মেসির জন্য যেকোনো পরিমাণ টাকা ঢালতে রাজি ম্যানসিটি

বায়ার্ন মিউনিখের বিপক্ষে লজ্জাজনক হারের পর যেকোনো দিন বার্সেলোনাকে বিদায় বলে দিতে পারেন লিওনেল মেসি। অনেকে বলছেন, শৈশবের ক্লাবটিতে আর থাকাই উচিত নয় ক্ষুদে জাদুকরের। এসব গুঞ্জনের মধ্যেই দ্য মিররের দাবি, আর্জেন্টাইন তারকাকে দলে ভেড়াতে যে কোনো পরিমাণের টাকা ঢালতে রাজি ইংলিশ জায়ান্ট ম্যানচেস্টার সিটি।

বেশ কয়েক মৌসুম ধরেই মেসিকে দলে ভেড়ানোর আপ্রাণ চেষ্টা চালাচ্ছে ইউরোপের অন্যতম শীর্ষ ধনী ক্লাবটি। বিশেষ করে মেসিগুরু পেপ গার্দিওলা ক্লাবটির দায়িত্ব নেয়ার পর থেকেই দলে তাকে চাইছে সিটিজেনরা। এর আগেও বেশ কয়েকবার গুঞ্জন উঠেছে, ম্যানসিটিতে যোগ দিতে যাচ্ছেন এলএমটেন। তবে সেসব সত্যি হয়নি।

এবার অবশ্য প্রেক্ষাপট বদলেছে। বার্সা কর্তৃপক্ষের সঙ্গে দূরত্বটা দিনদিন বাড়ছে মেসির। মৌসুমের লা লিগা ট্রফিটা হারিয়েই জানিয়ে দিয়েছিলেন, সতীর্থদের ওপরও আর আস্থা রাখতে পারছেননা তিনি। এরপর চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টারে বায়ার্ন মিউনিখের কাছে লজ্জাজনক বিদায়ের পর তার ক্ষোভটা আরো বেড়েছে সেটিই স্বাভাবিক।

মেসিগুরু পেপ গার্দিওলাও খুব করে দলে চাইছেন তার প্রিয় শিষ্যকে। কারণটাও পরিষ্কার। বার্সায় ৪ মৌসুম ছিলেন দায়িত্বে। এরমধ্যে ২বারই জিতেছেন চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শিরোপা। মেসি-গার্দিওলা জুটিকে ইতিহাসের অন্যতম শক্তিশালী জুটি হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

তবে কাতালানদের দায়িত্ব ছাড়ার পর থেকে বেশ বিপদেই আছেন গার্দিওলা। ইউরোপের অন্যতম শীর্ষ ক্লাবগুলোর দায়িত্ব নিয়েছেন এই সময়ে। চার বছর কোচিং করিয়েছেন জার্মান জায়ান্ট বায়ার্ন মিউনিখকে। সেখানে বুন্দেসলিগা জিতলেও দেখা পাননি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ট্রফিটার। এরপর ম্যানচেস্টার সিটির দায়িত্ব নিয়েছেন। লগ্নি করেছেন প্রচুর অর্থ। টাকার জাহাজ নিয়ে হাজির হয়ে দলকে বানিয়েছেন ইউরোপের সবচেয়ে ব্যয়বহুল ক্লাব। তবে সেই কাঙ্খিত ইউসিএল ট্রফির দেখা পাননি। ফলে ইউরোপের অনেক বিশ্লেষকই বলে দিয়েছেন, একজন মেসি ছাড়া অচল গার্দিওলা।

গার্দিওলার অধীনে মেসিও কাটিয়েছেন স্বর্ণসময়। দুজনের রসায়নটা তাই বেশ। সেই জুটিটার কি আবারো দেখা মিলবে? ইউরোপের অন্যতম শীর্ষ গণমাধ্যম দ্য মিরর বলছে, সেটি খুবই সম্ভব। কারণ মেসির জন্য যতো টাকাই লাগুক, খরচ করতে রাজি ম্যানসিটি।

বর্তমানে লিওনেল মেসির বাই আউট ক্লজ ৬৩৫ মিলিয়ন ইউরো। বাংলাদেশি অর্থে যেটি প্রায় সাড়ে ৬ হাজার কোটি টাকা! ইউরোপিয়ান ফুটবলে সর্বোচ্চ দামে দলবদল করেন মেসিসতীর্থ নেইমার। বার্সেলোনা থেকে ২২০ মিলিয়ন ইউরোতে তিনি যোগ দেন ফরাসী ক্লাব পিএসজিতে। মেসির অংকটা বুঝতেই পারছেন, আকাশসমান। এই দূর্মূল্যের বাজারে অংকটা কিছুটা কমাবে বলে আশা করছে ম্যানসিটি। তবে সেটি যে কোনভাবেই ৫০০ মিলিয়নের নিচে নামবেনা সেটি তো পরিষ্কারই। আর সেটি হলেও ট্রান্সফার মার্কেটের নতুন রেকর্ডটাও দখলে নেবেন লিওনেল মেসি। আর বিশ্বসেরা ফুটবলারের জন্য সেই পরিমান অর্থ খরচ করতেও অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছে ম্যানচেস্টার সিটি।