বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস: চাকরির পরীক্ষার প্রস্তুতি নেবেন যেভাবে

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস লিমিটেড সম্প্রতি বিশাল নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে। এই প্রতিষ্ঠানে ৩৩ ধরনের পদে মোট ৭৪৯ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী নিয়োগ দেওয়া হবে। অনলাইনে আবেদন শেষ হয়েছে। যাঁরা আবেদন করেছেন, তাঁদের প্রস্তুতি নেওয়ার এখনই সময়। পরিকল্পনামাফিক যথাযথ প্রস্তুতি নিলে এসব চাকরিতে সুযোগ পাওয়া সম্ভব।

নিয়োগ বৃত্তান্ত
সহকারী ব্যবস্থাপক, সিস্টেম ইঞ্জিনিয়ার, এয়ারক্রাফট মেকানিক, গ্রাউন্ড সার্ভিস অ্যাসিস্ট্যান্ট, কমার্শিয়াল অ্যাসিস্ট্যান্ট, অ্যাকাউন্ট বা অ্যাডমিন অ্যাসিস্ট্যান্টসহ ৩৩ ধরনের জেনারেল ও টেকনিক্যাল পদে মোট ৭৪৯ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী নিয়োগ পাবেন। একই সময়ে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে, তাই একাধিক পদে আবেদনের বিষয়ে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিতে নিরুৎসাহিত করা হয়েছে। নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি অনুসারে নির্বাচিত প্রার্থীরা প্রথমে তিন বছরের জন্য চুক্তিবদ্ধভাবে ও পরবর্তী সময় সন্তোষজনক চাকরির ভিত্তিতে স্থায়ী হবেন।

চাকরির প্রস্তুতি
নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিতে নিয়োগ পদ্ধতি ও পরীক্ষার সিলেবাসের বিষয়ে কিছু বলা হয়নি। তবে বিগত নিয়োগ পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারীদের অভিজ্ঞতা অনুসারে এবারও একই দিনে একই সঙ্গে প্রিলিমিনারি ও লিখিত পরীক্ষা নেওয়া হতে পারে। লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের কম্পিউটার টেস্ট ও মৌখিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হতে পারে। আইবিএ বা এমআইএসটি বা বিমান বাংলাদেশের নিজস্ব ব্যবস্থাপনা যেকোনো প্রক্রিয়ায় এবারের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হতে পারে।

সে ক্ষেত্রে ব্যাংক ও বিসিএস উভয় ধরনের প্রস্তুতি একজন প্রার্থীকে সফলতার পথে এগিয়ে রাখবে। সহকারী ব্যবস্থাপক ২০১৮ ও ২০২১ ব্যাচের নিয়োগ পরীক্ষার প্রিলিমিনারিতে বাংলা, ইংরেজি, গণিত, সাধারণ জ্ঞান (সাধারণ বিজ্ঞান ও কম্পিউটারসহ) এবং লিখিত পরীক্ষায় ইংরেজি ও বাংলা অনুবাদ, লিখিত গণিত, বাংলা ও ইংরেজি রচনা থেকে প্রশ্ন করা হয়েছিল। টেকনিক্যাল পদগুলোর জন্য জেনারেল বিষয়ের পাশাপাশি টেকনিক্যাল বিষয়ভিত্তিক প্রস্তুতি সম্পর্কেও পড়াশোনা করে যেতে হবে। পরীক্ষা পদ্ধতি একই রকম থাকলে বিগত প্রশ্নের আলোকেই চাকরিপ্রার্থীরা প্রস্তুতি গ্রহণ করতে পারেন।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস সম্পর্কে যা জানতে হবে
বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস লিমিটেড বাংলাদেশের একমাত্র সরকারি ও জাতীয় পতাকাবাহী বিমান পরিবহন সংস্থা। ২০০৭ সালে প্রতিষ্ঠানটি পাবলিক লিমিটেড কোম্পানি হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে। এর প্রধান কার্যালয় বলাকা ভবন ঢাকার কুর্মিটোলায় অবস্থিত। ১৬টি নিজস্ব এবং ৫টি লিজ করা উড়োজাহাজসহ বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের বহরে এখন উড়োজাহাজের মোট সংখ্যা ২১টি। কিছু প্রক্রিয়াধীন চুক্তি সম্পন্ন হলে মোট ৫২টি দেশে প্রতিষ্ঠানটি সেবা প্রদানের সুযোগ পাবে। এয়ারক্রাফট, সেবার মান, নেটওয়ার্ক, কেবিনের ইন্টেরিয়র, ইন-ফ্লাইট বিনোদনসহ বিভিন্ন ধরনের যাত্রীসেবা ও উন্নয়ন প্রক্রিয়া অব্যাহত রেখেছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস। রাষ্ট্রীয় পতাকাবাহী হিসেবে বাংলাদেশের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ও প্রসিদ্ধ ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর প্রতিষ্ঠানের একজন হিসেবে গর্বিত হতে পারেন আপনিও।

সুযোগ-সুবিধা
বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের নিজস্ব নিয়োগ বিধিমালা অনুসারে মন্ত্রণালয় অনুমোদিত আলাদা বেতন স্কেলে বেসিক বেতন ও অন্যান্য ভাতা এবং সরকারি অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের মতোই পদোন্নতির সুযোগ-সুবিধা প্রধান করা হয়। প্রতিষ্ঠানটিতে সাধারণত বেতন বিভাগ-৩(২) এবং বেতন বিভাগ-৬ষ্ঠ এই দুই পদে নিয়োগ প্রদান করা হয়। বেতন বিভাগ-৬ষ্ঠ সাধারণত জাতীয় বেতন স্কেল-৯ম গ্রেডের কর্মকর্তার সমমান বলে ধরা হয়। সহকারী ব্যবস্থাপক (বেতন বিভাগ-৬ষ্ঠ) পদে যোগদানকৃত একজন কর্মকর্তা যোগ্যতা ও জ্যেষ্ঠতার ভিত্তিতে উপব্যবস্থাপক, ব্যবস্থাপক, উপমহাব্যবস্থাপক ও মহাব্যবস্থাপক পদে পদোন্নতি পেতে পারেন। সরকার কর্তৃক নিয়োগপ্রাপ্ত একজন ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রতিষ্ঠানটির প্রধানের দায়িত্ব পালন করে থাকেন। নিয়োগপ্রাপ্ত একজন কর্মকর্তাকে প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব প্রশিক্ষণ একাডেমিতে ফাউন্ডেশন প্রশিক্ষণসহ দেশের ভেতর ও দেশের বাইরে বিভিন্ন প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করতে হতে পারে। প্রতিষ্ঠানের রুলস অনুযায়ী সুনির্দিষ্ট কর্মকর্তা–কর্মচারীদের নিয়মিত ইউনিফর্ম ব্যবহার করতে হয়। এ ছাড়া প্রযোজ্য ক্ষেত্রে নিজস্ব ট্রান্সপোর্ট সুবিধা, কর্মচারীদের জন্য আবাসন সুবিধা, মেডিকেল সুবিধা, প্রভিডেন্ট ফান্ড বা গ্র্যাচুইটিসহ অন্যান্য সুযোগ-সুবিধাও রয়েছে।