ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় অবৈধ ভ্রাম্যমাণ দোকান থাকবে না

টিএসসি ও কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার এলাকাসহ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) ক্যাম্পাসের বিভিন্ন এলাকায় নিয়মিতই বিভিন্ন ভ্রাম্যমাণ দোকান বসে। এসব দোকানে চা-সিগারেট, কলা–বিস্কুট, চটপটি, ফুচকা, চপ, সিঙাড়া, পেঁয়াজুসহ নানা ধরনের মুখরোচক খাদ্যখাবার পাওয়া যায়। শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি এসব দোকানকে কেন্দ্র করে হাজারো মানুষের ভিড় জমে। করোনাকালের শুরুর দিকে কিছুদিন বন্ধ থাকলেও পরে এই আড্ডা আবার শুরু হয়।

এবার বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ক্যাম্পাস এলাকায় ভ্রাম্যমাণ কোনো দোকান না রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সংবাদমাধ্যমকে এ কথা জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর এ কে এম গোলাম রব্বানী।

সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের অংশ হিসেবে গত রোববার সন্ধ্যায় পুলিশের সহযোগিতায় ক্যাম্পাস এলাকায় অভিযানও চালিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল টিম। এ সময় ভ্রাম্যমাণ দোকানগুলো বন্ধ করে দেওয়া হয়। দ্রুত সময়ের মধ্যে তাঁদের দোকানগুলো তুলে নিতে বলা হয়।

টিএসসির পাশে অবস্থিত সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের ৩ নম্বর ফটকের দোকানিদের সব দোকান তুলে দিতে আগামীকাল বুধবার পর্যন্ত সময় দেওয়া হয়েছে।

প্রক্টর এ কে এম গোলাম রব্বানী বলেন, নতুন কোনো সিদ্ধান্ত নয় এটা, ক্যাম্পাসে অবৈধ ভ্রাম্যমাণ কোনো স্থাপনা থাকবে না। করোনা মহামারি চলছে, এখন ক্যাম্পাসে বিশাল গণজমায়েত হচ্ছে এসব দোকানকে ঘিরে। খাদ্য, অবৈধ সমাগম, অবৈধ ব্যবসা ইত্যাদি কারণে করোনার ঝুঁকি তৈরি হচ্ছে। ফলে ক্যাম্পাস থেকে এখন এগুলো সরাতে হচ্ছে।