রিটের সঙ্গে নিয়োগের সম্পর্ক নেই: এনটিআরসিএ

বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ১ থেকে ১২তম নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের নিয়োগের বিষয়ে গত ৩১ মে রায় দিয়েছে আদালত। সেই রায়ের কপি হাতে পেয়েছে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ)। তবে রায়ের সাথে সকল রিটকারীর নিয়োগের কোনো সম্পর্ক নেই বলে এনটিআরসিএর একাধিক কর্মকর্তা দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসকে নিশ্চিত করেছেন।

তথ্যমতে, গত ৩১ মে ১ থেকে ১২তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের নিয়োগের বিষয়ে রায় দেয় আদালত। বিভিন্ন গণমাধ্যমে রিটকারীদের আইনজীবীর বরাত দিয়ে বলা হয়, ১-১২ তম নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ রিটকারীদের আগামী ৪ সপ্তাহের মধ্যে নিয়োগ দিতে হবে। তবে রায়ে যারা মেধা তালিকায় স্থান পাবে কেবল তাদেরকেই নিয়োগের জন্য সুপারিশ করতে বলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৩ জুন) বিকেলে রায়ের কপি হাতে পেয়েছে এনটিআরসিএ। রায়ের কপির বিষয়ে জানতে চাইলে এনটিআরসিএর এক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা জানান, আদালত যে রায় দিয়েছে সেখানে মেধার ভিত্তিতে নিয়োগের কথা বলা হয়েছে। রিটকারীদের সবাইকে নিয়োগের যে কথা এর আগে ছড়ানো হয়েছে তার সাথে রায়ের কোনো মিল আমরা খুঁজে পাচ্ছি না।

ওই কর্মকর্তা আরও জানান, আদালত যে রায় দিয়েছে সেখানে ২ ও ৫ নম্বর পয়েন্ট অনুযায়ী নিয়োগ দিতে বলা হয়েছে। উভয় পয়েন্টেই মেধার ভিত্তিতে নিয়োগের কথা বলেছে আদালত। রিটকারীদের মধ্যে যারা মেধা তালিকায় স্থান পাবে তাদের এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নিয়োগের সুপারিশ করতে হবে। ফলে সকল রিটকারীদের নিয়োগের বিষয়টি সঠিক নয়।

এদিকে আগামী রবিবার (৬ জুন) আদালতের রায় পর্যালোচনা করবে এনটিআরসিএ। এরপর রায়ের বিষয়টি নিয়ে অ্যাটর্নি জেনারেলের মতামত নেয়া হবে। এরপর গণবিজ্ঞপ্তির রেজাল্টের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানা গেছে।