ধূমপান ছাড়ার সহজ উপায়

ধূমপান স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর এটি প্রায় সব লোকেই জানে। মানুষ বিভিন্ন ‍উপায়ে ধূমপানে আসক্ত হয়। কিন্তু এটিতে আসক্ত হওয়া যত সহজ হঠাৎ করে ছেড়ে দেওয়াটা ততই কঠিণ একটা কাজ। অনেকে ধূমপান ছাড়ার জন্য বহু চেষ্টা করার পরও ধূমপান ছাড়তে পারেন না। তবে কিছু নিয়ম অনুসরণ করলে ধূমপান ছেড়ে দেওয়া আপনার জন্য কিছুটা সহজ হবে। তাহলে চলুন ধূমপান ছাড়ার কিছু উপায় জেনে নেই।

> প্রিয় কোন কাজে ব্যাস্ত থাকুন: যেকাজগুলো করতে আপনার ভীষণ ভাল লাগে এমন প্রিয় কোন কাজে সময় কাটাতে পারেন। এতে ধূপমান ত্যাগ করার পর এটির প্রতি আপনার মনোযোগ কিছুটা হলেও দূরে সরে যাবে। অন্তত কয়েক সপ্তাহ এভাবে নিজেকে ব্যস্ত রাখতে পারেন। বিশেষ করে পরিবার ও বন্ধুদের সঙ্গে সময় কাটান। মনে রাখবেন আপনি যত বেশি ব্যস্ত থাকবেন ধূমপানের তাড়না ভুলে থাকা ততটাই সহজ হবে।

> প্রচুর পানি পান করুন: সিগারেট খেতে খেতে চেইন আসক্ত হয়ে পড়লে শরীরে নিকোটিন রক্তে পর্যন্ত চলে যায়। এ কারণে ধূমপান ছাড়াটা কষ্টকর হয়ে যায়। এক্ষেত্রে পানি দারুন কাজে দেয়। কেননা শরীরে জমতে থাকা এসব নিকোটিন ও অন্যান্য রাসায়নিক পদার্থ বের করে দিতে পানি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

> ঘনঘন দাঁত মাজতে পারেন: ধূমপান ছেড়ে দেওয়ার তাৎক্ষনিক উপকারগুলোর মধ্যে অন্যতম হল মুখের স্বাদ বেড়ে যাওয়া এবং দুর্গন্ধ উধাও হওয়া। তাই ঘনঘন দাঁত মাজতে পারেন। এতে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন মুখে ধূমপান করার তাড়নাও কমে আসবে।

> পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকুন: বাড়িঘর পরিষ্কার রাখুন। মাদুর, গৃহসজ্জার সামগ্রী ও নিজের পোশাক ধুয়ে ফেলুন। যাতে ধূমপান ছাড়ার পর কোনো কিছুতেই সিগারেটের গন্ধ পাওয়া না যায়। এতে খুব প্রাণবন্ত অনুভব করবেন। সিগারেটের কথাও মাথায় কম আসবে।

> প্রিয়জনকে স্মরণ করুন: ধূমপানের আসক্তি মাথায় চেপে বসলে প্রিয়জনকে বেশি বেশি স্মরণ করুন। মনে করুন আপনি প্রিয়জনদের সঙ্গেই সময় কাটাচ্ছেন। তাদের সঙ্গে কাটানো প্রিয় কোন মুহুর্ত স্মরণ করার চেষ্টা করুন। একা থাকলে ধরে নিবেন, প্রিয়জন ও শুভাকাঙ্ক্ষীরা সবসময় আপনার পাশেই আছেন।

> নিয়মিত ব্যায়াম করুন: এই আসক্তি থেকে নিজেকে দূরে সরিয়ে রাখার জন্য নিয়মিত ব্যায়াম করার দিকে মনোযোগ দিতে পারেন। এতে আপনার শরীর ও মন দুটিই ভাল থাকবে। এছাড়া আপনার স্বাস্থ্যও ঠিক থাকবে।

> পরিবার ও বন্ধুদের সহায়তা নিন: নিকোটিনের আসক্তি ছেড়ে দিতে চাইলে পরিবারের সদস্য ও বন্ধুরা যদি এগিয়ে আসে তাহলে আসক্ত হয়ে পড়া ব্যাক্তির জন্য কাজটি করা সহজ হয়।

> অধূমপায়ী বন্ধুদের সঙ্গে বেশি মিশুন: ধূমপান ছাড়ার অন্যতম উপায় হচ্ছে যেসব বন্ধুরাঅধূমপায়ী তাদের সঙ্গে চলাফেরা বাড়িয়ে দেওয়া। প্রয়োজনে ধূমপান পছন্দ করেন না- এমন বন্ধু কিংবা বান্ধবীর সঙ্গেও সময় কাটাতে পারেন।

> রুটিন পরিবর্তন করুন: দিনের যে সময়গুলোতে সিগারেট খাওয়ার অভ্যাস আছে সেই সময়গুলোর রুটিন পাল্টে নিজেকে অন্য কাজে নিয়োজিত করুন। ধূমপান ছাড়তে এটি আপনাকে খুব সহায়তা করবে।

> ধুমপানের বিকল্প স্বাস্থ্যসম্মত খাবার খান: অনেকে সিগারেটের বিকল্প হিসেবে চকলেট খাওয়া আরম্ভ করে। তবে এটি কখনোই স্বাস্থ্যসম্মত নয়। সিগারেটের বিকল্প হিসেবে চুইংগাম খাওয়াও কিন্তু স্বাস্থ্যকর খাবার নয়। এজন্য বিভিন্ন তাজা ফল-মূল ও শাঁক-সবজি খেতে পারেন।