প্রতিমন্ত্রীর সারপ্রাইজ কল, কম্পিউটার ল্যাব পেল স্কুল ও মাদ্রাসা

‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব কুইজ’-এর ‘শেয়ার করেও জিতুন’ ফেসবুক লাইভ অনুষ্ঠানে এবার সারপ্রাইজ কল করেছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। গতকাল মঙ্গলবার রাতে তাঁর লাইভ অনুষ্ঠানেই একটি স্কুল ও একটি মাদ্রাসা পেয়েছে একটি কম্পিউটার ল্যাব।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব কুইজে বাবার মোবাইল ফোন দিয়ে অংশ নেয় তৃতীয় পর্বের ‘লাইভ লটারি’র বিজয়ী দিনাজপুরের ষষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থী রিমন। মঙ্গলবার রাতে তাকে অভিনন্দন জানানোর জন্য সরাসরি ফোন করেন জুনাইদ আহমেদ পলক। প্রতিমন্ত্রী রিমনের কাছে জানতে চান, পুরস্কার হিসেবে কী পেলে সে খুশি হবে। রিমন নির্দিষ্ট কোনো পুরস্কার না চাইলে প্রতিমন্ত্রী তাকে একটি ল্যাপটপ দেওয়ার ঘোষণা দেন। রিমনের স্কুলশিক্ষক বাবার সঙ্গে কথা বলার সময় জুনাইদ আহমেদ পলক জানতে পারেন তার স্কুলে এখনো শেখ রাসেল ডিজিটাল কম্পিউটার ল্যাব প্রতিষ্ঠা করা হয়নি।

এটা জানার পর প্রতিমন্ত্রী সঙ্গে সঙ্গেই দিনাজপুরের খানসামা উপজেলার আকবর আলী শাহ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের জন্য একটি শেখ রাসেল ডিজিটাল কম্পিউটার ল্যাব প্রতিষ্ঠার প্রতিশ্রুতি দেন। একইভাবে লটারিতে সিলেটের জকিগঞ্জের কসনকপুর গাজির মোকাম দাখিল মাদ্রাসার শিক্ষার্থী শাহেদ আহমেদকেও ল্যাপটপ দেওয়ার ঘোষণা দেন পলক। প্রতিমন্ত্রী সারপ্রাইজ কলে শাহেদ আহমেদের মাদ্রাসায়ও শেখ রাসেল ডিজিটাল কম্পিউটার ল্যাব স্থাপনের আশ্বাস দেন। তৃতীয় সপ্তাহের ‘লাইভ লটারি’র প্রথম বিজয়ী হয়েছেন ঢাকার মেয়ে নিশাত তাসনিম।

প্রতিমন্ত্রীর ফোন পেয়ে খুশিতে নিশাত বলেন, ‘আমার খুবই ভালো লাগছে। আমি প্রতিদিন কুইজে অংশ নিচ্ছি। আজ অনেক ভালো লাগছে।’ জুনাইদ আহমেদ পলক বিজয়ীর কাছে জানতে চান, কুইজে বিজয়ী হিসেবে কী চাওয়া তার। উত্তরে নিশাত বলেন, ‘আমি আসলে বাক্যহারা। আমার একটি ভালো স্মার্টফোন লাগবে।’

এদিকে রিমন, শাহেদ, নিশাত ছাড়াও ‘শেয়ার করেও জিতুন’-এর তৃতীয় পর্বে বিজয়ী হন যশোর থেকে শাকিল আহমেদ, সাতক্ষীরা থেকে ওসমান খান, ভোলা থেকে রিয়াদ মাহমুদ, চট্টগ্রামের শ্রাবণী দাস। প্রিয় ডটকমের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) জাকারিয়া স্বপনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানটি সরাসরি সম্প্রচারিত হয় প্রতিষ্ঠানটির ফেসবুক পেজে।