তামিমের ক্রিকেটীয় জ্ঞান আমার চেয়ে ভালো: মাশরাফী

আমার কাছে থেকে অধিনায়কের দায়িত্ব পাওয়াটা তামিম ইকবালের জন্য কোন বাড়তি চাপ না বরং তামিম আমারে চেয়ে ক্রিকেটীয় জ্ঞানের দিক থেকে এগিয়ে।’ সময় সংবাদে তামিম ইকবালকে নিয়ে এমনটাই মন্তব্য করেছেন মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা। তিনি এও বলেছেন, দল গুছানোর জন্য পর্যাপ্ত সময় পেলে ভবিষ্যতে বাংলাদেশের সেরা অধিনায়ক হবেন তামিম ইকবাল।

গেলো ৩৫ বছরে বাংলাদেশের ওয়ানডে ক্রিকেট ইতিহাসে গাজী আশরাফ লিপু থেকে বর্তমান সময়ের তামিম ইকবালসহ মোট ১৪ জন বাংলাদেশ ওয়ানডে দলকে নেতৃত্ব দিয়েছেন। যার মধ্যে সবচেয়ে বেশি ম্যাচে নেতৃত্ব দিয়ে ঈর্ষণীয় সফল মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা। ৮৮টি ওয়ানডেতে বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দিয়ে ৫০টি ম্যাচে বাংলাদেশকে জয়ের উল্লাসে ভাসিয়েছেন ম্যাশ। যার মধ্যে ২০১৫ বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনাল, চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনাল, দুইবার এশিয়া কাপের ফাইনাল ছাড়াও বহুজাতিক টুর্নামেন্টের আরাধ্য শিরোপা জয়ের পিপাসা মিটিয়েছে বাংলাদেশ মাশরাফী নেতৃত্বেই। এমন সফল অধিনায়কের কাছে থেকে নেতৃত্বে ভার তামিমের ওপর। চাপ হলো কিনা? ম্যাশ বলছেন, প্রশ্নই আসেনা।

মাশরাফী বলেন, আমি মনে করি তামিমের জন্য এটা মোটেও চাপ না। প্রথমত, তামিম খুবই স্মার্ট ছেলে। সে পৃথিবী সম্পর্কে আর থেকে অনেক বেশি জানে। আমার বিশ্বাস প্লেয়ারদের ফ্যাসিলিটিজ অনেক বেশি দিতে পারবে সে। সবকিছুর সক্ষমতা যখন ওর আছে তখন ও নিশ্চয়ই ভালো করবে।

ম্যাচ বলেন, দেশের বাইরে গেলে অনেক কিছুর প্রয়োজন হয় যে বিষয়গুলো আমার থেকে তামিম ভালো জানে। ছোট হেল্পটাও খেলোয়াড়দের অনেক সাহায্য করে। ছোট ছোট সক্ষমতাও লিডারশিপকে উচ্চতায় নিয়ে যায়। তামিম নিশ্চয়ই জানে কীভাবে একজন খেলোয়াড়দের পেছনে দাঁড়াতে হবে।

ঘরোয়া ক্রিকেটে খুব একটা লম্বা সময়ে নেতৃত্ব দেয়ার অভিজ্ঞতা নেই তামিম ইকবাল। ২০১৭ সালে ক্রাইষ্টচার্চ টেস্টে একাধিক ক্রিকেটার ইনজুরিতে পড়লে সে সময় আর গেলো বছরে শ্রীলঙ্কা সফরে মাশরাফী ইনজুরিতে পড়লে দলের আপদকালীন সময়ে বাংলাদেশ দলকে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন তামিম। তবে, এক যুগের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে তামিম অনেক পরিণত। এক কথায়-ম্যাচ উইনার। তাই নেতৃত্ব গুনেও তামিম হবেন দারুণ পরিণত। এ জন্য তামিমকে সময় দেয়ার পরামর্শ নড়াইল এক্সপ্রেসের।

ম্যাশ বলেন, তামিমকে এতটুকু সময় দিতে হবে যেনো সে তার মতো করে গুছিয়ে উঠতে পারে। তার টিমটাকে নিয়ে যেনো মাঠে কিছুদিন খেলতে পারে এবং তার মতো করে একটা টিম গড়ে নিতে পারেন।

তামিম দায়িত্ব নেয়ার পর জানিয়েছেন অধিনায়ক হিসেবে সফল হতে না পারলে নেতৃত্ব থেকে সড়ে দাঁড়াবেন। তবে, বিসিবি’র অন্দরমহলের খবর হলো, ২০২৩ বিশ্বকাপ পর্যন্তই তামিমের কাঁধে নেতৃত্বের ভরসা রাখতে চায় তারা।