রাজধানীর চিহ্নিত এলাকা লকডাউনের সিদ্ধান্ত আজ রাতেই : স্থানীয় সরকারমন্ত্রী

রাজধানীতে ‘রেড জোন’ হিসেবে চিহ্নিত এলাকাগুলোতে লকডাউন কার্যকর বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে আজ রাতেই। এ কথা জানিয়েছেন স্থানীয় সরকার বিষয়ক মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম। বুধবার (১৭ জুন) দুপুরে রাজধানীর পূর্ব রাজাবাজারে লকডাউন এলাকা পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান তিনি।

মন্ত্রী তাজুল ইসলাম বলেন, স্বাস্থ্য অধিদফতর লকডাউন কার্যকর করার জন্য ‘রেড জোন’ চিহ্নিত করে দিয়েছে। আজ রাতেই সংশ্লিষ্ট সবাইকে নিয়ে বৈঠক করে কবে থেকে লকডাউন করা হবে, সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

তবে ‘রেড জোনে’র কোন কোন এলাকা লকডাউন করা হবে, সেটি চিহ্নিত করে সুনির্দিষ্ট কোনো নকশা স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়কে দেয়া হয়নি বলেও জানান তিনি।

এসময় ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, তাদের বলা হয়েছে, এই এই এলাকা ‘রেড জোন’ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। কিন্তু সেসব এলাকা তো অনেক বড়। তাই সিটি করপোরেশন বলেছে, চিহ্নিত এলাকার কোন কোন অংশ লকডাউন করতে হবে, বিশেষ করে, বাড়ি, পাড়া, মহল্লা ইত্যাদি চিহ্নিত করে দিতে হবে। এসব চিহ্নিত করার ৪৮ থেকে ৭২ ঘণ্টার মধ্যেই লকডাউন নিশ্চিত করা সম্ভব হবে।

এর আগে, গতকাল মঙ্গলবার (১৬ জুন) ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপসও এক সমন্বয় সভা শেষে জানান, সুনির্দিষ্ট নকশা পেলে ২৪ থেকে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে চিহ্নিত এলাকায় লকডাউন কার্যকর করা যাবে।

এর আগে, গত ৯ জুন থেকে পূর্ব রাজাবাজার এলাকায় পরীক্ষামূলক লকডাউন চলছে। এ এলাকায় লকডাউনের আগে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তি ছিলেন ৩৯ জন। লকডাউনের পর গত ৮ দিনে ১৩২ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এতে নতুন আরও ২৪ জন শনাক্ত হয়েছেন। বর্তমানে এ এলাকায় করোনাোইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তির সংখ্যা ৬৩ জন। এর মধ্যে একজন মারা গেছেন।