শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের ধৈর্য ধরার আহবান ওবায়দুল কাদেরের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সামগ্রিক পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে পরিবেশ অনুকূলে এলেই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হবে। প্রধানমন্ত্রী নিজেই সার্বিক পরিস্থিতিতে নজর রাখছেন, তিনি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়টি নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করছেন। পরিস্থিতি অনুকূলে এলেই তা খুলে দেওয়া হবে। তাই শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের ধৈর্য ধরার আহবান জানাই।

আজ শনিবার (৫ সেপ্টেম্বর) ময়মনসিংহের ত্রিশালে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় আয়োজিত ‘বঙ্গবন্ধু: বাঙালির চেতনার বাতিঘর’ শীর্ষক আলোচনা সভায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি। জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ধর্ম মন্ত্রণালয়ের স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবং ময়মনসিংহ-৭ (ত্রিশাল) আসনের সংসদ সদস্য হাফেজ মাওলানা রুহুল আমিন মাদানী। এছাড়াও জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন-অর-রশিদ, বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. সৈয়দ সামসুদ্দিন আহমেদ, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ এইচ এম মোস্তাফিজুর রহমান, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার অধ্যাপক মোঃ জালাল উদ্দিন প্রমুখ যুক্ত ছিলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আজকের এই স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশের ইতিহাস অত্যন্ত করুণ ইতিহাস। হাজার বছর ধরে বাঙালি বীরগণ এই দেশ স্বাধীন করতে বহু প্রচেষ্টা করেছিলেন কিন্তু স্বাধীনতা আসেনি। হাজার বছর ধরে শোষিত এই দেশের টুঙ্গিপাড়া থেকে বাঙালির মুক্তির দূত হিসেবে উঠে এলেন শেখ মুজিবুর রহমান। সুতরাং তিনি নিঃসন্দেহে সমগ্র বাঙালি ইতিহাস, বাঙালি জাতিসত্তার একজন মুক্তির দূত।

তিনি বলেন, এই বীরকে একসময় এ দেশের ইতিহাস থেকে মুছে ফেলতে চেয়েছিল একটি মহল। এখন তারাই এ দেশের ইতিহাস থেকে মুছে যাচ্ছে। এদেশে যেমন বীর সেনার জন্ম হয়েছে ঠিক তেমনই বিশ্বাসঘাতকেরও জন্ম হয়েছে।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন-অর-রশিদ বলেন, বঙ্গবন্ধু শুধু বাঙালির চেতনার বাতিঘর নন। তিনি বাঙালির অস্তিত্বের ঠিকানা, তিনি ইতিহাসের মহানায়ক।” তিন ঘন্টাব্যাপী চলমান এই অনুষ্ঠানে আলোচকবৃন্দ বিভিন্ন আন্দোলন ও সংগ্রামে বঙ্গবন্ধুর গৌরবময় ভূমিকা সম্পর্কে আলোকপাত করেন।

সভার সভাপতিত্ব করেন জাককানইবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি জনাব মোঃ নজরুল ইসলাম এবং স্বাগত বক্তা ছিলেন জাককানইবি শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক শাহ্জাদা আহ্সান হাবীব। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন জাককানইবির নাট্যকলা ও পরিবেশনা বিদ্যা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মাজহারুল ইসলাম তোকদার।