নিজের নামে বিদ্যুৎ প্রকল্পে প্রধানমন্ত্রীর আপত্তি

জামালপুরের মাদারগঞ্জে দেশের সর্ববৃহৎ সৌর বিদ্যুৎ কেন্দ্র নিজের নামে করতে আপত্তি জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রী খুবই দৃঢ়ভাবে বলেন, না এখানে আমার নাম হবে না, আপনারা অবশ্যই এই নাম পরিবর্তন করবেন।

আজ মঙ্গলবার (১০ আগস্ট) একনেক সভার পর পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান সাংবাদিকদের একথা জানান। প্রধানমন্ত্রী এই প্রকল্পের নাম ‘সোলার পাওয়ার মাদারগঞ্জ’ রাখার পরামর্শ দেন।

এদিনের সভায় পরিবেশসম্মত বিদ্যুৎ উৎপাদনের মাধ্যমে কার্বন নিঃসরণ কমাতে জামালপুরের মাদারগঞ্জে ১০০ মেগাওয়াট ক্ষমতার ‘শেখ হাসিনা সোলার পার্ক’ প্রকল্পটি উঠেছিল। সৌর বিদ্যুৎ খাতে দেশের সবচেয়ে বড় এই প্রকল্প অনুমোদনও হয়।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, প্রধানন্ত্রী বলেছেন, এখানে আমার নাম থাকবে না’। তখন সদস্যরা তাকে অনেক বিনয়ের সঙ্গে বলেছেন যে এদেশের পরিবেশ রক্ষায় সৌর বিদ্যুতের প্রয়োজনে আপনিই উদ্যোগ নিয়েছেন। আপনি এই সেক্টরে লিড দিচ্ছেন। এটা একটা আইকনিক প্রকল্প হবে, তাই এই প্রকল্পটা আপনার নামে হওয়া উচিৎ। তিনি (প্রধানমন্ত্রী) খুবই দৃঢ়ভাবে বলেন, ‘না এখানে আমার নাম হবে না, আপনারা অবশ্যই এই নাম পরিবর্তন করবেন’।

পরিকল্পনামন্ত্রী আরও বলেন, এই নাম বঙ্গবন্ধু ট্রাস্ট থেকে অনুমোদিত বলে প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করা হয়। তখন প্রধানমন্ত্রী বলেন, প্রয়োজনে আমি তাদের সঙ্গে কথা বলব। প্রধানমন্ত্রী এই প্রকল্পের নাম ‘সোলার পাওয়ার মাদারগঞ্জ’ রাখার পরামর্শ দেন বলে জানান মন্ত্রী।

জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় ভার্চুয়ালি যুক্ত হন প্রধানমন্ত্রী। বৈঠক শেষে ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে আসেন পরিকল্পনামন্ত্রী মান্নান, প্রতিমন্ত্রী শামসুল আলম ও পরিকল্পনা বিভাগের সচিব মো. জয়নুল বারী।

পরিকল্পনামন্ত্রী জানান, সৌর বিদ্যুৎ প্রকল্পটিতে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে প্রায় ১ হাজার ৫১২ কোটি টাকা। এর মধ্যে সরকারের নিজস্ব তহবিল থেকে ৩১৯ কোটি টাকা দেওয়া হবে। ভারতীয় ঋণ থেকে জোগান দেওয়া হবে প্রায় ১ হাজার ১১৬ কোটি টাকা। সংস্থার নিজস্ব তহবিল থেকে প্রায় ৭৭ কোটি টাকা আসবে। রুরাল পাওয়ার কোম্পানি লিমিটেড (আরপিসিএল) আগামী ২০২৩ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে প্রকল্পটি শেষ করবে।