শিবির করলেই তাকে মারতে হবে: লেখক ভট্টাচার্য

বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য বলেছেন, শিবির করলেই তাকে মারতে হবে। বাংলাদেশে কোন ধর্মীয় উগ্রবাদী গোষ্ঠী রাজনীতি করার ক্ষমতা রাখে না। কোন সাম্প্রদায়িক শক্তি বাংলাদেশের রাজনৈতিক পরিবেশকে নষ্ট করার ক্ষমতা রাখে না। বাংলাদেশ ছাত্রলীগই তাদের দাঁতভাঙ্গা জবাব দিতে যথেষ্ট।

আজ বুধবার (১৮ আগস্ট) দুপুরে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সিরিজ বোমা হামলা দিবস উপলক্ষে কালো পতাকা মিছিল ও এক মিনিট নীরবতা পালন অনুষ্ঠানে শেষে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশে এমন মন্তব্য করেন তিনি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের চেয়ারম্যান আসিফ নজরুলের উদ্দেশে লেখক ভট্টাচার্য বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের কাছে আমরা দেশপ্রেম, প্রগতিশীলতার চর্চা শিখেছি। এই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরাই অগণতান্ত্রিক সরকারকে হঠিয়ে গণতান্ত্রিক সরকার প্রতিষ্ঠার জন্য ছাত্রলীগের সাথে একাত্মতা ঘোষণা করে রাজপথে থাকেন। কিন্তু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক আসিফ নজরুল শিক্ষক নামের কলঙ্ক। তিনি বিভিন্ন সময় জামায়াত শিবির এবং জঙ্গিবাহিনী নিয়ে উস্কানিমূলক কথাবার্তা বলেন। তালেবানি আদর্শপুষ্ট বিএনপি জামায়াতের দালালি করার জন্য এই শিক্ষক ফেসবুকে দুঃসাহস দেখিয়েছেন। এর আগেও সে তার এক বক্তৃতায় বলেছেন, কেউ শিবির করলে কী হয়েছে। শিবির হলেই তাকে মারতে হবে? আমরা বলতে চাই, কোন ধর্মীয় উগ্রবাদী গোষ্ঠী বাংলাদেশে রাজনীতি করার অধিকার রাখে না। শিবির করলেই তাকে মারতে হবে। গণধোলাই দিয়ে আসিফ নজরুল গংদের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাটি থেকে বিতাড়িত করা হবে।

লেখক ভট্টাচার্য আরও বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের প্রতি আমাদের আহবান যেকোন মূল্যে এই আসিফ নজরুলকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিতাড়িত করার ব্যবস্থা করুন। আপনারা যদি কোন ব্যবস্থা গ্রহণ না করেন তাহলে আমরাই দায়িত্ব হাতে তুলে নিবো। আমরা জানি কিভাবে এদের শায়েস্তা করতে হয়। এর থেকে অনেক বড় রাঘব বোয়ালরা লেজ গুটিয়ে পালিয়েছে।সুতরাং দুঃসাহস দেখানোর কোন অবকাশ নেই। আমরাই তাদের রুখে দাঁড়াবো।