The Rising Campus
News Media
বৃহস্পতিবার, ২রা ফেব্রুয়ারি, ২০২৩

ফেসবুক গ্রুপ খুলে বাংলাদেশ ক্রিকেটকে ভালোবাসা জানাল আর্জেন্টিনা

আর্জেন্টিনা যতটা ফুটবলের দেশ, বাংলাদেশ ঠিক ততটাই ক্রিকেটের। সেদেশের ক্রীড়াপ্রেমিদের আশা আকাঙ্ক্ষার একটা বড় অংশ জুড়ে থাকেন লিওনেল মেসিরা, ঠিক তেমনি সাকিব আল হাসানদের নিয়ে বাংলার ক্রীড়ামোদিদের প্রত্যাশার পরিধিটা থাকে আকাশ-ছোঁয়া। বিশ্বমঞ্চে তাই সাকিব আল হাসানরাই বাংলাদেশের প্রতিনিধি। সেই সাকিবদেরই এবার সমর্থন জানিয়েছে আর্জেন্টিনা।

কাতার বিশ্বকাপ চলছে। আর্জেন্টিনা ফুটবল দল নিয়ে বাংলাদেশে উন্মাদনার শেষ নেই। বিশ্বকাপের আগে পতাকা-যজ্ঞ, কাতারের বুকে ফুটবলের মহাযুদ্ধ যখন শুরু হলো, তখন সে উৎসাহটা কেবল বেড়েছেই।

মেসিদের জন্য বাংলাদেশিদের এমন উন্মাদনার কথা এতদিন কেবল দেশেই সীমাবদ্ধ ছিল। তবে আন্তর্জালের যুগে সেসব আর দেশ, কাল, সীমানার গণ্ডিতে আটকে থাকেনি। সেসব এখন চোখে পড়ছে আর্জেন্টাইনদেরও।

কাজটা প্রথম করেছে ফিফা। মেসিদের মেক্সিকো-জয়ে বাংলাদেশি আকাশি-সাদা সমর্থকদের উল্লাসের দৃশ্য তাদের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেই প্রকাশ পেয়েছিল প্রথম। এরপর তো আর্জেন্টিনার পেশাদার ফুটবল লিগের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেখা গেল পিলে চমকে ওঠার মতো এক দৃশ্যই, মেসির হাতে দেখা গেল বাংলাদেশের পতাকা! না, মেসি নিজে লাল সবুজের পতাকা নিয়ে উদযাপন করেননি, সে ছবিটা ফটোশপ করেই বসিয়ে দেওয়া হয়েছিল তার হাতে। তবে সেই এক ছবিতেই বোঝা হয়ে গেছে, আর্জেন্টাইনরা মেসিদের প্রতি বাংলাদেশের এমন ভালোবাসার কথা জেনে গেছেন ভালোভাবেই।

এরপর অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে নকআউটের প্রথম ম্যাচের আগে কোচ লিওনেল স্ক্যালোনির সংবাদ সম্মেলনের আগেও উঠে এলো বাংলাদেশ প্রসঙ্গ। স্ক্যালোনি বললেন, ‘দিয়োগোর (ম্যারাডোনা) অসংখ্য সমর্থক ছিল। এখন মেসিরও আছে। তাদের মাধ্যমে আর্জেন্টিনাকে ভালোবাসে অনেক দেশ, বাংলাদেশ এর মধ্যে অন্যতম। এটা আসলেই দারুণ এক অনুভূতি। আমাদের ফুটবল বিশ্বের নানা প্রান্তের মানুষ ভালেবাসে। বাংলাদেশকে ধন্যবাদ।’

আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও এরপর ধন্যবাদ জানানো হয়েছে বাংলাদেশকে। এখানেই শেষ নয়, আর্জেন্টাইন আপামর জনতার বুকেও ঠাই পেয়ে গেছে বাংলাদেশের নাম। বাংলাদেশি এক সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে জনৈক আর্জেন্টাইন তো বলেও দিয়েছেন, বাংলাদেশ যদি কখনো ফুটবল বিশ্বকাপে খেলে, তাহলে আর্জেন্টিনার আকুণ্ঠ সমর্থন পাবে লাল সবুজের প্রতিনিধিরা!

