শিক্ষকদের শতভাগ ভাতা ও এমপিওভুক্ত শিক্ষা জাতীয়করণ চান ৬ এমপি

২০২১-২০২২ অর্থবছরের বাজেট অধিবেশনে এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের আসন্ন ঈদুল আজহা থেকে শতভাগ উৎসব ভাতা প্রদান ও এমপিওভুক্ত শিক্ষা জাতীয়করণের দাবি জানিয়েছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সংসদের বিরোধীদলীয় উপনেতা জি এম কাদের, কাজী ফিরোজ রশিদ, এম এ মতিন, আ ক ম সারওয়ার জাহান বাদশাহ, ডা. রুস্তম আলী ফরাজী ও রওশন আরা মান্নান।

সংসদ অধিবেশনে জি এম কাদের বলেন, এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের সরকারি শিক্ষকদের মতো উৎসব ভাতা, বাড়ি ভাড়া ও চিকিৎসা ভাতাসহ অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা দেয়া হয় না। এটি পরীক্ষা করে বিবেচনার করার জন্য আমি অনুরোধ করছি।

কাজী ফিরোজ রশিদ বলেন, শিক্ষকরা দুরবস্থার মধ্যে আছেন। তারা বাইরে পড়াতে পারছেন না। তাদের আয়-রোজগার বন্ধ হয়ে় গেছে। তারা ২৫ শতাংশ বোনাস পান। করোনাকালে তাদের জন্য শতভাগ বোনাসের ব্যবস্থা করা গেলে তারা ভালো অবস্থায় থাকবেন।

শতভাগ উৎসব ভাতা প্রদান ও এমপিওভুক্ত শিক্ষা জাতীয়করণের দাবি জানিয়ে ফিরোজ রশিদ বলেন, শিক্ষা জাতির মেরুদণ্ড, শিক্ষা জাতীয়করণ করলে দেশ ও জাতি উপকৃত হবে।

এম এ মতিন তার বক্তৃতায় ২৫ শতাংশ বোনাস বৃদ্ধির দাবি জানান। আ ক ম সরোয়ার জাহান বাদশাহ শিক্ষাব্যবস্থা জাতীয়করণের দাবি জানিয়ে বলেন, শেখ হাসিনার এই বাংলাদেশে এবং ছয় লাখ কোটি টাকারও বেশি বাজেটে শিক্ষায় কোনো বৈষম্য থাকতে পারে না। এমপিওভুক্ত শিক্ষাব্যবস্থা জাতীয়করণের দাবি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন ডা. রুস্তম আলী ফরাজী ও রওশন আরা মান্নানও।