মহাকাশে উড়বে বিজ্ঞাপন!

মহাকাশে শুধু রকেট, স্যাটেলাইট ও বিলিয়নিয়াররাই উড়বে না। এবার উড়বে বিজ্ঞাপনও।
জিওমেট্রিক এনার্জি কর্পোরেশন (জিইসি) জানিয়েছে, মহাকাশে বিজ্ঞাপন দেওয়া সম্ভব করছে ইলন মাস্কের স্পেসএক্স কোম্পানি।

জিইসি একটি কানাডিয়ান স্টার্টআপ; যা প্রযুক্তি সেবা প্রদান করে।

জিইসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহ-প্রতিষ্ঠাতা স্যামুয়েল রিড বলেন, কিউবস্যাট নামে একটি স্যাটেলাইট তৈরি প্রক্রিয়াধীন। স্যাটেলাইটের একপাশে একটি পিক্সেলেটেড ডিসপ্লে স্ক্রিন থাকবে যেখানে বিজ্ঞাপন, লোগো ও শিল্পকর্ম প্রদর্শিত হবে।

জিইসি কিউবস্যাটকে একটি স্পেসএক্স ফ্যালকন-৯ রকেটে লোড করার পরিকল্পনা করেছে; যা এটিকে কক্ষপথে নিয়ে যাবে এবং রকেটটি চাঁদে পৌঁছানোর আগে ছেড়ে দেবে।

কিউবস্যাটের পাশে সংযুক্ত একটি সেলফি-স্টিক ডিসপ্লে স্ক্রিন ধারণ করবে। সেই ফুটেজটি ইউটিউবে লাইভ স্ট্রিম করা হবে অথবা টুইচ করে যে কেউ স্যাটেলাইটের স্ক্রিন দেখতে টিউন করতে পারবে।

রিড জানান, কিউবস্যাট ২০২২ সালের প্রথম দিকে উন্মোচন করা হবে।

পিক্সেলের জন্য টোকেন বিক্রি

কিউবস্যাটে বিজ্ঞাপন দিতে ও ডিসপ্লে স্ক্রিনে পিক্সেল ডিজাইন করার জন্য টোকেন কেনার কথা জানিয়েছে জিইসি।

এজন্য পাঁচটি টোকেন বেছে নিতে হবে- এক্স কোঅর্ডিনেটের জন্য বিটা, ওয়াই কোঅর্ডিনেটের জন্য রো, উজ্জ্বলতার জন্য গামা, রঙের জন্য কাপা ও সময়ের জন্য XI।

বিটা ও রো টোকেনের সাহায্যে লোকেরা তাদের পিক্সেল কোথায় রাখবে তা ঠিক করতে পারবে। গামা ও কাপা টোকেন মানুষকে তাদের পিক্সেল দেখতে কেমন হবে তা নিয়ন্ত্রণ করবে। আর XI টোকেন নির্ধারণ করবে পিক্সেল কতক্ষণ স্থায়ী হবে।

রিড বলেছেন, আমি এমন কিছু অর্জন করার চেষ্টা করছি যেন মহাকাশে সবার প্রবেশাধিকার ও অংশগ্রহণের সুযোগ তৈরি হয়। আশা করি, লোকেরা অহেতুক কাজে তাদের অর্থ অপচয় করবে না।

মানুষ ক্রিপ্টোকারেন্সি দিয়ে টোকেন কিনতে পারবে। ভবিষ্যতে জিইসি ডগকয়েন পেমেন্ট চালু করবে বলে জানান তিনি। তবে প্রতিটি টোকেন বা কিউবস্যাটের দাম কত হবে তা এখনও প্রকাশ করা হয়নি।

যে কেউ কিউবস্যাটে বিজ্ঞাপন দিতে পারবে

রিড বলেন, ব্যবসা, বিজ্ঞাপনদাতা, শিল্পী এবং আগ্রহী অন্য যে কেউ কিউবস্যাটের ডিসপ্লে স্ক্রিনে তাদের বিজ্ঞাপন তুলে ধরতে পারবে।

তিনি বলেন, এমন কোম্পানি থাকতে পারে যারা তাদের লোগো দেখাতে চায়… অথবা ব্যক্তিগত ও শৈল্পিক প্রদর্শনও করা যাবে। হয়তো কোকা-কোলা ও পেপসি তাদের লোগো প্রচার নিয়ে যুদ্ধ করবে।

তিনি কিউবস্যাট ডিসপ্লে স্ক্রিনকে আর্টবোর্ডের সঙ্গে তুলনা করেছেন।

জিইসি যেভাবে স্পেসএক্সের সঙ্গে যুক্ত হলো

রিড ২০১৮ সালে স্পেসএক্সের কাছে বিজ্ঞাপন প্রকল্প শুরু করার জন্য গিয়েছিলেন কিন্তু কোনো সাড়া পাননি।

তিনি বলেছিলেন, কোম্পানির সদর দপ্তরে একটি বৈঠক করার আগে জিইসিকে গুরুত্ব দিতে স্পেসএক্সের কিছুটা সময় লেগেছিল।

রিড ক্যালিফোর্নিয়ার স্পেসএক্সের অফিসে বিলিয়নিয়ার অ্যাড অ্যাস্ট্রা স্কুলে কিছু বাচ্চাদের পড়াতেন। তবে তিনি কখনও সরাসরি মাস্কের সাথে দেখা করার সুযোগ পাননি। কিন্তু ধারণা করছেন, প্রকল্পের সময় মাস্কের সঙ্গে সরাসরি কথা হবে।

সূত্র: বিজনেস ইনসাইডার।