The Rising Campus
News Media
বৃহস্পতিবার, ২রা ফেব্রুয়ারি, ২০২৩

বন্ধুরা কেউ যেতে পারবেনা তাই ক্যাম্পাসেই গায়ে হলুদ

জমকালো আয়োজনের মধ্য দিয়ে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) শিক্ষার্থী মিশকা জান্নাত মীম এর গায়ে হলুদ অনুষ্ঠিত হয়েছে। তিনি আল-ফিকহ এন্ড লিগ্যাল স্টাডিজ বিভাগের স্নাতক ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী। তিনি সিরাজগঞ্জ সদরের একজন সাধারণ মেয়ে।

জানা যায়, বৃহস্পতিবার বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের জিমনেশিয়ামের পাশে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। দুপুর হতে একজন দুইজন করে বন্ধুরা জমা হতে থাকেন মিশকার সহপাঠীরা। বিকেল হলে মিশকা এলে তার হাতে ও মুখে হলুদ লাগিয়ে দিয়েছেন তারা। এছাড়াও কেউ গান গেয়ে আনন্দঘন পরিবেশ সৃষ্টি করেছিলেন সেখানে। দৃশ্যটি ছিল দেখার মত।

মিশকা জান্নাত মীমের (কনে) সহপাঠীরা জানান, আগামী ২৩ ডিসেম্বর পারিবারিক ভাবে সিরাজগঞ্জের হাসিববুর রহমান হৃদয়ের সাথে বিয়ে হচ্ছে তাদের। হাসিববুর রহমান হৃদয় পেশায় সিনিয়র আর্টিস্ট ডিজাইনার। বর্তমানে ক্লাস ও পরিক্ষার চাপ অনেক বেশি তাই সবার পক্ষে বিয়েতে উপস্থিত হওয়া সম্ভব না এজন্য কয়েকজন বন্ধু-বান্ধবী মিলে একটা ছোট পরিসরে গায়ে হলুদ অনুষ্ঠান করেছি। তাছাড়া ক্যাম্পাসের গায়ে হলুদটা একটা ভিন্ন রকম আনন্দের বিষয়। এছাড়াও বান্ধবীর বিয়ের স্বরণীয় ও স্মৃতিময় রাখতে ক্যাম্পাসে এ আয়োজন বলে জানিয়েছেন তিনি। ভিন্নধর্মী এ আয়োজনে হতবাক অনেকেই। দর্শনার্থীরাও সবাই একটু-আধটু উঁকি দিয়ে দেখছেন, আসলে কী চলছে! কারণ, বিশ্ববিদ্যালয়ে এমন ঘটনা খুব অল্পই হয়।

এ বিষয়ে অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে মিশকা জান্নাত মীম (কনে) বলেন, আমার বন্ধুদের এত সুন্দর আয়োজনে সত্যিই অনেক ভালো লাগছে। আমি কখনও ভাবেনি আমার বিয়ের জন্য আমার বন্ধুরা এত কষ্ট করে দিনটা স্মরণীয় করে রাখবে।আমার জীবনের শ্রেষ্ঠ একটি স্মরণীয় দিন হল এটা। তাদের এ আয়োজনে আমি বাকরুদ্ধ শুধু এতটুকুই বলবো।

0
You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. হোম
  2. ক্যাম্পাস
  3. বন্ধুরা কেউ যেতে পারবেনা তাই ক্যাম্পাসেই গায়ে হলুদ

বন্ধুরা কেউ যেতে পারবেনা তাই ক্যাম্পাসেই গায়ে হলুদ

জমকালো আয়োজনের মধ্য দিয়ে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) শিক্ষার্থী মিশকা জান্নাত মীম এর গায়ে হলুদ অনুষ্ঠিত হয়েছে। তিনি আল-ফিকহ এন্ড লিগ্যাল স্টাডিজ বিভাগের স্নাতক ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী। তিনি সিরাজগঞ্জ সদরের একজন সাধারণ মেয়ে।

জানা যায়, বৃহস্পতিবার বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের জিমনেশিয়ামের পাশে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। দুপুর হতে একজন দুইজন করে বন্ধুরা জমা হতে থাকেন মিশকার সহপাঠীরা। বিকেল হলে মিশকা এলে তার হাতে ও মুখে হলুদ লাগিয়ে দিয়েছেন তারা। এছাড়াও কেউ গান গেয়ে আনন্দঘন পরিবেশ সৃষ্টি করেছিলেন সেখানে। দৃশ্যটি ছিল দেখার মত।

মিশকা জান্নাত মীমের (কনে) সহপাঠীরা জানান, আগামী ২৩ ডিসেম্বর পারিবারিক ভাবে সিরাজগঞ্জের হাসিববুর রহমান হৃদয়ের সাথে বিয়ে হচ্ছে তাদের। হাসিববুর রহমান হৃদয় পেশায় সিনিয়র আর্টিস্ট ডিজাইনার। বর্তমানে ক্লাস ও পরিক্ষার চাপ অনেক বেশি তাই সবার পক্ষে বিয়েতে উপস্থিত হওয়া সম্ভব না এজন্য কয়েকজন বন্ধু-বান্ধবী মিলে একটা ছোট পরিসরে গায়ে হলুদ অনুষ্ঠান করেছি। তাছাড়া ক্যাম্পাসের গায়ে হলুদটা একটা ভিন্ন রকম আনন্দের বিষয়। এছাড়াও বান্ধবীর বিয়ের স্বরণীয় ও স্মৃতিময় রাখতে ক্যাম্পাসে এ আয়োজন বলে জানিয়েছেন তিনি। ভিন্নধর্মী এ আয়োজনে হতবাক অনেকেই। দর্শনার্থীরাও সবাই একটু-আধটু উঁকি দিয়ে দেখছেন, আসলে কী চলছে! কারণ, বিশ্ববিদ্যালয়ে এমন ঘটনা খুব অল্পই হয়।

এ বিষয়ে অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে মিশকা জান্নাত মীম (কনে) বলেন, আমার বন্ধুদের এত সুন্দর আয়োজনে সত্যিই অনেক ভালো লাগছে। আমি কখনও ভাবেনি আমার বিয়ের জন্য আমার বন্ধুরা এত কষ্ট করে দিনটা স্মরণীয় করে রাখবে।আমার জীবনের শ্রেষ্ঠ একটি স্মরণীয় দিন হল এটা। তাদের এ আয়োজনে আমি বাকরুদ্ধ শুধু এতটুকুই বলবো।

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন