দেশে আর নতুন কোভিড হাসপাতাল নয়, ‘বন্ধ হচ্ছে’ বিশেষায়িত সেবাও

দেশে নতুন করে আর কোনো কোভিড হাসপাতাল চালু হবে না। রোগী না থাকায় প্রাথমিকভাবে এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর। আগামী ২ সপ্তাহ পর্যবেক্ষণের পর বর্তমান হাসপাতালগুলোতে বিশেষায়িত সেবাও বন্ধ হয়ে যেতে পারে। যদিও চিকিৎসা নিতে আসা মানুষের দাবি, এখনও শয্যা সঙ্কটে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে তাদের। আর তড়িঘড়ি সিদ্ধান্ত না নেয়ার পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের।

দেশে নমুনা পরীক্ষা অনুযায়ী শনাক্তের হার ২০ ভাগের নিচে নামেনি এখনও। এমন সময়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরের দাবি, সরকারি-বেসরকারি ২৮টি কোভিড হাসপাতালে অর্ধেক আইসিইউ এবং দুই-তৃতীয়াংশ শয্যা খালি। আর তাই নতুন করে কোন কোভিড হাসপাতাল চালু না করার সিদ্ধান্ত নিচ্ছে অধিদফতর। এমনকি রাজধানীর ডিএনসিসি মার্কেট ভবনে প্রস্তাবিত ১৫শ’ শয্যার কোভিড হাসপাতালটিও চালু হচ্ছে না।

স্বাস্থ্য অধিদফতর হাসপাতাল বিভাগ পরিচালক আমিনুল ইসলাম বলেন, সিদ্ধান্ত হচ্ছে, আমাদের সেরকম কেস না থাকে তাহলে হয়তো হাসপাতালের সংখ্যা বাড়ানো হবে না। আগামী সপ্তাহ দেখে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

যদিও হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসা নিতে আসা মানুষের বক্তব্যের সাথে মেলে না এই খতিয়ান। আর জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কোভিড হাসপাতাল নিয়ে অধিদফতরের সিদ্ধান্ত নিয়ে আরো আলোচনা প্রয়োজন।

অধ্যাপক বেনজির আহমেদ বলেন, কোভিড হাসপাতালে ব্যবস্থাপনাগত যেসব সমস্যা সেগুলোর কারণে অনেকে কোভিড হওয়া সত্ত্বেও হাসপাতাল যাচ্ছে না সেটা আসলে ভালো নয়।

দেশে করোনার আক্রান্তের সংখ্যা এখন দুই লাখ ছুঁই ছুঁই।