বিএসএমএমইউয়ে নকল মাস্ক: শারমিনকে তিন দিনের রিমান্ড

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালের করোনা ইউনিটে নকল ও নিম্নমানের মাস্ক সরবরাহের মামলায় গ্রেপ্তার অপরাজিতা ইন্টারন্যাশনালের স্বত্বাধিকারী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী রেজিস্ট্রার (প্রশাসন-১ শাখা) শারমিন জাহানকে তিন দিনের রিমান্ড দিয়েছে আদালত।

শনিবার (২৫ জুলাই) দুপুরে পুলিশের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে এই আদেশ দেন ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন (সিএমএম) আদালত।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, আজ (শনিবার) দুপুরে আসামি শারমিন জাহানকে আদালতে হাজির করে তিন দিন রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করে ডিবি পুলিশ। আদালত উভয় পক্ষের শুনানি নিয়ে এই আদেশ দেন।

এর আগে গতকাল শুক্রবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে রাজধানীর শাহবাগ থেকে শারমিন জাহানকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এর পর তাঁকে পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ (ডিবি) কার্যালয়ে নেয়া হয়। এ বিষয়ে বিএসএমএমইউর জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রশান্ত কুমার মজুমদার মেডিভয়েসকে জানান, নকল মাস্ক সরবরাহের ঘটনায় ‘অপরাজিতা ইন্টারন্যাশনালকে’ কারণ দর্শানোর নোটিস দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু তাদের উত্তর গ্রহণযোগ্য না হওয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়ার নির্দেশে মামলাটি দায়ের করা হয়েছে।

মামলার এজাহারে অপরাজিতা ইন্টারন্যাশনালের সত্ত্বাধিকারী শারমিন জাহানের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ শাস্তিমূলক ব্যবস্থাসহ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধ করা হয়েছে।

এজাহারে বলা হয়, ‘অপরাজিতা ইন্টারন্যাশনালের দাখিলকৃত নমুনা মাস্ক তুলনামূলকভাবে ভালো উল্লেখ করায় যথাযথ প্রক্রিয়া অনুসরণ করে অপরাজিতা ইন্টারন্যাশনালের সত্ত্বাধিকারী শারমিন জাহানকে মাস্ক সরবরাহের জন্য একটি কার্যাদেশ দেয় সরকার অনুমোদিত ডাইসিন ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেড। এরপর মোট ৪টি তারিখে এবং ৪টি লটে যথাক্রমে ১৩০০, ৪৬০, ১০০০ ও ৭০০ পিস মাস্ক সরবরাহ করে। প্রথম ও দ্বিতীয় লটে প্রদেয় মোট ১৭৬০টি মাস্কে ত্রুটি পরিলক্ষিত হয়নি। তবে তৃতীয় ও চতুর্থ লটে প্রদেয় ১০০০ ও ৭০০ পিস মাস্কে ত্রুটি পরিলক্ষিত হয়। ওই মাস্কের বন্ধনি ফিতা ছিড়ে গেছে, মাস্কের ছাপানো লেখায় ত্রুটিপূর্ণ ইংরেজি লেখা পাওয়া গেছে। এছাড়াও আরো বিভিন্ন ত্রুটি পরিলক্ষিত হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে মাস্কের মান নিম্নমানের প্রমাণিত হয়।’

সংশ্লিষ্টদের অভিযোগ, আসল এন-৯৫ মাস্কের সঙ্গে নকল মাস্কও সরবরাহ করে অপরাজিতা ইন্টারন্যাশনাল। প্রতিষ্ঠানটির কাছ থেকে প্রায় ৮০-৯৫ লাখ টাকার মাস্ক নেয় বিএসএমএমইউ।

এই ঘটনায় ‘অপরাজিতা ইন্টারন্যাশনালকে’ কারণ দর্শানোর নোটিসও দেয় বিএসএমএমইউ কর্তৃপক্ষ। এ বিষয় তদন্তে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করে তিন কর্মদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

এর পরিপ্রেক্ষিতে গত বুধবার উত্তর দিয়েছেন অপরাজিতা ইন্টারন্যাশনাল প্রতিষ্ঠানের স্বত্বাধিকারী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী রেজিস্ট্রার শারমিন জাহান। তবে উত্তর গ্রহণযোগ্য না হওয়ায় মামলা দায়ের করে বিএসএমএমইউ।