নুর-মামুনদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে: পুলিশ

বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ, সহায়তা ও হুমকি প্রদানের অভিযোগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সাবেক সহ-সভাপতি (ভিপি) নুরুল হক নুরসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলা করেছেন এই বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন ছাত্রী। রবিবার (২০ সেপ্টেম্বর) রাতে রাজধানীর লালবাগ থানায় ইসলামিক স্টাডিজের স্নাতকোত্তরের ওই ছাত্রী এ মামলাটি দায়ের করেন।

আজ সোমবার (২১ সেপ্টেম্বর) বিকেলে ওই মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও লালবাগ থানার ইনস্পেক্টর মুহা. আসলাম উদ্দিন মোল্লা বলেন, রবিবার রাতে ধর্ষণের অভিযোগ এনে এক ছাত্রী ৬ জনের নামে মামলা করেছেন। যেহেতু মামলাটি তদন্তাধীন রয়েছে তাই বিস্তারিত কিছু বলা যাচ্ছে না। তবে এ ঘটনায় আসামীদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

মামলার প্রাথমিক তথ্য বিবরণী ও এজহার থেকে জানা গেছে, চলতি বছরের ৩ জানুয়ারি দুপুরে রাজধানীর নবাবগঞ্জ রোডের একটি বাসায় নিয়ে ধর্ষণ করা হয়। এ মামলার প্রধান আসামি হলেন- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের স্নাতকোত্তর উত্তীর্ণ হাসান আল মামুন, যিনি কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনকারীদের প্ল্যাটফর্ম বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের আহ্বায়কের দায়িত্বে রয়েছেন।

আসামিদের তালিকায় সহযোগী হিসেবে ডাকসু ভিপি ও বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক নূরের সঙ্গে একই সংগঠনে যুক্ত নাজমুল হাসান সোহাগ, সাইফুল ইসলাম, নাজমুল হুদা ও আবদুল্লাহ হিল বাকির নামও রয়েছে। এরা সবাই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী বলে মামলার প্রাথমিক তথ্য বিবরণী থেকে জানা গেছে।

এ ব্যাপারে লালবাগ থানার ওসি কে এম আশরাফ উদ্দিন জানান, হাসান আল মামুন বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করেছেন বলে মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে। তার সাথে আরও পাঁচজনকে সহযোগী হিসেবে আসামি করা হয়েছে, যাদের মধ্যে নুর তিন নম্বর।

আরোও পড়ুন: ভিপি নূরের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা