বাজেটে বরাদ্দ বাড়ছে শিক্ষায়, অর্থ থাকছে এমপিওর জন্যও

আসন্ন ২০২১-২২ অর্থবছরের বাজেটে বরাদ্দ বাড়ছে শিক্ষা খাতে। গতবারের চেয়ে প্রায় ১০ হাজার কোটি টাকা বেশি বরাদ্দ পাচ্ছে সংশ্নিষ্ট তিন মন্ত্রণালয়। বাড়তি অর্থ দিয়ে করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত শিক্ষা খাতের ক্ষতি কাটিয়ে ওঠার উদ্যোগ নেওয়া যাবে। এ ছাড়া বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করতেও বরাদ্দ থাকছে এবারের বাজেটে।

জানা গেছে, ২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেটে শিক্ষা খাতের জন্য বরাদ্দ ছিল ৬৬ হাজার ৩৯১ কোটি টাকা। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় পায় ২৪ হাজার ৯৪০ কোটি টাকা। এ ছাড়া মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষার জন্য ৩৩ হাজার ১১৭ কোটি টাকা এবং কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগে ছিল আট হাজার ৩৩৪ কোটি টাকা।শিক্ষা খাতে বরাদ্দের পরিমাণ ছিল দুই দশমিক ৯ শতাংশ। তবে ইউনেস্কোর পরামর্শ, শিক্ষা খাতে জিডিপির ছয় শতাংশ বরাদ্দ থাকা প্রয়োজন।

এ প্রসঙ্গে শিক্ষাবিদ অধ্যাপক সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম বলেন, শিক্ষায় বরাদ্দ জাতি গড়ে তোলার জন্য বিনিয়োগ। অথচ যে যৎসামান্য বরাদ্দ দেওয়া হয়, তাতে শিক্ষাকে আন্তর্জাতিক মানে উন্নীত করা তো দূরের কথা, দেশীয় মানও ধরে রাখা কঠিন।

জানা গেছে, বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীদের প্রত্যাশিত এমপিওভুক্তির জন্য বরাদ্দ থাকবে এবারের বাজেটে। এ জন্য বরাদ্দ চেয়ে আগেই অর্থ মন্ত্রণালয়ে চিঠি দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এমপিওভুক্তির জন্য বাড়তি ২০০ কোটি টাকা বরাদ্দ চেয়েছিল মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ। তবে তা না দিয়ে ১৫০ কোটি টাকার সিলিং করে দিয়েছে অর্থ বিভাগ।

এ ছাড়া কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগ এমপিওভুক্তির জন্য ১০০ কোটি টাকা চাইলেও ৫০ কোটি টাকায় সিলিং করে অর্থ মন্ত্রণালয়। বাজেট পাসের পর এমপিওভুক্তির আবেদন নেওয়া শুরু করবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুবুর রহমান এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘আগের বছরের চেয়ে এবার বেশি বরাদ্দ চেয়েছি। বরাদ্দ বাড়বে বলে আশা করছি।’ এ সময় এমপিওভুক্তির জন্য বাজেটে বরাদ্দ থাকবে কিনা, এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘হ্যাঁ, থাকবে।