লকডাউনে কত–কী করছেন জ্যাকুলিন

সাধারণ মানুষের পাশাপাশি লকডাউনে ঘরে বসে বসে বিরক্ত বলিউড তারকারাও। সবাই আবার শুটিংয়ে ফিরতে চাইছেন। কিন্তু এই করোনাকালে গৃহবন্দী দশাতেও নিজেকে চূড়ান্ত ব্যস্ত রেখেছিলেন জ্যাকুলিন ফার্নান্দেজ।

জীবনকে সব সময় ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গিতে দেখতে ভালোবাসেন জ্যাকুলিন। তাই জীবনের চরমতম দুঃসময়েও ভেঙে পড়েননি এই বলিউডকন্যা। লকডাউনের সময়ও নিজেকে নানান কাজে ব্যস্ত রেখেছিলেন জ্যাকুলিন। তাই তাঁর কখনোই মনে হয়নি যে লকডাউনে ঘরবন্দী তিনি। এ প্রসঙ্গে জ্যাকলিন বলেন, ‘আমি এই সময় নিজেকে দারুণভাবে ব্যস্ত রেখেছিলাম। লকডাউনে নেটফ্লিক্সে আমার ছবি মুক্তি পেয়েছে। প্রচারণা, সালমানের সঙ্গে মিউজিক ভিডিও, বাদশার সঙ্গে গান, ম্যাগাজিনের জন্য শুট, অনলাইন নাচের শোসহ আরও নানান কাজ করেছি। সত্যি আমি এ ক্ষেত্রে ভাগ্যবতী। কখনো উপলব্ধি করিনি যে আমি লকডাউনে আছি।’

জ্যাকুলিন আরও বলেন, ‘আমি এই সময় নিজেকে আরও বেশি করে ইতিবাচক রাখার চেষ্টা করেছি। গঠনমূলক কাজের মাধ্যমে নিজেকে ব্যস্ত রাখার চেষ্টা করেছি। স্বাভাবিক জীবনে না ফিরতে পারার যন্ত্রণা প্রত্যেকটা মানুষই অনুভব করেছে। আমি খুবই ভাগ্যবতী যে নিজেকে নানাভাবে ব্যস্ত রাখতে পেরেছি। আমাদের উচিত এই সময়টাকে যতটা সম্ভব গঠনমূলক কাজের জন্য ব্যবহার করা। এই কঠিন সময় দ্রুতই চলে যাবে। আমরা আবার আমাদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরব।’
নেটফ্লিক্সে মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি ‘মিসেস সিরিয়াল কিলার’-এ জ্যাকুলিনকে ধূসর চরিত্রে দেখা গেছে। লকডাউনে একের পর এক হিট মিউজিক ভিডিও উপহার দিয়েছেন তিনি। সালমান খানের সঙ্গে ‘তেরে বিনা’, ‘মেরে অঙ্গনে মে’, এবং ‘গেন্দা ফুল’–এর মতো হিট মিউজিক ভিডিও ছিল তাঁর ঝুলিতে। বর্তমানে অনলাইন নাচের আসর ‘হোম ডান্সার’-এ তিনি সঞ্চালকের ভূমিকা পালন করছেন।