এরই ধারাবাহিকতায় এবার আর্জেন্টাইনদের আরও এক ভালোবাসা পেল বাংলাদেশ। বাংলাদেশের শীর্ষ খেলা ক্রিকেটকে ভালোবাসা জানিয়েছেন আর্জেন্টাইনরা। সাকিব আল হাসানদের সমর্থনে একটা ফেসবুক গ্রুপই খুলে বসেছেন ১৭ হাজার কিলোমিটার দূরের মেসির দেশের মানুষেরা।

বাংলাদেশ ক্রিকেটের সমর্থনে ফ্যানস আর্হেন্তিনোস দে লা সিলেকসিয়ন দে ক্রিকেট দে বাংলাদেশ নামে খোলা হয়েছে এক ফেসবুক গ্রুপ। বাংলায় যার অর্থ দাঁড়ায়, বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের আর্জেন্টাইন সমর্থক। গ্রুপটা খুলেছেন আর্জেন্টাইন ড্যান ল্যান্ডে। গ্রুপটা খুলেই তিনি বাংলায় অভ্যর্থনা জানিয়েছেন সবাইকে। লিওনেল মেসিদের সমর্থনের জন্য ধন্যবাদও জানানো হয়েছে গ্রুপ থেকে। এরপর বাংলায় কথা বলার চেষ্টা, বাংলা লেখার চেষ্টাও দেখা গেছে গ্রুপের একাধিক পোস্টে।

গতকাল রোববার বাংলাদেশ ক্রিকেট দল মুখোমুখি হয়েছিল ভারতের। এর আগে থেকেই সেই গ্রুপে আর্জেন্টাইনদের বাংলাদেশ দলের প্রতি সমর্থন চোখে পড়েছে। এরপর যখন মেহেদি হাসান মিরাজের রুদ্ধশ্বাস ১ উইকেটের জয় তুলে নিয়েছে বাংলাদেশ, তখন তাদের উল্লাসও দেখা গিয়েছে সেই গ্রুপে।

শুধু আর্জেন্টাইনরাই নন, সেই গ্রুপের সদস্য হয়েছেন, হচ্ছেন বাংলাদেশিরাও। গ্রুপ খোলার পর থেকে এ পর্যন্ত ৫১ হাজারের কাছাকাছি ফেসবুক ব্যবহারকারী যোগ দিয়েছেন গ্রুপটিতে।

0
You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

  1. হোম
  2. খেলাধুলা
  3. ফেসবুক গ্রুপ খুলে বাংলাদেশ ক্রিকেটকে ভালোবাসা জানাল আর্জেন্টিনা

ফেসবুক গ্রুপ খুলে বাংলাদেশ ক্রিকেটকে ভালোবাসা জানাল আর্জেন্টিনা

আর্জেন্টিনা যতটা ফুটবলের দেশ, বাংলাদেশ ঠিক ততটাই ক্রিকেটের। সেদেশের ক্রীড়াপ্রেমিদের আশা আকাঙ্ক্ষার একটা বড় অংশ জুড়ে থাকেন লিওনেল মেসিরা, ঠিক তেমনি সাকিব আল হাসানদের নিয়ে বাংলার ক্রীড়ামোদিদের প্রত্যাশার পরিধিটা থাকে আকাশ-ছোঁয়া। বিশ্বমঞ্চে তাই সাকিব আল হাসানরাই বাংলাদেশের প্রতিনিধি। সেই সাকিবদেরই এবার সমর্থন জানিয়েছে আর্জেন্টিনা।

কাতার বিশ্বকাপ চলছে। আর্জেন্টিনা ফুটবল দল নিয়ে বাংলাদেশে উন্মাদনার শেষ নেই। বিশ্বকাপের আগে পতাকা-যজ্ঞ, কাতারের বুকে ফুটবলের মহাযুদ্ধ যখন শুরু হলো, তখন সে উৎসাহটা কেবল বেড়েছেই।

মেসিদের জন্য বাংলাদেশিদের এমন উন্মাদনার কথা এতদিন কেবল দেশেই সীমাবদ্ধ ছিল। তবে আন্তর্জালের যুগে সেসব আর দেশ, কাল, সীমানার গণ্ডিতে আটকে থাকেনি। সেসব এখন চোখে পড়ছে আর্জেন্টাইনদেরও।

কাজটা প্রথম করেছে ফিফা। মেসিদের মেক্সিকো-জয়ে বাংলাদেশি আকাশি-সাদা সমর্থকদের উল্লাসের দৃশ্য তাদের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেই প্রকাশ পেয়েছিল প্রথম। এরপর তো আর্জেন্টিনার পেশাদার ফুটবল লিগের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেখা গেল পিলে চমকে ওঠার মতো এক দৃশ্যই, মেসির হাতে দেখা গেল বাংলাদেশের পতাকা! না, মেসি নিজে লাল সবুজের পতাকা নিয়ে উদযাপন করেননি, সে ছবিটা ফটোশপ করেই বসিয়ে দেওয়া হয়েছিল তার হাতে। তবে সেই এক ছবিতেই বোঝা হয়ে গেছে, আর্জেন্টাইনরা মেসিদের প্রতি বাংলাদেশের এমন ভালোবাসার কথা জেনে গেছেন ভালোভাবেই।

এরপর অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে নকআউটের প্রথম ম্যাচের আগে কোচ লিওনেল স্ক্যালোনির সংবাদ সম্মেলনের আগেও উঠে এলো বাংলাদেশ প্রসঙ্গ। স্ক্যালোনি বললেন, ‘দিয়োগোর (ম্যারাডোনা) অসংখ্য সমর্থক ছিল। এখন মেসিরও আছে। তাদের মাধ্যমে আর্জেন্টিনাকে ভালোবাসে অনেক দেশ, বাংলাদেশ এর মধ্যে অন্যতম। এটা আসলেই দারুণ এক অনুভূতি। আমাদের ফুটবল বিশ্বের নানা প্রান্তের মানুষ ভালেবাসে। বাংলাদেশকে ধন্যবাদ।’

আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও এরপর ধন্যবাদ জানানো হয়েছে বাংলাদেশকে। এখানেই শেষ নয়, আর্জেন্টাইন আপামর জনতার বুকেও ঠাই পেয়ে গেছে বাংলাদেশের নাম। বাংলাদেশি এক সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে জনৈক আর্জেন্টাইন তো বলেও দিয়েছেন, বাংলাদেশ যদি কখনো ফুটবল বিশ্বকাপে খেলে, তাহলে আর্জেন্টিনার আকুণ্ঠ সমর্থন পাবে লাল সবুজের প্রতিনিধিরা!

এরই ধারাবাহিকতায় এবার আর্জেন্টাইনদের আরও এক ভালোবাসা পেল বাংলাদেশ। বাংলাদেশের শীর্ষ খেলা ক্রিকেটকে ভালোবাসা জানিয়েছেন আর্জেন্টাইনরা। সাকিব আল হাসানদের সমর্থনে একটা ফেসবুক গ্রুপই খুলে বসেছেন ১৭ হাজার কিলোমিটার দূরের মেসির দেশের মানুষেরা।

বাংলাদেশ ক্রিকেটের সমর্থনে ফ্যানস আর্হেন্তিনোস দে লা সিলেকসিয়ন দে ক্রিকেট দে বাংলাদেশ নামে খোলা হয়েছে এক ফেসবুক গ্রুপ। বাংলায় যার অর্থ দাঁড়ায়, বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের আর্জেন্টাইন সমর্থক। গ্রুপটা খুলেছেন আর্জেন্টাইন ড্যান ল্যান্ডে। গ্রুপটা খুলেই তিনি বাংলায় অভ্যর্থনা জানিয়েছেন সবাইকে। লিওনেল মেসিদের সমর্থনের জন্য ধন্যবাদও জানানো হয়েছে গ্রুপ থেকে। এরপর বাংলায় কথা বলার চেষ্টা, বাংলা লেখার চেষ্টাও দেখা গেছে গ্রুপের একাধিক পোস্টে।

গতকাল রোববার বাংলাদেশ ক্রিকেট দল মুখোমুখি হয়েছিল ভারতের। এর আগে থেকেই সেই গ্রুপে আর্জেন্টাইনদের বাংলাদেশ দলের প্রতি সমর্থন চোখে পড়েছে। এরপর যখন মেহেদি হাসান মিরাজের রুদ্ধশ্বাস ১ উইকেটের জয় তুলে নিয়েছে বাংলাদেশ, তখন তাদের উল্লাসও দেখা গিয়েছে সেই গ্রুপে।

শুধু আর্জেন্টাইনরাই নন, সেই গ্রুপের সদস্য হয়েছেন, হচ্ছেন বাংলাদেশিরাও। গ্রুপ খোলার পর থেকে এ পর্যন্ত ৫১ হাজারের কাছাকাছি ফেসবুক ব্যবহারকারী যোগ দিয়েছেন গ্রুপটিতে।

পাঠকের পছন্দ

মন্তব্য করুন