ডুয়েট ভর্তি পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা

২০২১-২০২২ শিক্ষাবর্ষের ১ম বর্ষ বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং ও ব্যাচেলর অব আর্কিটেকচার (বি আর্ক) প্রোগ্রামে ভর্তি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে ঢাকা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (ডুয়েট)।

বিজ্ঞপ্তিতে ভর্তি পরীক্ষার সম্ভাব্য তারিখ জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়টি। ১০ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হয়ে পরীক্ষা শেষ হতে পারে ১১ সেপ্টেম্বর। সূচি পরিবর্তন হলে পরবর্তীতে ওয়েবসাইটের মাধ্যমে জানানো হবে। ভর্তি বিষয়ক তথ্যাবলী বিশ্ববিদ্যালয়ের এই ওয়েবসাইটে http://admission.duetbd.org পাওয়া যাবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী,৩১ জুলাই সকাল ১০টা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়টির ভর্তি আবেদন শুরু হয়েছে। চলবে আগামী ২৫ আগস্ট পর্যন্ত। আবেদন শেষে প্রবেশপত্র ডাউনলোড করা যাবে ৩১ জুলাই থেকে ৯ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের যোগ্য প্রার্থীদের তালিকা ঘোষণা করা হবে ৩১ আগস্ট বিকাল ৪টায়। পরীক্ষার সম্ভাব্য তারিখ ১০ ও ১১ সেপ্টেম্বর। ভর্তি পরীক্ষা শেষে ভর্তির জন্য নির্বাচিত প্রার্থীদের তালিকা ২৬ সেপ্টম্বর প্রকাশিত হবে।

প্রতিদিন সকাল-বিকেল দুই শিফটে ৪ ধাপে বিশ্ববিদ্যালয়টির ৯টি বিভাগের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। ৩০০ নম্বরের পরীক্ষায় সর্বনিম্ন পাস নম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে ৪০ শতাংশ।

চলতি শিক্ষাবর্ষে ভর্তি পরীক্ষার আবেদন ফি নির্ধারণ করা হয়েছে ১ হাজার ১৮০ টাকা। ভর্তি ফি নগদ/DBBL মোবাইল ব্যাংকিং-এর মাধ্যমে দিতে হবে।

প্রার্থীর যোগ্যতা

প্রার্থীকে বাংলাদেশের নাগরিক হতে হবে। প্রার্থীকে বাংলাদেশের যে কোন মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড/কারিগরি শিক্ষা বোর্ড/মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড হতে মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট/দাখিল বা সমমানের পরীক্ষায় কমপক্ষে ৫০% নম্বর অথবা ৫ এর স্কেলে কমপক্ষে GPA ৩.০০ (ঐচ্ছিক বিষয়সহ) পেয়ে উত্তীর্ণ হইতে হবে।

প্রার্থীকে বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং/আর্কিটেকচার এ গড়ে কমপক্ষে ৬০% নম্বর অথবা ৪-এর স্কেলে কমপক্ষে CGPA 3.00 পেয়ে উত্তীর্ণ হতে হবে।

ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং/আর্কিটেকচার পরীক্ষায় ২০২০ ও তৎপরবর্তী সনে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরাই ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে। তবে সরকারী, আধা সরকারী, স্বায়ত্বশাসিত, সেক্টর কর্পোরেশন-এ শিক্ষকতাসহ অন্যান্য পদে কর্মরত প্রার্থীদের ক্ষেত্রে এই নিয়ম প্রযোজ্য হবে না।

ভর্তি পরীক্ষার বিষয় ও নম্বর বিভাজন
ভর্তি পরীক্ষার মোট নম্বর ৩০০; এর মধ্যে প্রথম পত্র: রসায়ন ৪০, পদার্থ বিজ্ঞান ৪০, গণিত ৪০, ইংরেজি ৩০ এবং দ্বিতীয় পত্র: টেকনিক্যাল বিষয় ১৫০। লিখিত পরীক্ষায় সব বিষয়ে ২০-২৫% এমসিকিউ থাকবে।

প্রার্থী বাছাই
ভর্তি পরীক্ষায় পাস নম্বর সর্বনিম্ন শতকরা চল্লিশ। তবে ১ম ও ২য় পত্রে পৃথকভাবে ৩৫% নম্বরের কম পেলে ভর্তির অযোগ্য বলে বিবেচিত হবে। কেবলমাত্র ভর্তি পরীক্ষায় কৃতকার্য প্রার্থীদের মধ্যে থেকে প্রাপ্ত মোট নম্বরের মেধা ভিত্তিতে আসন পূরণ করা হবে।

আসন সংখ্যা
সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে ১২০ জন, ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে ১২০ জন, মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে ১২০ জন, কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে ১২০ জন, টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে ৬০ জন, আর্কিটেকচারে ৩০ জন, ইন্ডাস্ট্রিয়াল অ্যান্ড প্রোডাকশন ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে ৩০ জন, কেমিক্যাল অ্যান্ড ফুড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের দুই বিভাগে ১৫জন করে ১৫ ৩০ জন এবং ম্যাটেরিয়ালস অ্যান্ড মেটালার্জিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে ৩০ জন শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে।