নয়াদিল্লির শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলছে, খুলবে কোচিং সেন্টারও

করোনাভাইরাসের কারণে প্রায় পাঁচ মাস বন্ধ থাকার পর আগামীকাল বুধবার (১ সেপ্টেম্বর) থেকে ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লির স্কুল-কলেজ খুলছে। এর সঙ্গে খুলবে কোচিং সেন্টারগুলোও।

কেন্দ্রীয় সরকারের সিদ্ধান্তের পর দিল্লির দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ (ডিডিএমএ) গতকাল সোমবার (৩০ আগস্ট) শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার কিছু নীতিমালা ঘোষণা করেছে। নীতিমালার মধ্য রয়েছে জরুরি ব্যবহারের জন্য কোয়ারেন্টিনকক্ষ চালু করা, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা, সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতের জন্য ছোট ছোট দলে বিভক্ত হয়ে দুপুরের খাবারের ব্যবস্থা করা।

ডিডিএমএর প্রকাশিত নীতিমালা অনুযায়ী, লকডাউন জোনে থাকা ছাত্র-শিক্ষকেরা ক্লাসে আসতে পারবেন না। এ ছাড়া, সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করার জন্য বিভিন্ন উদ্যোগ নেওয়া হবে স্কুলে। নির্দিষ্ট দিনে সর্বোচ্চ ৫০ শতাংশের বেশি শিক্ষার্থী ক্লাসে আসতে পারবে না। বিষয়টি মাথায় রেখে স্কুলগুলোকে রুটিন তৈরি করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এর আগে দিল্লির আম আদমি পার্টি (এএপি) সরকার ঘোষণা দিয়েছিল, স্কুল ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো ১ সেপ্টেম্বর থেকে পর্যায়ক্রমে খুলবে। প্রথম পর্যায়ে সরকারি ও বেসরকারি স্কুলের নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীরা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে যেতে পারবে। কোচিং সেন্টারের ক্ষেত্রেও একই নিয়ম প্রযোজ্য হবে। তবে, প্রথম থেকে অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এখনই আসতে হবে না।

গত বছরের মার্চ থেকে দিল্লির স্কুলগুলো বন্ধ আছে। এ বছরের জানুয়ারিতে অল্প সময়ের জন্য ক্লাস খোলা হলেও করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে তা আবার বন্ধ করে দেওয়া হয়। তথ্যসূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস