বাংলাদেশের সফর নিয়ে আশার আলো দেখছে নিউজিল্যান্ড

করোনার প্রভাবে ভেস্তে গেছে ক্রিকেটের বেশকিছু সিরিজ। তবুও আশার আলো দেখছে নিউজিল্যান্ড। করোনাকালেও পাকিস্তান, অস্ট্রেলিয়া, বাংলাদেশ এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজকে আতিথেয়তা দিতে প্রস্তুত নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড (এনজিসি)। মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে এমনটাই জানিয়েছেন এনজিসির প্রধান নির্বাহী ডেভিড হোয়াইট।

সফরকারী দলের জন্য থাকবে আইসোলেশনের ব্যবস্থা। তবে সেটি কতোটা নিশ্চিত করতে পারবে তা নিয়ে এখনো সন্দিহান তারা। এরপরও বোর্ড কর্তৃপক্ষের আশা দ্রুতই তাদের মাটিতে খেলতে আসবে এই চারটি দেশ। এরই মধ্যে নাকি দেশগুলোর ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে আলাপও করেছেন তিনি।

এ প্রসঙ্গে এনজিসির প্রধান নির্বাহী বলেন, ‘আমি ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে কথা বলেছি, তারা নিশ্চিত করেছে। আশা করি পাকিস্তান, অস্ট্রেলিয়া ও বাংলাদেশও আসবে। তাই ৩৭ দিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থাকছে সামনে।’

সম্প্রতি ইংল্যান্ড সফরে জৈব সুরক্ষা বেষ্টিত পরিবেশে খেলার অভিজ্ঞতা নিয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। এই সিরিজকে ঘিরে নেয়া হয় পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা। আশঙ্কা সত্ত্বেও পূর্ণ নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করে ইসিবি দৃষ্টান্ত তৈরি করেছে।

এবার সফরকারী দলগুলোর জন্য একই ধরণের জৈব নিরাপত্তা বলয় তৈরি করতে কাজ করে যাচ্ছে এনজিসি। এই বিষয়টি নিশ্চিত করে হোয়াইট বলেছেন, ‘আমরা এই মুহূর্তে সরকারি সংস্থাগুলোর সঙ্গে কাজ করছি এই ব্যাপারে। তারা অনেক বেশি সমর্থন করছে। সরকারও দারুণ সহায়তা করেছে।’

আগামী বছরের ফেব্রুয়ারি-মার্চে ৩টি ওয়ানডে ও ৩টি টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে নিউজিল্যান্ড সফরে যাওয়ার কথা রয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের। তবে করোনাকালে সিরিজ দুটি নিয়ে এখনও নিশ্চিত করে কিছু বলা যাচ্ছে না। যদিও ডেভিড হোয়াইটের প্রত্যাশা নির্দিষ্ট সময়েই অনুষ্ঠিত হবে সিরিজ।