বুয়েট স্নাতকের টার্ম ফাইনাল পরীক্ষা অনলাইনে

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বুয়েট) চলতি বছরের টার্ম ফাইনাল পরীক্ষা হবে অনলাইনে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে রেজিস্ট্রার ফোরকান উদ্দিন স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, গত ২৮ জুলাই একাডেমিক কাউন্সিলের ৪৬৮তম সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এ টার্ম ফাইনাল পরীক্ষা অনলাইনে উল্লেখিত নীতিমালা অনুযায়ী নেওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, LMS Vertual Meeting Software (Zoom, Microsoft Teams ও Moodle)–এর মাধ্যমে অনলাইন টার্ম ফাইনাল পরীক্ষা নেওয়া হবে। অনলাইনে নেওয়া এ পরীক্ষা ও Contiguous Assessment মূল্যায়নের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের লেটার গ্রেড দেওয়া হবে।

শিক্ষার্থীদের ফলাফল বা গ্রেড নির্ধারণে Class Attendance, Class Test, Quiz, Assignment, Viva Presentation–এর জন্য ৩০ শতাংশ এবং টার্ম ফাইনাল পরীক্ষার জন্য ৭০ শতাংশ নম্বরকে একাডেমিক কাউন্সিলের আগের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সম্পন্ন করা হবে। এতে উল্লেখ করা হয়েছে, শিক্ষার্থীর শ্রেণিতে উপস্থিতির (১০ শতাংশ নম্বর) জন্য বরাদ্দকৃত নম্বর বণ্টনের ক্ষেত্রে একাডেমিক কাউন্সিলের সিদ্ধান্ত বহাল থাকবে।
সব কোর্সের জন্য টার্ম ফাইনাল পরীক্ষার মোট সময় নির্ধারণ করা হয়েছে দুই ঘণ্টা এবং পরীক্ষার সময় শেষ হওয়ার পর সর্বোচ্চ ১৫ মিনিটের মধ্যে LMS Software (Microsoft Teams বা Moodle বা এর মাধ্যমে অনলাইনে উত্তরপত্র জমা দিতে হবে। প্রতিটি Examination Hall–এর জন্য সর্বোচ্চ ৩৫ জন শিক্ষার্থীকে নিয়ে একটি গ্রুপ বা টিম গঠন করে অনলাইনে পরীক্ষা নেওয়া হবে এবং গ্রুপ বা টিমের জন্য কমপক্ষে দুজন শিক্ষক Invigilator হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন। পরীক্ষার সম্পূর্ণ প্রশ্নপত্রের সেকশন ‘এ’ বা সেকশন ‘বি’ একই সঙ্গে আপলোড করা হবে।

পরীক্ষা চলাকালে পরীক্ষার খাতা ও তার পারিপার্শ্বিক পরিবেশ দৃশ্যমান রেখে পরীক্ষার্থীকে সব সময় পরীক্ষায় ব্যবহৃত একটি ডিভাইসের (ডেস্কটপ/ল্যাপটপ/আইপ্যাড/স্মার্টফোন) ক্যামেরা চালু রেখে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে। এ ছাড়া পরীক্ষা চলাকালে প্রশ্নপত্র দেখা বা স্ক্যান করা অথবা উত্তরপত্র আপলোড করার জন্য প্রত্যেক পরীক্ষার্থী একটি অতিরিক্ত ডিভাইস (ডেস্কটপ/ল্যাপটপ/আইপ্যাড/স্মার্টফোন) সব সময় সঙ্গে রাখতে হবে। পরীক্ষা চলাকালে কোনো শিক্ষার্থীর প্রক্টোরাল ক্যামেরা বন্ধ হয়ে গেলে কিংবা কোনো শিক্ষার্থী প্রক্টোরাল ক্যামেরার দৃশ্যমান এলাকার বাইরে গেলে তা পরীক্ষার তদারককারী তাৎক্ষণিকভাবে রেকর্ড করে রাখবেন।
অনলাইনে টার্ম ফাইনাল পরীক্ষা নেওয়ার সময় বিভিন্ন ধরনের কারিগরি সমস্যা সমাধানের জন্য একটি কারিগরি কমিটি কেন্দ্রীয়ভাবে কাজ করবে।