শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বিনা মূল্যে ইন্টারনেট দেয়ার দাবি বিশিষ্ট নাগরিকদের

দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বিনা মূল্যে উচ্চগতির ইন্টারনেট সেবা নিশ্চিত করা এবং ইন্টারনেট বিলের ওপর আরোপিত অতিরিক্ত ভ্যাট মওকুফ করার জন্য সরকারের কাছে দাবি জানিয়েছেন দেশের ৪৪ জন বিশিষ্ট নাগরিক। শনিবার (২৫ জুলাই) গণমাধ্যমে পাঠানো এক যৌথ বিবৃতিতে তারা একই সঙ্গে মোবাইল ফোনের কল রেটের ওপর মূল্য ছাড় দিয়ে প্রযুক্তিসেবা সমাজের পিছিয়ে পড়া মানুষের কাছে পৌঁছে দেয়ার জন্যও সরকারের প্রতি আহ্বান জানান। তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা ও গণসাক্ষরতা অভিযানের নির্বাহী পরিচালক রাশেদা কে চৌধুরী বিশিষ্ট নাগরিকদের পক্ষে বিবৃতিটি পাঠান।

বিবৃতিতে বলা হয়, আমরা উদ্বেগের সঙ্গে লক্ষ্য করছি যে, ২০২০-২১ অর্থবছরে ইন্টারনেটের ওপর কর কমানোর পরিবর্তে বাড়ানো হয়েছে। প্রায় দুই ধাপে (ব্যান্ডউইথ পাইকারি কেনা এবং খুচরা বিক্রির জন্য) ১৫ শতাংশ হারে ভ্যাট আরোপ করার ফলে ব্যবহারকারী শিক্ষার্থীদের প্রায় ৩২ দশমিক ২৫ শতাংশ অতিরিক্ত অর্থ ব্যয় করতে হবে। এটা অবশ্যই ডিজিটাল বাংলাদেশের লক্ষ্য অর্জনের পরিপন্থি। মুজিববর্ষে এমনটি হওয়া কখনই কাম্য নয়।

বিবৃতিতে সই করেছেন ড. কাজী খলীকুজ্জমান আহমদ, অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ ফরাস উদ্দীন, অ্যাডভোকেট সুলতানা কামাল, ড. মুহাম্মদ জাফর ইকবাল, সেলিনা হোসেন, ড. হোসেন জিল্লুর রহমান, রামেন্দু মজুমদার, রোকেয়া আফজাল রহমান. ড. মোহাম্মদ কায়কোবাদ, সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম, অধ্যাপক মাহফুজা খানম, অধ্যাপক এম এম আকাশ, অধ্যাপক মেজবাহ কামাল, শাহীন আনাম, ব্রিগেডিয়ার (অব.) এম সাখাওয়াত হোসেন, ইনাম আল হক প্রমুখ।