বগুড়া ও যশোরে উপ-নির্বাচনের ভোটগ্রহণ চলছে

বগুড়া-১ ও যশোর-৬ আসনের উপ-নির্বাচনের ভোটগ্রহণ মঙ্গলবার (১৪ জুলাই) সকাল ৯টায় শুরু করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এই কার্যক্রম বিরতিহীভাবে চলবে বিকেল ৫টা পর্যন্ত।

করোনা মহামারির মধ্যে ভোটগ্রহণ করায় মানতে হচ্ছে স্বাস্থ্যবিধি। মাস্ক না পরলে কাউকেই ভোট দিতে দেয়া হবে না বলে জানিয়েছেন ইসি সচিব মো. আলমগীর।

এদিকে বন্যাকবলিত এলাকা বগুড়ার সারিয়াকান্দিতে সোমবার যমুনা নদীর পানি বেড়ে চারটি ভোটকেন্দ্র প্লাবিত হয়েছে। এসব কেন্দ্র সরিয়ে নিয়ে অস্থায়ী কেন্দ্র স্থাপনের কথা জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট রিটার্নিং কর্মকর্তা।

বগুড়া-১ আসনে মনোনয়নপত্র বাছাইয়ের পর আসনটির উপ-নির্বাচনের বৈধ ছয় প্রার্থীকে প্রতীক বরাদ্দ করেছিলেন রিটার্নিং কর্মকর্তারা। প্রার্থীরা হলেন- বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রার্থী সাবেক সংসদ সদস্য আবদুল মান্নানের সহধর্মিণী সাহাদারা মান্নান (নৌকা), বিএনপির একেএম আহসানুল তৈয়ব জাকির (ধানের শীষ), জাতীয় পার্টির মোকছেদুল আলম (লাঙ্গল), প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক দলের (পিডিপি) মো. রনি (বাঘ), বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের নজরুল ইসলাম (বটগাছ) ও স্বতন্ত্র ইয়াসির রহমতুল্লাহ ইন্তাজ (ট্রাক)।

এ নির্বাচনে মোট ৩ লাখ ১৭ হাজার ৫৬৯ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগের সুযোগ পাবেন। ভোটগ্রহণ করা হবে ১২২টি ভোটকক্ষে।

গত ১৮ জানুয়ারি সাবেক সংসদ সদস্য আবদুল মান্নান মারা গেলে আসনটি শূন্য ঘোষণা করে সংসদ সচিবালয়। এরপর শূন্য আসনে নির্বাচনের জন্য ১৬ ফেব্রুয়ারি তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন।

এদিকে, যশোর ৬ আসনের উপনির্বাচনে ২ লাখ ৩ হাজার ১৮ জন ভোটারের জন্য ৭৯টি ভোটকেন্দ্র প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

জেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, যশোর-৬ আসনে একটি পৌরসভা ও ১১টি ইউনিয়ন রয়েছে। এ আসনে মোট ভোটার সংখ্যা ২ লাখ ৩ হাজার ১৮ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার রয়েছেন ১ লাখ ২ হাজার ১২২ জন এবং নারী ভোটার রয়েছেন ১ লাখ ৮৯৬ জন। ভোট কেন্দ্রের সংখ্যা ৭৯। এ সব ভোট কেন্দ্রে ৭৯ জন প্রিজাইডিং অফিসার ও ৭৪৮ জন পোলিং অফিসার দায়িত্ব পালন করবেন।

সূত্রে জানা যায়, এ উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীক নিয়ে লড়ছেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদার। ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী হচ্ছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আবুল হোসেন আজাদ এবং জাতীয় পার্টির লাঙ্গল প্রতীকের প্রার্থী হচ্ছেন হাবিবুর রহমান হাবিব।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের ২১ জানুয়ারি যশোর-৬ (কেশবপুর) আসনের সংসদ সদস্য ও সাবেক জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদেক মারা গেলে পরবর্তীতে আসনটি শূন্য ঘোষণার পর উপ-নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। ২৯ মার্চ নির্বাচনের তারিখ নির্ধারিত থাকলেও তার এক সপ্তাহ আগে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে ২১ মার্চ নির্বাচন স্থগিত হয়ে যায়।