মাদক কেড়ে নিল দীপিকার ফোন

সুশান্ত সিং রাজপুত মৃত্যুর পর মাদক মামলায় আলোচনায় আসা দীপিকা পাড়ুকোনকে পাঁচ ঘণ্টা ধরে জিজ্ঞাসাবাদ করে নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো (এনসিবি)। সন্ধ্যা পর্যন্ত জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় সারা আলি খান আর শ্রদ্ধা কাপুরকে। জিজ্ঞাসাবাদে দীপিকার ফোন নিয়ে নেয় এনসিবি এবং সারা ও শ্রদ্ধা মাদকের ব্যাপারে কথা বলেন।

শনিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) মাদক মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মুম্বাইয়ে নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরোর (এনসিবি) দফতরে আসেন অভিনেত্রী দীপিকা পাড়ুকোন। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজারের প্রতিবেদনে এমনটা জানানো হয়।

সূত্রের খবরে জানানো হয়, জিজ্ঞাসাবাদের দিন বিকেল চারটার আগে ছাড়া পাননি দীপিকা। দু’দফায় তার সঙ্গে কথা বলেছে এনসিবি। দীপিকার প্রাক্তন ম্যানেজার করিশ্মা প্রকাশকে গতকাল সাত ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। দীপিকা এবং করিশ্মাকে কিছু সময় মুখোমুখিও বসানো হয়।

দীপিকা কী বলেছেন সেটা এনসিবি আনুষ্ঠানিকভাবে তা না জানালেও সূত্রের মাধ্যমে জানা গেছে, দীপিকা বিতর্কিত হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটের কথা স্বীকার করেছেন। কিন্তু তিনি এও দাবি করেছেন যে, তিনি নিজে মাদক নেননি এবং হোয়াটসঅ্যাপে ‘মাল হ্যায় ক্যা’ বলে তিনি যে বার্তা পাঠিয়েছিলেন, সেটা মাদক নিয়ে নয়। করিশ্মাও শনিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) বলেছিলেন, দীপিকা স্বাস্থ্যসচেতন। তিনি মাদক সেবন করেন না।

হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ চ্যাটের সূত্র ধরেই মূলত দীপিকা আর করিশ্মাকে ডাকে এনসিবি। জিজ্ঞাসাবাদের পর দীপিকার ফোন নিয়ে নেওয়া হয়েছে। কিন্তু দীপিকা কিছু ক্ষেত্রে জবাব এড়িয়ে গিয়েছেন বা শেখানো কথা বলছেন বলে মনে হয়েছে এনসিবির। প্রয়োজনে তাকে আবারো ডাকতে পারে এনসিবি।

শনিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) ব্যালার্ড এস্টেটে এনসিবির দফতরে সারা এবং শ্রদ্ধার জিজ্ঞাসাবাদ শুরু হয় দুপুরে। সারাকে চার ঘণ্টা এবং শ্রদ্ধাকে প্রায় ছয় ঘণ্টা ধরে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। তারা দু’জনেই দাবি করেছেন, তারা মাদক সেবন করেন না। কিন্তু শুটিংয়ে এবং অন্যত্র সুশান্তকে মাদক নিতে দেখেছেন।

‘ছিছোড়ে’-র সাফল্য উপলক্ষে সুশান্তের পাওয়ানা গেস্টহাউসে পার্টিতে উপস্থিত থাকার কথা স্বীকার করেছেন শ্রদ্ধা। সারাও জানিয়েছেন, ‘কেদারনাথ’ শুটিংয়ের কথা। সুশান্তের সঙ্গে তার সম্পর্ক, তাইল্যান্ডে বেড়াতে যাওয়া এবং পার্টি করার কথাও বলেছেন সারা।