পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ১০ হাজার কোটির বাজেট

দেশের ৪৯টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য ২০২১-২২ অর্থবছরে ১০ হাজার ৩২ কোটি ৮১ লাখ টাকার বাজেট অনুমোদন করেছে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন। এর মধ্যে ৫ হাজার ৮৭৫ কোটি ৮১ লাখ টাকার রাজস্ব বাজেট এবং ৪ হাজার ১৫৭ কোটি টাকার উন্নয়ন বাজেট রয়েছে।

ইউজিসি চেয়ারম্যান অধ্যাপক কাজী শহীদুল্লাহর সভাপতিত্বে ১৬০তম কমিশন সভায় ১৭ জুন এ বাজেট অনুমোদিত হয়। সভার কার্যপত্র ও বাজেট উপস্থাপন করেন ইউজিসি সচিব (অতিরিক্ত দায়িত্ব) ফেরদৌস জামান।

গত অর্থবছরে ৪৬টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুকূলে বাজেটে বরাদ্দের পরিমাণ ছিল ৮ হাজার ৪৮৫ কোটি ১২ লাখ টাকা। সে হিসাবে, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য এ বছর বরাদ্দ বেড়েছে প্রায় ১ হাজার ৫৪৮ কোটি টাকা। ২০২১-২২ অর্থবছরে সবচেয়ে বেশি রাজস্ব বাজেট পেয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এবং সবচেয়ে কম বাজেট পেয়েছে সদ্য কার্যক্রম শুরু হওয়া হবিগঞ্জ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়।

উচ্চশিক্ষায় পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর গবেষণার জন্য ২০২১-২২ অর্থবছরে মূল বাজেটে ১০০ কোটি ৭৪ লাখ বরাদ্দ ধরা হয়েছে। গত বছরের তুলনায় বাজেটে এ খাতে বরাদ্দ ৩৪ কোটি টাকা বৃদ্ধি করা হয়েছে। গত ২০২০-২১ অর্থবছরে গবেষণায় মূল বাজেটে ৬৬ কোটি ৬৫ লাখ বরাদ্দ ধরা হয়েছিল। এ ছাড়া কমিশন ২০২১-২২ অর্থবছরে ইউজিসির জন্য ৬১ কোটি ৩৬ লাখ টাকার বাজেট অনুমোদন করেছে। এর মধ্যে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণার জন্য ১৮ কোটি টাকা বাজেট বরাদ্দ ধরা হয়েছে, যা গত বছরের চেয়ে ৩ কোটি টাকা বেশি।

গবেষণা খাতে অধিক বরাদ্দ বিষয়ে ইউজিসি চেয়ারম্যান বলেন, বাংলাদেশ এখন উন্নয়নশীল দেশ। ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে উন্নত দেশের কাতারে স্থান দিতে সরকার প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রেখে দেশকে এগিয়ে নিতে হলে গুণগত শিক্ষা ও গবেষণার মাধ্যমে নতুন জ্ঞান সৃজন করতে হবে। এ লক্ষ্য পূরণে ইউজিসি দেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণা খাতে উল্লেখযোগ্য হারে বাজেট বৃদ্ধি করেছে। বিশ্ববিদ্যালয়গুলো মৌলিক ও প্রায়োগিক গবেষণায় এ অর্থ যথাযথভাবে ব্যয় করতে পারলে উচ্চশিক্ষা ও গবেষণায় কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্য অর্জিত হবে এবং বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে সম্মানজনক স্থান অর্জন সম্ভব হবে।

সভায় ইউজিসি সদস্য অধ্যাপক ড. দিল আফরোজা বেগম, অধ্যাপক ড. মো. সাজ্জাদ হোসেন, অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ আলমগীর, অধ্যাপক ড. বিশ্বজিৎ চন্দ, অধ্যাপক ড. মো. আবু তাহের, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, কুষ্টিয়ার উপাচার্য শেখ আবদুস সালাম, চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও অ্যানিমেল সায়েন্সেস ইউনিভার্সিটির উপাচার্য গৌতম বুদ্ধ দাস, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য এ কিউ এম মাহবুব, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন স্কুলের ডিন মো. ওয়ালিউল হাসানাত, সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিসম্পদ উৎপাদন ও ব্যবস্থাপনা বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. আবদুল বাসেত, বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েট প্রসেস ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. জুলহাস উদ্দিন, পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য (আর্থসামাজিক অবকাঠোমো) যুক্ত ছিলেন।

সভায় ১৫৯তম কমিশন সভার কার্যবিবরণী অনুমোদন, গৃহীত বিভিন্ন সিদ্ধান্তের বাস্তবায়ন অগ্রগতি পর্যালোচনা ও ইউজিসিতে কর্মরতদের জন্য করপোরেট গ্যারান্টির আওতায় জনতা ব্যাংক লিমিটেড কর্তৃক সাধারণ গৃহ নির্মাণে ঋণ মঞ্জুরি নীতিমালা অনুমোদন করা হয়।