ্রাম, খুলনা ও রংপুর অঞ্চলে অথবা অন্য জেলায় আবার হামলা হতে পারে বলে উল্লেখ করে পুলিশকে তৎপর থাকার নির্দেশ দেন আইজিপি।

সাম্প্রতিক সহিংস ঘটনার বিষয়ে পুলিশপ্রধান আরও বলেন, কোথাও পুলিশের ত্রুটি বা ঘাটতি ছিল কি না, এক জায়গায় পুলিশ সফল, আরেক জায়গায় কেন ব্যর্থ হয়েছে, তা তদন্ত করে বের করতে হবে। সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।