বিশ্ববিদ্যালয় খোলা প্রসঙ্গ বাস্তবতা মেনে বিজ্ঞানসম্মতভাবে এগোতে হবে: ঢাবি উপাচার্য

করোনা মহামারীকালে এখন স্বতন্ত্রভাবে সিদ্ধান্ত নেওয়ার সময় নয় উল্লেখ করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বলেছেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ব্যাপারে সমন্বিত উদ্যোগ ও অংশগ্রহণমূলক সিদ্ধান্ত নিতে হবে। আমাদের সেভাবেইএগোতে হবে। অধৈর্য্য হওয়া কিংবা বিচ্ছিন্নভাবে অবাস্তব, অবৈজ্ঞানিক চিন্তাভাবনা করা যাবে না বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি।

একটি জাতীয় দৈনিককে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য এসব কথা বলেছেন। তিনি বলেন, দেশে টিকাকরন যতটুকু এগিয়েছে, কিছুটা হোঁচটও খেয়েছে। এই পরিস্থিতি শিগগিরই হয়তো কেটে যাবে, অবস্থার উত্তরণ ঘটবে। এটি নিয়ে অস্বাভাবিক আচরণ বা দৃষ্টিভঙ্গি প্রকাশ করা যাবে না। আমাদের বাস্তবতা মেনে বিজ্ঞানসম্মতভাবে এগোতে হবে।

করোনা ব্যবস্থাপনার অনেক উন্নয়ন হয়েছে, সক্ষমতা বেড়েছে জানিয়ে অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বলেন, ক্রমেই আস্থার জায়গা তৈরি হচ্ছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের টিকার আওতায় আনতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা ছিল। তিনি সুনির্দিষ্টভাবে শিক্ষার্থীদের নিয়ে ভাবনা-চিন্তা করে নির্দেশনা দিয়েছেন। সেভাবে প্রস্তুতি নিয়ে আমরাও টিকার জন্য প্রায় ২৬ হাজার শিক্ষার্থীর তালিকা দিয়েছি সরকারকে। টিকা নিয়ে বিভ্রান্তির সুযোগ নেই।

এ সময় সরকারি সিদ্ধান্তের সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে সমন্বয় করে কৌশলে এগিয়ে যেতে হবে বলে উল্লেখ করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য।