তৃতীয় গণবিজ্ঞপ্তির সুপারিশ করে যেতে চান এনটিআরসিএ চেয়ারম্যান

গত বছরের ১৪ ডিসেম্বর বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষের (এনটিআরসিএ) চেয়ারম্যান হিসেবে নিয়োগ পান গভর্নমেন্ট ইনোভেশন ইউনিটের মহাপরিচালক মো. আশরাফ উদ্দিনকে। এনটিআরসিএতে যোগদান করে মৌখিক পরীক্ষা নিয়ে আলোচনা আসেন তিনি। এর পর দীর্ঘ প্রায় দুই বছর ধরে জট লেগে থাকা শিক্ষক নিয়োগের তৃতীয় গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেন। এর ফলে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে ৫৪ হাজারেরও বেশি শিক্ষকের শূন্যপদ পূরণ হতে যাচ্ছে।

তবে গত শুক্রবার (২৩ এপ্রিল) মো. আশরাফ উদ্দিনকে এনটিআরসিএ থেকে বদলি করে পরিবেশ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক হিসেবে নিয়োগ দেয় জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। এর ফলে গণবিজ্ঞপ্তিতে সুপারিশের কাজ পিছিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। কেননা কবে নাগাদ নতুন চেয়ারম্যান যোগ দেবেন সে সম্পর্কে কোনো তথ্য কারো কাছেই নেই।

এদিকে এনটিআরসিএকে বিদায় জানানোর পূর্বে বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষক নিয়োগের সুপারিশ করে যাওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন এনটিআরসিএ চেয়ারম্যান মো. আশরাফ উদ্দিন। সাথে আলাপকালে নিজের এই চাওয়া ব্যাক্ত করেন তিনি।

আশরাফ উদ্দিন বলেন, আমার সহকর্মীদের অক্লান্ত পরিশ্রমের কারণেই খুব অল্প সময়ের মধ্যেই গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করতে পেরেছি। এজন্য আমি তাদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই। তারা না থাকলে কাজটা এত সহজ হত না। আমি সরকারি কর্মচারী, আমাকে যখন যে দায়িত্ব দেয়া হবে, আমি সেটিই পালন করব।

এনটিআরসিএর চেয়ারম্যান বলেন, তৃতীয় গনবিজ্ঞপ্তির সুপারিশ করে যেতে চাই। না হলে একটি অপূর্ণতা থেকে যাবে। গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশে সবাইকে অনেক পরিশ্রম করতে হয়েছে। এই অবস্থায় যদি সুপারিশ না করে যাই, তাহলে একটি আক্ষেপ থেকেই যাবে।

এনটিআরসিএতে কাজের অভিজ্ঞতা সম্পর্কে তিনি আরও বলেন, এনটিআরসিতে জয়েন করার পর থেকে কাজের মধ্যেই থাকতে চেয়েছি। অনেক সময় সরকারি ছুটির দিনেও কাজ করতে হয়েছে। তবে জাতি গড়ার কারিগরদের নিয়ে কাজ করতে পারায় অনেক ভালো লেগেছে। যারা দেশের ভবিষ্যত প্রজন্ম তৈরি করবে তাদের জন্য কষ্টকে কষ্ট মনে হয়নি।