বেসরকারি শিক্ষক নিয়োগ দুই বিভাগে পৌঁছেছে পুলিশ ভেরিফিকেশন ফরম

বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ৩২ হাজার ২৮৩ জন শিক্ষকের পুলিশ ভেরিফিকেশন প্রক্রিয়া শুরু করেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগ। ইতোমধ্যে দুই বিভাগে ভেরিফিকেশন ফরম পাঠানো হয়েছে। পর্যায়ক্রমে অন্য বিভাগগুলোতেও ভেরিফিকেশ ফরম পাঠানো হবে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগ সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, গত বুধবার (১৩ অক্টোবর) শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে শিক্ষকদের পুলিশ ভেরিফিকেশন ফরম সুরক্ষা সেবা বিভাগের কাছে পাঠানো হয়। এরপর ফরমগুলো বিভাগ অনুযায়ী পাঠানো শুরু করে সুরক্ষা সেবা বিভাগ। ইতোমধ্যে ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগে ভেরিফিকেশন ফরম পাঠানো হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (নিরাপত্তা ও বহিরাগমন অনুবিভাগ) মো. আবদুল্লাহ আল মাসুদ চৌধুরী বলেন, বেসরকারি শিক্ষকদের পুলিশ ভেরিফিকেশনের কাজ শুরু হয়েছে। আমরা দু’টি বিভাগে ভেরিফিকেশন ফরম পাঠিয়েছি। দ্রুত অন্য বিভাগগুলোতেও ভেরিফিকেশন ফরম পাঠানো হবে।

তিনি আরও বলেন, শিক্ষক সঙ্কট দূর করতে দ্রুত ভেরিফিকেশন কার্যক্রম শেষ করা হবে। আমরা চেষ্টা করবো মুজিব শতবর্ষের মধ্যেই ভেরিফিকেশন কার্যক্রম শেষ করার। এনটিআরসিএ এবং শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে আমাদের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ করা হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

এর আগে গত রোববার (১০ অক্টোবর) বেরসকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষের কার্যালয় থেকে ৩২ হাজার ২৮৩ জনের ভি রোল ফরম শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগে পাঠানো হয়।

গত সোমবার (১১ অক্টোবর) ভেরিফিকেশন ফরম পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (মাধ্যমিক) ফৌজিয়া জাফরীন বলেন, শিক্ষকদের ভেরিফিকেশন ফরমগুলো আমরা পেয়েছি। এখন সেগুলো আমাদের শাখায় রাখা আছে। দ্রুত ফরমগুলো স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে।

তথ্যমতে, চলতি বছরের ৩০ মার্চ বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষক নিয়োগের লক্ষ্যে গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে এনটিআরসিএ। ৫৪ হাজার ৩০৪টি শূন্যপদের বিপরীতে ৪ এপ্রিল থেকে আবেদন গ্রহণ শুরু হয়। ১-১২তম নিবন্ধনের রিটকারীদের জন্য দুই হাজার ২০০টি পদ সংরক্ষণ করে ৫১ হাজার শিক্ষক নিয়োগের উদ্যোগ নেয় এনটিআরসিএ।

তবে ৮ হাজার ৪৪৮টি পদে কোনো আবেদন না পাওয়ায় এবং ৬ হাজার ৭৭৭টি মহিলা কোটা পদে মহিলা প্রার্থী না থাকায় মোট ১৫ হাজার ৩২৫টি পদে বাকি রেখে ৩৮ হাজার ২৮৬ জনকে নিয়োগের সুপারিশ করা হয়। সুপারিশপ্রাপ্তদের মধ্যে ৬ হাজার ৩ জন ভি রোল ফরম পূরণ করে না পাঠানোয় ৩২ হাজার ২৮৩ জনের পুলিশ ভেরিফিকেশন করা হচ্ছে।