ভারতের শিক্ষামন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীর পদত্যাগ

ভারতের কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় রদবদল হচ্ছে। মোদি সরকার দ্বিতীয়বার ক্ষমতায় আসার পর এই প্রথম মন্ত্রিসভায় রদবদল হচ্ছে। ইতোমধ্যে পদত্যাগ করেছেন দেশটির কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী রমেশ পোখরিয়াল নিশাঙ্ক। স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষবর্ধণ এবং শ্রমমন্ত্রী সন্তোষ গঙ্গোয়াসহ কয়েকজন মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী পদত্যাগ করেছেন। পদত্যাগ করেছেন শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী সঞ্জয় ধোর্তেও।

এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, ভারতের কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় রদবদলের কয়েক ঘণ্টা আগেই পদত্যাগ করেছেন ১১ জন মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রী।

ভারতীয় গণমাধ্যমগুলো বলছে, আগামী বছর বিধানসভা নির্বাচনের কথা মাথায় রেখে মন্ত্রীসভার রদবদলে উত্তরপ্রদেশ এবং উত্তরাখণ্ড বিশেষ গুরুত্ব পাবে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

আনন্দবাজারের খবরে বলা হয়, এবারে মোট ৪৩ জন মন্ত্রী পদে শপথ নিতে পারেন। বুধবার সন্ধ্যা ৬টায় শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান হতে পারে রাষ্ট্রপতি ভবন সূত্রে জানা গেছে।

ভারতের কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় ব্যাপক রদবদল আনতে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। করোনাভাইরাস মোকাবিলায় সরকারের ব্যর্থতা তুলে ধরছে নানা মহল। এ অবস্থায় ক্ষমতাসীন বিজেপি সরকারের মন্ত্রিসভায় উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন আনছেন মোদি। এর আগেই বেশ কজন পদত্যাগ করেছেন।

বুধবার পদত্যাগ করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষবর্ধণ ও একই মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী অশ্বিন চৌবে। কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী রমেশ পোখরিয়াল নিশাঙ্ক ও শ্রমমন্ত্রী সন্তোষ গাংওয়ারও পদত্যাগ পত্র জমা দিয়েছেন। এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, কেন্দ্রীয় রাসায়নিক ও সারবিষয়ক মন্ত্রী সদানন্দ গৌদা, নারী ও শিশু কল্যাণবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী দেবশ্রী চৌধুরী, শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী সঞ্জয় ধোর্তে, ভোক্তা কল্যাণবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী রাও সাহেব ধানবে পাতিল, জলশক্তিবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী রতন লাল কাটারিয়াও এ তালিকায় রয়েছেন। পদত্যাগ করেন উপভোক্তা বিষয়ক, খাদ্য ও গণবন্টন প্রতিমন্ত্রী রাওসাহেব পাটিল।

এ সারিতে যুক্ত হয়েছেন পরিবেশ বন ও জলবায়ু পরিবর্তনবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়ও। তিনি আসানসোলের সাংসদ।