তিন প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে একযোগে ভর্তি ২৮ আগস্ট

দেশের তিনটি প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের ভর্তি কার্যক্রম শুরু হবে আগামী ২০ আগস্ট। এদিন থেকে ভর্তিচ্ছুরা প্রকৌশল গুচ্ছের ভর্তি সংক্রান্ত ওয়েবসাইটে বিশ্ববিদ্যালয় ও বিভাগের পছন্দক্রম দিতে পারবেন। আগামী ২৮ আগস্ট একযোগে তিন বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে।

প্রকৌশল গুচ্ছের কেন্দ্রীয় ভর্তি কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ড. কে এম আজহারুল হাসান এবং সদস্যসচিব অধ্যাপক ড. মোহাম্মাদ আবু ইউসুফ শুক্রবার রাতে গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানিয়েছেন। এবার তিনটি বিশ্ববিদ্যারয়ের ভর্তি ফি নির্ধারণ করা হয়েছে ১৮ হাজার ৫শ টাকা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ফলাফল সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, মেধাস্থান প্রাপ্ত সকল প্রার্থীকে আগামী ২০ আগস্ট (শনিবার) সকাল ৯টা থেকে https://admissionckruet.ac.bd/ লিংকে প্রবেশ করে Online Choice Form এর প্রয়োজনীয় তথ্য পূরণ করতে হবে। একইসঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয় ও বিভাগের পছন্দক্রম প্রদান করতে হবে।

ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগসমূহ এবং নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগের জন্য ৩৯টি পছন্দসহ একটি পছন্দক্রম এবং স্থাপত্য বিভাগের জন্য ৩টি পছন্দসহ আলাদা একটি পছন্দক্রম পূরণ করতে হবে। Online Choice Form-এ প্রদানকৃত তথ্য ও পছন্দক্রম ২৭ আগস্ট (শনিবার) দুপুর ১২টার পর্যন্ত প্রার্থীরা পরিবর্তন করতে পারবে। এরপর আর কোন তথ্য বা পছন্দক্রম পরিবর্তন করা যাবে না। পূরণকৃত ফরমের এক কপি (প্রিন্টেড) ভর্তির সময় নিয়ে আসতে হবে।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার দুপুরে দেশের তিনটি প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়েছে। ভর্তিচ্ছুরা প্রকৌশল গুচ্ছের ওয়েবসাইটে (https://admissionckruet.ac.bd/) লগ-ইন করে ফলাফল দেখতে পারছেন।

ফলাফল সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে, ভর্তি কার্যক্রম চুয়েট, কুয়েট ও রুয়েট কেন্দ্র সমূহে একযোগে অনুষ্ঠিত হবে। প্রার্থী যে কেন্দ্রে ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে ওই কেন্দ্রেই উপস্থিত হয়ে ভর্তির জন্য প্রয়োজনীয় কার্যক্রম সম্পন্ন করতে হবে।

ভর্তি কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ড. কে এম আজহারুল হাসান বলেন, মেধাস্থান পাওয়া সব প্রার্থীকে ২০ আগস্ট থেকে ভর্তিসংক্রান্ত ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে প্রয়োজনীয় তথ্য পূরণ করতে হবে।

পরীক্ষার আহ্বায়ক এবং খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. কাজী সাজ্জাদ হোসেন বলেন, ভর্তিচ্ছুদের খাতা খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে মূল্যায়ন করা হয়েছে। রাজশাহী ও চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধিরাও উপস্থিত ছিলেন।