মেডিকেলের আদলে দ্বিতীয়বার ভর্তি পরীক্ষার সুযোগ দেয়া হতে পারে

২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষা নিয়ে আলোচনা করতে শিগগিরই বৈঠকে বসতে যাচ্ছে গুচ্ছভুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়গুলো। ওই বৈঠকে সংক্ষিপ্ত সিলেবাস ও দ্বিতীয়বার ভর্তি পরীক্ষার সুযোগ রাখার বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

গুচ্ছভুক্ত একাধিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসিদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির আহবানের পর সংক্ষিপ্ত সিলেবাসের আলোকেই ভর্তি পরীক্ষা নিতে চান তারা। এছাড়া দ্বিতীয়বার ভর্তি পরীক্ষার সুযোগ রাখার বিষয়েও ওই বৈঠকে আলোচনা করা হবে।

তারা বলছেন, গুচ্ছভুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিকাংশ উপাচার্য চাইলে দ্বিতীয়বার ভর্তি পরীক্ষার সুযোগ রাখা হবে। এক্ষেত্রে মেডিকেলের আদলে দ্বিতীয়বার ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেয়া শিক্ষার্থীদের কিছু নম্বর কর্তন করা হতে পারে। তবে বিষয়টি নিয়ে এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে আলোচনা হয়নি।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) উপাচার্য অধ্যাপক ড. ইমদাদুল হক বলেন, আমরা সংক্ষিপ্ত সিলেবাসের আলোকে ভর্তি পরীক্ষা নিতে চাই। তবে বিষয়টি নিয়ে আমাদের মধ্যে এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো আলোচনা হয়নি। সবার সাথে আলোচনা করে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

দ্বিতীয়বার ভর্তি পরীক্ষার সুযোগ রাখা প্রসঙ্গে তিনি আরও বলেন, এটি আলোচনা সাপেক্ষে বলা যাবে। যদি দ্বিতীয়বার ভর্তি পরীক্ষার সুযোগ রাখা হয় তাহলে সব বিশ্ববিদ্যালয়েই থাকবে। আর না রাখা হলে কোনো বিশ্ববিদ্যালয়েই থাকবে না। কোনোটিতে থাকবে আর কোনোটিতে থাকবে সেটি হতে পারে না। দ্বিতীয়বার ভর্তি পরীক্ষার সুযোগ রাখা হলে শিক্ষার্থীদের কিছু নম্বর কর্তন করা হতে পারে। তবে এগুলো ভর্তি পরীক্ষা সংক্রান্ত সভায় আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

এদিকে ভর্তি পরীক্ষার তারিখসহ যাবতীয় বিষয় নিয়ে আলোচনা করতে শিগগিরই বৈঠকে বসতে যাচ্ছে গুচ্ছভুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যরা। ওই সভায় নতুন কমিটিও গঠন করা হতে পারে। সভার দিনক্ষণ চূড়ান্ত না হলেও চলতি মাসের শেষদিকে অথবা মার্চের শুরুতে এই সভা হতে পারে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বলেন, গতবার জগন্নাথ ও শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয় দায়িত্ব পালন করেছেন। এবার এই কমিটি পরিবর্তন করা হবে। এছাড়া ভর্তি পরীক্ষার কিছু বিষয় অমীমাংসিত রয়েছে। সেগুলো নিয়েও আমাদের আলোচনা করতে হবে। শিগগিরই বৈঠক ডাকা হবে বলেও জানান তিনি।