ঢাবিতে আবেদনের যোগ্যতায় পরিবর্তন আসতে পারে

চলমান করোনা পরিস্থিতিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় ব্যাপক পরিবর্তন আসছে। ভর্তি পরীক্ষার নাম্বার থেকে শুরু করে পরীক্ষা পদ্ধতিতেও পরিবর্তন আসার সম্ভাবনা রয়েছে। এছাড়া প্রথমবারের মতো বিভাগীয় পর্যায়ে ভর্তি পরীক্ষার আয়োজন করা হতে পারে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

শিক্ষার্থীদের কাছে স্বপ্নের বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে পরিচিত ঢাবিতে ভর্তির ক্ষেত্রে জিপিএ একটি বড় ফ্যাক্টর। বিজ্ঞান, মানবিক ও বাণিজ্য শাখায় নির্দিষ্ট পয়েন্ট অর্জন করলে তবেই ভর্তি ফরম তুলতে পারেন শিক্ষার্থীরা। তাই যাদের জিপিএ খারাপ তাদের দুশ্চিন্তার যেন শেষ নেই।

এদিকে আগে বিভিন্ন ফ্যাকাল্টিতে আবেদন করতে যে জিপিএ প্রয়োজন হতো এবার তাতে পরিবর্তন আসার সম্ভাবনা রয়েছে বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন। যদিও ভর্তি পরীক্ষা নিয়ে গতকাল মঙ্গলবার ডিনস কমিটির যে বৈঠক হয়েছে সেখানে আবেদনের যোগ্যতা নিয়ে কোনো আলোচনা হয়নি। তবে চলমান পরিস্থিতি বিবেচনায় এবার জিপিএ পদ্ধতির কিছুটা পরিবর্তন হতে পারে বলে জানা গেছে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. সাদেকা হালিম বুধবার (২১ অক্টোবর) রাতে দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসকে বলেন, গতকালের মিটিংয়ে আবেদনের যোগ্যতা নিয়ে কোনো আলোচনা হয়নি। তবে এবার আবেদনের যোগ্যতার ক্ষেত্রে কিছু পরিবর্তন আসতে পারে।

তিনি আরও বলেন, বর্তমান অবস্থায় সব কিছুই নতুনভাবে চিন্তা করতে হচ্ছে। এইচএসসি পরীক্ষার ফল প্রকাশে এখনো অনেক সময় বাকি আছে। এর মধ্যে আমাদের আরও মিটিং আছে। সেখানে এই বিষয়ে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

ঢাবিতে আবেদনের গতবারের যোগ্যতা

ঢাবিতে মোট পাঁচটি ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষা নেওয়া হয়। ইউনিটগুলো হলো— ক, খ, গ, ঘ, এবং চ ইউনিট। প্রতিটি ইউনিটে অংশগ্রহণের জন্য শিক্ষার্থীদের আলাদা যোগ্যতার প্রয়োজন আছে। যেমন— ‘ক’ ইউনিটে অংশগ্রহণের জন্য এসএসসি ও এইচএসসিতে ন্যূনতম জিপিএ ৮.০০ থাকা আবশ্যক এবং পৃথকভাবে দুটিতে জিপিএ ৩.৫০ থাকতে হবে। ‘খ’ ইউনিটে এসএসসি ও এইচএসসিতে ন্যূনতম জিপিএ ৭.০০ এবং পৃথকভাবে দুটি পরীক্ষায় ৩.০০ থাকা বাধ্যতামূলক। ‘গ’ ইউনিটে এসএসসি ও এইচএসসিতে ন্যূনতম জিপিএ ৭.৫০ এবং পৃথকভাবে দুটি পরীক্ষায় জিপিএ ৩.৫০ থাক বাধ্যতামূলক।

‘ঘ’ ইউনিটে মানবিকের পরীক্ষার্থীদের জন্য এসএসসি ও এইচএসসিতে ন্যূনতম জিপিএ ৭.০০ বিজ্ঞানের পরীক্ষার্থীদের জন্য জিপিএ ৮.০০ এবং ব্যবসায় শিক্ষা পরীক্ষার্থীদের জন্য জিপিএ ৭.৫০থাকতে হবে। নাহলে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে না।

‘চ’ ইউনিটে এসএসসি ও এইচএসসিতে ন্যূনতম জিপিএ ৬.৫০ এবং পৃথকভাবে দুটি পরীক্ষায় জিপিএ ৩.০০ থাকা আবশ্যক। এসএসসি ও এইচএসসির ফলাফলে চতুর্থ বিষয়সহ জিপিএ গণ্য করা হবে। এটা সব ইউনিটের জন্য প্রযোজ্য।