শিক্ষক নিয়োগ: এখনো ভেরিফিকেশন প্রক্রিয়া শুরু করেনি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়

বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ৩৮ হাজার ২৮৬ জন শিক্ষকের পুলিশ ভেরিফিকেশনের তালিকা পেয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগ। তবে যে ফরমে পুলিশ ভেরিফিকেশন হবে সেটি পাঠায়নি শিক্ষা মন্ত্রণালয়। ফলে শিক্ষকদের পুলিশ ভেরিফিকেশনের প্রক্রিয়া শুরু করতে পারেনি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো ৩৮ হাজারের বেশি শিক্ষকের তালিকা গত বৃহস্পতিবার (১২ আগস্ট) পেয়েছে সুরক্ষা সেবা বিভাগ। এরপর সরকারি ছুটির বন্ধ থাকায় এখনো তালিকা নিয়ে কাজ শুরু করতে পারেনি তারা। এছাড়া যে ফরমে পুলিশ ভেরিফিকেশন হবে সেটিও পাঠায়নি শিক্ষা মন্ত্রণালয়। ফলে তালিকার মধ্যেই আটকে আছে হবু শিক্ষকদের পুলিশ ভেরিফিকেশন কার্যক্রম।

সূত্র জানায়, ৩৮ হাজার ২৮৬ জন শিক্ষকের পুলিশ ভেরিফিকেশনের ফরমও শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠাতে হবে। পুলিশ ভেরিফিকেশনের ফরম পাওয়ার পর সেগুলো সংশ্লিষ্ট জেলার পুলিশের কাছে পাঠাবে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। এরপর সেই তালিকা অনুযায়ী আবেদনের সময় দেয়া শিক্ষকদের তথ্য যাচাই করবে পুলিশ। এছাড়া নিয়োগের জন্য সুপারিশপ্রাপ্তদের বিরুদ্ধে কোনো ফৌজদারি মামলা কিংবা রাষ্ট্র বিরোধী কোনো কর্মকান্ডে জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে কিনা সেটিও যাচাই করে দেখা হবে। এরপর প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী ফরম পূরণ করে সেটি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠাবে পুলিশ।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (নিরাপত্তা ও বহিরাগমন অনুবিভাগ) মো. আবদুল্লাহ আল মাসুদ চৌধুরী জানান, ৩৮ হাজারের বেশি শিক্ষকদের একটি তালিকা গত বৃহস্পতিবার আমরা পেয়েছি। এরপর সাপ্তাহিক বন্ধ এবং ১৫ আগস্ট সরকারি ছুটি থাকায় এটি নিয়ে কোনো কাজ করা সম্ভব হয়নি।

তিনি বলেন, আমাদের কাছে কেবলমাত্র তালিকা পাঠানো হয়েছে। তবে পুলিশ ভেরিফিকেশনের ফরম পাঠানো হয়নি। এই ফরম না পাওয়া পর্যন্ত আমরা কাজ শুরু করতে পারবো না। শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে ৩৮ হাজার ২৮৬টি পুলিশ ভেরিফিকেশনের ফরম পাঠাতে হবে। এরপর সেগুলো ভেরিফিকেশনের জন্য জেলা পুলিশের কাছে পাঠানো হবে।

মো. আবদুল্লাহ আল মাসুদ চৌধুরী আরও বলেন, পুলিশের কাছ থেকে ভেরিফিকেশন ফরম ফেরত পাওয়ার পর সেগুলো আবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে। এরপর তারা কাকে নিয়োগ দেবে আর কাকে নিয়োগ দেবে না সেটি ঠিক করবে।

এর আগে গত মঙ্গলবার (১০ আগস্ট) ৩৮ হাজার ২৮৬ জন শিক্ষকের পুলিশ ভেরিফিকেশন করতে তাদের তালিকা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানোর কথা জানান মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (মাধ্যমিক) ডা. সৈয়দ ইমামুল হোসেন।

প্রসঙ্গত, দীর্ঘদিন ঝুলে থাকার পর গত ১৫ জুলাই শিক্ষক নিয়োগে তৃতীয় গণবিজ্ঞপ্তির ফল প্রকাশ করে এনটিআরসিএ। ৫৪ হাজারের বেশি শূণ্যপদ থাকলেও আবেদন না করা এবং যোগ্যপ্রার্থী না থাকায় ৩৮ হাজার ২৮৬ পদে সুপারিশ করে এনটিআরসিএ।

প্রাথমিকভাবে সুপারিশকৃত প্রার্থীদের সমস্ত তথ্য নেয়া হয়েছে টেলিটক থেকে। যেখানে ৩৮ হাজার ২৮৬ জন প্রার্থীর সমস্ত তথ্য মিলিয়ে মোট ১৪ হাজার পৃষ্ঠা হয়। পুলিশ ভেরিফিকেশন শেষ হওয়ার পরই চূড়ান্তভাবে নির্বাচিত প্রার্থীদের তালিকা এনটিআরসিএর ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হবে।