যে কারণে ভারতে নিষিদ্ধ হলো পাবজিসহ ১১৮ টি অ্যাপ

ভারতে আবারো নিষিদ্ধ করে দেওয়া হলো অনেকগুলো চীনা অ্যাপ। এবার সেই তালিকায় আছে পাবজি, উইচ্যাটসহ মোট ১১৮ টি অ্যাপ। এ বিষয়ে ইতোমধ্যেই ভারতের তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে একটি তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে।

তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে যে, এসব অ্যাপগুলোর মাধ্যমে ভারতের সার্বভৌমত্ব নষ্ট হচ্ছে। এতে রয়েছে বাইডু অ্যাপ, যা যথেষ্ট জনপ্রিয়। এছাড়া রয়েছে ক্যামকার্ড, সুপার ক্লিন, লুডো ওয়ার্ল্ড।

চীনের সঙ্গে লাদাখে প্রথম সংঘাতের পর ২০ ভারতীয় সেনা নিহত হওয়ার পরপরই বেজিংয়ের উপর ‘ডিজিটাল স্ট্রাইক’ চালিয়েছিল ভারত সরকার। গত মাসে ৪৭ টি ও এর আগে ৫৯ টি সহ দুই দফায় ১০৬ টি চীনা অ্যাপ নিষিদ্ধ করে ভারত সরকার। এদের মধ্যে ছিল টিকটক, ইউসি ব্রাউজার, শেয়ার-ইট, উই-চ্যাট, ক্যামস্ক্যানারও। তখন থেকেই পাবজি গেমের প্রতি নজর ছিল ভারত সরকারের।

সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, যেসব অ্যাপ আগে নিষিদ্ধ করা হয়েছিল, সেই অ্যাপ-নির্মাতাদের তালিকায় ছিল টেনসেন্ট, আলিবাবা, শাওমির মতো একাধিক চীনা সংস্থা।

ভারত সরকারের দাবি, ভারতের সুরক্ষা, সংহতি, নিরাপত্তা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষা এবং এ দেশের সাধারণ মানুষের তথ্যের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

এখনও পর্যন্ত ভারত মোট ২২৪ চীনা অ্যাপ নিষিদ্ধ করেছে। এই অ্যাপগুলির গ্রাহক সংখ্যা সে দেশে বেশ ভালো পরিমাণে ছিল। ফলে ভারতের এই সিদ্ধান্তে চীন বড় ধাক্কা খেয়েছে বলেই মনে করা হচ্ছে।