The Rising Campus
Education, Scholarship, Job, Campus and Youth
বৃহস্পতিবার, ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০২৩

বাকৃবিতে দুই হলের ছাত্রলীগ সদস্যদের মারামারি

বাকৃবি প্রতিনিধিঃ ফলের ভিডিও করাকে কেন্দ্র করে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাকৃবি) আবাসিক দুই হলের ছাত্রলীগ সদস্যের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটেছে।

সোমবার (১৮ই সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ৮ টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কে আর মার্কেটের সামনে পশুপালন অনুষদের প্রধান ফটকে ওই ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীসূত্রে জানা যায়, রাত আটটার দিকে হুট করে হট্টগোল শোনা যায়। পরবর্তীতে সেটি মারামারিতে রূপ নেয়। মারামারির সময় একজনের হাতে গুরুতর আঘাত পেতে দেখা যায়।

ঘটনার বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মো. আজহারুল ইসলাম বলেন, আশরাফুল হক হলের এক আবাসিক শিক্ষার্থী বিভিন্ন ফলের ভিডিও করেন ওনার ইউটিউব চ্যানেলের জন্য। বিকেলে ভিডিও করার সময় জামাল হোসেনের ছেলেদের সাথে কথা কাটাকাটি হয়। তখন জামাল হোসেনের ছেলেরা তাদের সিনিয়রদের নিয়ে এসে কথা কাটাকাটি করে। বিকেলে সহকারী প্রক্টর স্যাররা গিয়ে বিষয়টি মিমাংসা করেন। পরবর্তীতে রাতে ওই ঘটনা নিয়ে দুই হলের ছাত্রলীগ সদস্যদের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটে।

বাকৃবি শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. মেহেদী হাসান বলেন, বিষয়টি সম্পূর্ণ আমাদের নিজেদের। এখানে দলীয় কোনো বিষয় নেই। শিক্ষার্থীরা এক সময় কে আর এ আসলে বিষয়টি হাতাহাতির পর্যায়ে যায়। পরে বিষয়টি সমাধান করা হয়েছে।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. প্রচ্ছদ
  2. রাজনীতি
  3. বাকৃবিতে দুই হলের ছাত্রলীগ সদস্যদের মারামারি

বাকৃবিতে দুই হলের ছাত্রলীগ সদস্যদের মারামারি

বাকৃবি প্রতিনিধিঃ ফলের ভিডিও করাকে কেন্দ্র করে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাকৃবি) আবাসিক দুই হলের ছাত্রলীগ সদস্যের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটেছে।

সোমবার (১৮ই সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ৮ টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কে আর মার্কেটের সামনে পশুপালন অনুষদের প্রধান ফটকে ওই ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীসূত্রে জানা যায়, রাত আটটার দিকে হুট করে হট্টগোল শোনা যায়। পরবর্তীতে সেটি মারামারিতে রূপ নেয়। মারামারির সময় একজনের হাতে গুরুতর আঘাত পেতে দেখা যায়।

ঘটনার বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মো. আজহারুল ইসলাম বলেন, আশরাফুল হক হলের এক আবাসিক শিক্ষার্থী বিভিন্ন ফলের ভিডিও করেন ওনার ইউটিউব চ্যানেলের জন্য। বিকেলে ভিডিও করার সময় জামাল হোসেনের ছেলেদের সাথে কথা কাটাকাটি হয়। তখন জামাল হোসেনের ছেলেরা তাদের সিনিয়রদের নিয়ে এসে কথা কাটাকাটি করে। বিকেলে সহকারী প্রক্টর স্যাররা গিয়ে বিষয়টি মিমাংসা করেন। পরবর্তীতে রাতে ওই ঘটনা নিয়ে দুই হলের ছাত্রলীগ সদস্যদের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটে।

বাকৃবি শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. মেহেদী হাসান বলেন, বিষয়টি সম্পূর্ণ আমাদের নিজেদের। এখানে দলীয় কোনো বিষয় নেই। শিক্ষার্থীরা এক সময় কে আর এ আসলে বিষয়টি হাতাহাতির পর্যায়ে যায়। পরে বিষয়টি সমাধান করা হয়েছে।

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন